সরকারি চাকরিতে কোটা দাবি

প্রতিবন্ধীদের শাহবাগ মোড় অবরোধ অব্যাহত

  ঢাবি প্রতিনিধি ১৫ অক্টোবর ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

প্রতিবন্ধীদের শাহবাগ মোড় অবরোধ অব্যাহত
শাহবাগ মোড় অবরোধ কর্মসূচি অব্যাহত রেখেছে প্রতিবন্ধী শিক্ষার্থীরা। ছবি: যুগান্তর

সরকারি চাকরিতে ৫ শতাংশ প্রতিবন্ধী কোটার দাবিতে রাজধানীর শাহবাগ মোড় অবরোধ কর্মসূচি অব্যাহত রেখেছে প্রতিবন্ধী শিক্ষার্থীরা। দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত কর্মসূচি চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন তারা।

রোববার সারা দিন শাহবাগে অবস্থান ছিল তাদের। ফলে রাজধানীর এ ব্যস্ততম সড়কটির আশপাশের এলাকায় তীব্র যানযট সৃষ্টি হয়। তবে বাইপাস সড়ক দিয়ে কিছু যানবাহন চলাচল করতে দেখা গেছে। অন্যদিকে মুক্তিযোদ্ধাদের অসম্মান ও কোটা সংস্কার আন্দোলনে উসকানির অভিযোগে মন্ত্রিপরিষদ সচিবসহ ৬ জনের কুশপুত্তলিকা দাহ করেছে মুক্তিযোদ্ধা কোটার দাবিতে আন্দোলনরতদের একাংশ।

অবরোধের বিষয়ে বাংলাদেশ প্রতিবন্ধী শিক্ষার্থী ঐক্য পরিষদের আহ্বায়ক আলী হোসেন বলেন, আমরা প্রশাসনিক প্রতারণার শিকার। এটা হতে পারে না। প্রতিবন্ধীদের সঙ্গে এমন আচরণের একটা সুরাহা হতে হবে। প্রতিবন্ধীদের অনগ্রসরতার দিকটি বিবেচনা করে সরকারি চাকরিতে ৫ শতাংশ কোটা রাখতে হবে। এ দাবি পূরণ না হওয়া পর্যন্ত শাহবাগ মোড় ছাড়ব না। এ সময় তিনি ১১ দফা দাবি উত্থাপন করেন। সেগুলো হল- প্রথম ও দ্বিতীয় শ্রেণীর চাকরিতে ৫ শতাংশ প্রতিবন্ধী কোটা রাখা, প্রিলিমিনারি পরীক্ষা থেকে প্রতিবন্ধী কোটা কার্যকর করা, সরকারের সর্বোচ্চ নীতিনির্ধারণী পর্যায়ে তরুণ প্রতিবন্ধীদের প্রতিনিধি করা, প্রতিবন্ধী বিষয়ক মন্ত্রণালয় গঠন, চাকরির পরীক্ষায় প্রতিবন্ধীদের জন্য ১০ মিনিট সময় বাড়ানো, তীব্র মাত্রার প্রতিবন্ধীদের চাকরিতে অগ্রাধিকার দেয়া, সব প্রকার চাকরিতে শ্রুতি লেখকের নীতিমালা প্রণয়ন, সরকারি চাকরিতে প্রবেশের বয়সসীমা শিথিল করা, প্রতিবন্ধীদের কর্মসংস্থানের প্রবেশগম্যতা নিশ্চিত করা ও প্রতিবন্ধীদের উন্নয়নের জন্য প্রতিবন্ধী অধিদফতর করা।

৬ জনের কুশপুত্তলিকা দাহ : এদিকে মুক্তিযোদ্ধাদের সন্তান ও নাতি-নাতনিদের জন্য সব ধরনের সরকারি চাকরিতে প্রিলিমিনারি থেকে ৩০ শতাংশ কোটা বহালের দাবিতে লাগাতার আন্দোলনের ঘোষণা দিয়েছেন আন্দোলনকারীরা। রোববার সন্ধ্যায় মুক্তিযোদ্ধাদের অসম্মান ও কোটাবিরোধী আন্দোলনে ইন্ধন দেয়ার অভিযোগে অভিযুক্তদের কুশপুত্তলিকা দাহ কর্মসূচি থেকে এ দাবি জানান তারা। যাদের কুশপুত্তলিকা দাহ করা হয়েছে তারা হলেন- ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের অধ্যাপক ড. আসিফ নজরুল, মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলম, সাবেক মন্ত্রিপরিষদ সচিব আলী ইমাম মজুমদার, বাংলাদেশ পাবলিক সার্ভিস কমিশনের (পিএসসি) চেয়ারম্যান ড. মোহাম্মদ সাদিক, সাংবাদিক মৌসুমী মৌ ও কলামিস্ট শরীফুল হাসান। তবে ইতিপূর্বে মুক্তিযোদ্ধা কোটা দাবির আন্দোলন থেকে তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সাবেক উপদেষ্টা ড. আকবর আলি খানের কুশপুত্তলিকা দাহ করার ঘোষণা দেয়া হলেও পরে তা করা হয়নি।

৩০ শতাংশ মুক্তিযোদ্ধা কোটার দাবির আন্দোলনে বক্তব্য রাখেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজবিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক ড. আ ক ম জামাল উদ্দীন। দাবি আদায়ে ধারাবাহিকভাবে প্রতিটি বিভাগ ও জেলা-মহানগর পর্যায়ে সভা সমাবেশ ও মতবিনিময়, কোটা সংস্কার আন্দোলনের নামে মুক্তিযুদ্ধ, মুক্তিযোদ্ধা, স্বাধীনতা, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও প্রধানমন্ত্রীকে নিয়ে কটূক্তি ও কুরুচিপূর্ণ মন্তব্যের সংগৃহীত চিত্র প্রদর্শন, পিএসসি ঘেরাও এবং কোটার দাবিতে মহাসমাবেশ কর্মসূচি পালন করা হবে।

ঘটনাপ্রবাহ : কোটাবিরোধী আন্দোলন ২০১৮

আরও
আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

 
×