ঢাবির ভর্তি পরীক্ষা

প্রশ্নফাঁসের অভিযোগ তদন্তে কমিটি

বগুড়ায় ২ প্রতিষ্ঠানে অভিযান, ৬ কম্পিউটার জব্দ

প্রকাশ : ১৪ অক্টোবর ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

  যুগান্তর ডেস্ক

ভর্তি পরীক্ষা। ফাইল ছবি

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ‘ঘ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষায় প্রশ্নফাঁসের অভিযোগ তদন্তে একটি কমিটি গঠন করেছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। পরীক্ষার আগে মোবাইল ফোনে হাতে লেখা উত্তর সংবলিত প্রশ্নপত্রের কপি পাওয়ার অভিযোগের ঘটনা তদন্ত করবে এ কমিটি।

এদিকে প্রশ্নফাঁসের সঙ্গে জড়িত সন্দেহে শনিবার দুপুরে বগুড়া শহরের জলেশ্বরীতলা ও সূত্রাপুর এলাকায় দুটি ভর্তি সহযোগী প্রতিষ্ঠানে অভিযান চালানো হয়েছে। সেখান থেকে ৬টি কম্পিউটার জব্দ করেছে পুলিশ।

ঢাবি প্রতিনিধি জানান, তিন সদস্যের কমিটিকে ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে প্রতিবেদন জমা দিতে বলা হয়েছে। এ বিষয়ে শনিবার সন্ধ্যায় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক ড. একেএম গোলাম রব্বানী যুগান্তরকে বলেন, এ ধরনের অভিযোগ আসার পর থেকেই আমরা কাজ করছি। এরই মধ্যে তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। আশা করছি, দ্রুততম সময়ের মধ্যে বিষয়টি সম্পর্কে সবাইকে জানাতে পারব।

প্রক্টর আরও জানান, বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রোভিসি (প্রশাসন) অধ্যাপক মুহাম্মদ সামাদের নেতৃত্বাধীন তদন্ত কমিটির দুই সদস্য হলেন- জীববিজ্ঞান অনুষদের ডিন ইমদাদুল হক ও সহকারী প্রক্টর মাকসুদুর রহমান।

এ বিষয়ে প্রোভিসি অধ্যাপক সামাদ বলেন, শুক্রবার রাতে তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়। শনিবার ছুটির দিনেও আমরা একটি মিটিং করে গাইডলাইন ঠিক করেছি। রোববার (আজ) আরও একটি মিটিং করব।

প্রসঙ্গত, টানা তৃতীয়বারের মতো ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদভুক্ত ‘ঘ’ ইউনিটে সম্মান ১ম বর্ষের ভর্তি পরীক্ষায় প্রশ্নফাঁসের অভিযোগ ওঠে। শুক্রবার পরীক্ষা শুরুর আগে সকাল ৯টা ১৭ মিনিটে হাতে লেখা উত্তরসহ ওই প্রশ্নপত্র পাওয়া যায়।

পরীক্ষা বাতিল দাবি প্রগতিশীল ছাত্র জোটের : এদিকে প্রশ্নফাঁসের দায়ে ‘ঘ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা বাতিল করে পুনরায় পরীক্ষা গ্রহণের দাবি জানিয়েছে প্রগতিশীল ছাত্র জোট। পাশাপাশি প্রশ্নফাঁসের ঘটনায় জড়িতদের বিচার দাবি করেছেন তারা।

শনিবার সন্ধ্যায় জোটের বিশ্ববিদ্যালয় শাখা বিক্ষোভ মিছিল-পরবর্তী এক সমাবেশ থেকে এ দাবি করে। টিএসসি থেকে মিছিলটি শুরু হয়ে কেন্দ্রীয় লাইব্রেরি, মধুর ক্যান্টিন ঘুরে রাজু ভাস্কর্যে এসে এক সমাবেশের মাধ্যমে শেষ হয়। সমাবেশে জোটের ঢাবি শাখার সমন্বয়ক ও ছাত্র ফেডারেশনের ঢাবি শাখার সভাপতি উম্মে হাবিবা বেনজির বলেন, ভর্তি জালিয়াতির ঘটনায় ‘ঘ’ ইউনিটের পরীক্ষা বাতিল করতে হবে। তা না হলে জোটের পক্ষ থেকে আরও কঠোর কর্মসূচির হুশিয়ারি দেন তিনি।

বগুড়ায় অভিযান : বগুড়া ব্যুরো জানায়, ভর্তি পরীক্ষার প্রশ্নফাঁসের সঙ্গে জড়িত সন্দেহে শনিবার দুপুরে শহরের জলেশ্বরীতলা ও সূত্রাপুর এলাকায় দুটি ভর্তি সহযোগী প্রতিষ্ঠানে অভিযান চালানো হয়েছে। এ সময় ওই দুটি প্রতিষ্ঠান থেকে ৬টি কম্পিউটার জব্দ করে পুলিশ।

বগুড়ার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (মিডিয়া) সনাতন চক্রবর্তী বলেন, ঢাবি ‘ঘ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষার প্রশ্নফাঁসের সঙ্গে বগুড়ার কিছু প্রতিষ্ঠান জড়িত রয়েছে বলে সন্দেহ করা হচ্ছে। সিআইডির প্রধান কার্যালয়ের নির্দেশনা অনুসারে শনিবার বেলা ১টা থেকে ২টা পর্যন্ত অভিযান চালানো হয়। জলেশ্বরীতলার রানার মালিকানাধীন ‘রাহিমা অ্যাডমিশন’ থেকে ৪টি ও সূত্রাপুরের পাপ্পুর ‘গুগল অ্যাডমিশন’ থেকে ২টি কম্পিউটার জব্দ করা হয়। অভিযান টের পেয়ে রানা ও পাপ্পু পালিয়ে যায়। তাদের গ্রেফতারে অভিযান চলছে।