হাসপাতালে কাক্সিক্ষত সেবা নিশ্চিত করুন : প্রধানমন্ত্রী

  বাসস ২৬ জানুয়ারি ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশের হাসপাতালগুলোয় জনগণের কাক্সিক্ষত স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করার জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে নির্দেশ দিয়েছেন। বৃহস্পতিবার বিকালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তার তেজগাঁও কার্যালয়ে ঢাকা মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের সম্প্রসারণ এবং আধুনিকায়ন সংক্রান্ত মডেল উপস্থাপনকালে এ নির্দেশনা প্রদান করেন। এদিন অপর এক অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী সুষ্ঠু নদী ব্যবস্থাপনার ওপর গুরুত্বারোপ করেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমাদের লক্ষ্যই হচ্ছে সঠিক স্বাস্থ্যসেবাটা নিশ্চিত করা, যাতে সাধারণ মানুষ ঢাকা মেডিকেল কলেজ এবং অন্যান্য হাসপাতাল থেকে কাক্সিক্ষত চিকিৎসাসেবা পেতে পারে।

প্রধানমন্ত্রী ঢাকা মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালকে একটি পরিবেশবান্ধব এবং দৃষ্টিনন্দন আধুনিক চিকিৎসাসেবার সুবিধাসংবলিত প্রতিষ্ঠান হিসেবে গড়ে তুলতে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে নির্দেশ দেন। এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, সরকার আধুনিকায়নের মাধ্যমে ঢাকা মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালকে নতুন রূপ দিতে চায় যেখানে বিভিন্ন আধুনিক সুযোগ-সুবিধা এবং পর্যাপ্ত খোলা জায়গা থাকবে। উন্নত আবহ সৃষ্টি করাটা জরুরি এবং যে কোনো আগুন লাগার ঘটনা ঘটলে অগ্নিনির্বাপণ সরঞ্জামের পাশাপাশি দ্রুত এবং নিরাপদ প্রস্থান নিশ্চিত করাটাও প্রয়োজনীয়।

স্বাস্থ্য খাতের উন্নয়নে সরকারের পদক্ষেপ তুলে ধরে প্রধানমন্ত্রী বলেন, দেশের স্বাস্থ্য খাতের উন্নয়নে এবং স্বাস্থ্যসেবাকে সাধারণ মানুষের দোরগোড়ায় পৌঁছে দিতে তার সরকার নিরলস পরিশ্রম করছে। তিনি এ সময় ‘১৯৯৬ থেকে ২০০১’ পর্যন্ত তার প্রথমবার সরকারে থাকার সময়ে দেশের প্রথম মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হিসেবে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার প্রসঙ্গ উল্লেখ করেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, চট্টগ্রাম এবং রাজশাহীতে আরও দুটি মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপনের প্রক্রিয়া চলছে। পর্যায়ক্রমে দেশের সব বিভাগীয় সদরে মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপনেও সরকার উদ্যোগ গ্রহণ করছে।

মেডিকেয়ার সুবিধা সম্প্রসারণে তার সরকারের পদক্ষেপ তুলে ধরে শেখ হাসিনা বলেন, একসময় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালই ঢাকা শহরে চিকিৎসার জন্য একমাত্র স্বাস্থ্য কেন্দ্র ছিল এবং বেসরকারি খাতেও কোনো হাসপাতাল ছিল না।

স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম, স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী জাহিদ মালিক এবং সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তরা এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

দেশ রক্ষায় নদী বাঁচানোর আহ্বান : এদিকে প্রধানমন্ত্রী তার কার্যালয়ে ‘কম্প্রিহেনসিভ প্ল্যান ফর স্টাবিলাইজেশন অব দ্য যমুনা- পদ্মা রিভার অ্যান্ড পাইলট ইন্টারভেনশন ফর ল্যান্ড রিক্লেমেশন’-এর ওপর এক মডেল উপস্থাপন অনুষ্ঠানে সুষ্ঠু নদী ব্যবস্থাপনার ওপর গুরুত্ব আরোপ করেছেন।

তিনি বলেন, নদীগুলোকে বাঁচাতে সুষ্ঠু নদী ব্যবস্থাপনা আবশ্যক। দেশ রক্ষা ও উন্নয়নের জন্য নদী বাঁচাতে হবে। অনুষ্ঠানে পানিসম্পদমন্ত্রী আনোয়ার হোসেন মঞ্জু বক্তৃতা করেন। উপস্থিত ছিলেন নৌপরিবহনমন্ত্রী শাজাহান খান।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশে অনেক নদী- নৌপথ হচ্ছে ব্যবসা-বাণিজ্যের সবচেয়ে ভালো রুট। নদীগুলো থেকে লাভবান হওয়ার আমাদের অনেক সুযোগ রয়েছে। নদীর জমি পুনরুদ্ধার হলে দেশ আরও উন্নত হবে। আমরা পরিকল্পিত নগরায়ণের মাধ্যমে কলকারখানা গড়ে তুলে বসতি সম্প্রসারণ করতে পারি।

তিনি বলেন, ভূমি পুনরুদ্ধারের সুবাদে বিনিয়োগ ও কৃষিজমি বাড়বে এবং দারিদ্র্য নির্মূল হবে। এ জন্য এই নদীসম্পদকে আমাদের কাজে লাগাতে হবে। প্রধানমন্ত্রী বলেন, খরস্রোতা ও বড় নদীগুলোর গভীরতা ধরে রাখতে পদক্ষেপ নিতে হবে। আমরা ব্যাপক ভূমি পুনরুদ্ধার করতে পারলে একটি বাফার জোন গড়ে উঠবে।

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×