চট্টগ্রামে আসন ভাগাভাগি

কপাল পুড়তে পারে আ’লীগ বিএনপির একাধিক নেতার

  নাসির উদ্দিন রকি, চট্টগ্রাম ব্যুরো ১৮ নভেম্বর ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

নৌকা ও ধানের শীষ

জোট-মহাজোটের রাজনীতিতে চট্টগ্রামে কপাল পুড়তে পারে আওয়ামী লীগ ও বিএনপির একাধিক মনোনয়ন প্রত্যাশীর। চট্টগ্রামে ১৬ আসনের মধ্যে আওয়ামী লীগ তার শরিকদের ৫টি এবং বিএনপি ৬টি আসন ছাড় দিতে পারে। এ কারণে এসব আসনে মনোনয়ন চাওয়ার মধ্যেই হয়তো সীমাবদ্ধ থাকতে হবে দুই প্রধান দলের সম্ভাব্য প্রার্থীদের। মনোনয়নবঞ্চিত কিছু নেতা শরিকদের সঙ্গে কাজ করার কথা বললেও কেউ কেউ বিদ্রোহী হয়ে ‘স্বতন্ত্র’ হিসেবে নির্বাচন করতে পারেন বলে আভাস পাওয়া গেছে। যদিও বিদ্রোহীদের আজীবনের জন্য বহিষ্কার করা হবে বলে কঠোর হুশিয়ারি দিয়েছে একটি দল।

আওয়ামী লীগ : আওয়ামী লীগ তার প্রধান শরিক জাতীয় পার্টিকে ৩টি, তরিকত ফেডারেশন ১টি ও জাসদকে ১টি আসন ছাড়তে পারে। চট্টগ্রাম-২ (ফটিকছড়ি) আসনে বর্তমান সংসদ সদস্য আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন জোটের শরিক তরিকত ফেডারেশনের চেয়ারম্যান নজিবুল বশর মাইজভাণ্ডারি মনোনয়নপ্রত্যাশী। ২০১৪ সালের বিএনপিবিহীন নির্বাচনে তিনি এ আসন থেকে মহাজোটের প্রার্থী হিসেবে নির্বাচিত হন।

এ আসনে আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ ও জমা দিয়েছেন চট্টগ্রাম উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক এটিএম পেয়ারুল ইসলাম, সাবেক সংসদ সদস্য রফিকুল আনোয়ারের মেয়ে খদিজাতুল আনোয়ার সনি ও উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি মুজিবুল হকসহ ২৫ জন। যদি এ আসনটি জোটের জন্য আবার ছেড়ে দেয়া হয় তবে দলীয় প্রার্থীদের কপাল পুড়বে।

চট্টগ্রাম-৫ (হাটহাজারী) আসনে এবারও মহাজোটের প্রার্থী হতে চান বর্তমান সংসদ সদস্য ও জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য ব্যারিস্টার আনিসুল ইসলাম মাহমুদ। আসনটিতে আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়নপত্র নিয়েছেন চট্টগ্রাম উত্তর জেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ও জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান এমএ সালাম, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ইউনুস গণি চৌধুরী, নগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ইব্রাহিম হোসেন চৌধুরী বাবুল, আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় উপকমিটির সদস্য মাহমুদ সালাহউদ্দিন চৌধুরীসহ ১০ জন।

চট্টগ্রাম-৮ (চান্দগাঁও-বোয়ালখালী উপজেলার শ্রীপুর ও খরণদ্বীপ ইউনিয়ন ছাড়া) আসনে মহাজোটের প্রার্থী বর্তমান সংসদ সদস্য বাংলাদেশ জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দলের (একাংশ) কার্যকরী সভাপতি মাঈনউদ্দিন খান বাদল মনোনয়নপ্রত্যাশী।

এ আসনে আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়নপত্র নিয়েছেন প্রবাসীকল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থানমন্ত্রী নুরুল ইসলাম বিএসসি ও তার ছেলে বিশিষ্ট সমাজসেবক তরুণ শিল্পপতি মুজিবুর রহমান, দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি মোছলেম উদ্দিন আহমেদ, সিডিএ চেয়ারম্যান মো. আবদুচ ছালাম, দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগ নেতা আবদুল কাদের সুজনসহ ১৭ জন।

চট্টগ্রাম-৯ (কোতোয়ালি-বাকলিয়া) আসনে গত নির্বাচনে মহাজোটের প্রার্থী হিসেবে এমপি হয়েছিলেন জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য জিয়াউদ্দিন আহমেদ বাবলু। এবারও তিনি মহাজোটের মনোনয়ন চান। এ আসনে আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়নপ্রত্যাশী নগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ও মন্ত্রী নুরুল ইসলাম বিএসসি এবং তার ছেলে মুজিবুর রহমান, আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক প্রয়াত আওয়ামী লীগ নেতা মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেলসহ ২৬ জন।

চট্টগ্রাম-১৬ (বাঁশখালী) আসনে মহাজোটের মনোনয়নপ্রত্যাশী সাবেক সিটি মেয়র ও জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য মাহমুদুল ইসলাম চৌধুরী। এ আসনে আওয়ামী লীগের মনোনয়নপ্রত্যাশী বর্তমান সংসদ সদস্য মোস্তাফিজুর রহমান চৌধুরী, চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের কোষাধ্যক্ষ শিল্পপতি মুজিবুর রহমানসহ ১২ জন।

বিএনপি : বিএনপি শরিক দলগুলোকে ৬টি আসন ছাড় দিতে পারে। এর মধ্যে এলডিপি ২টি, বাংলাদেশ কল্যাণ পার্টি ১টি ও জামায়াতে ইসলামীকে ৩টি আসন ছাড় দেয়া হতে পারে।

চট্টগ্রাম-৫ (হাটহাজারী) আসন থেকে বাংলাদেশ কল্যাণ পার্টির চেয়ারম্যান মেজর জেনারেল (অব.) মুহাম্মদ ইব্রাহিম বীরপ্রতীক বিএনপি নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোটের মনোনয়ন চান। এ আসন থেকে বিএনপির দলীয় মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ ও জমা দিয়েছেন বিএনপির জাতীয় নির্বাহী কমিটির ভাইস চেয়ারম্যান মীর মোহাম্মদ নাছির উদ্দীন, বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা এসএম ফজলুল হক, বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির স্বাস্থ্য বিষয়ক সম্পাদক ডা. ফাওয়াজ হোসেন শুভ, বিএনপির কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মীর হেলাল ও জাতীয়তবাদী আইনজীবী ফোরামের যুগ্ম-সম্পাদক ব্যারিস্টার শাকিলা ফারজানাসহ ৭ জন।

চট্টগ্রাম-৭ (রাঙ্গুনিয়া) আসন থেকে মনোনয়ন চান লিবারেল ডেমোক্রেটিক পার্টির (এলডিপি) সিনিয়র সহ-সভাপতি নুরুল আলম। এ আসন থেকে বিএনপির দলীয় মনোনয়ন সংগ্রহ করেছেন বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান গিয়াসউদ্দিন কাদের চৌধুরী ও বিএনপির প্রয়াত নেতা সালাহউদ্দিন কাদের চৌধুরীর ছেলে হুম্মাম কাদের চৌধুরীসহ ৮ জন।

চট্টগ্রাম-১০ (ডবলমুরিং-পাহাড়তলী-হালিশহর-খুলশী) আসনে জামায়াতের মজলিশে শূরার সদস্য শাহজাহান চৌধুরী মনোনয়ন চান। এ আসনে মনোনয়ন নিয়েছেন বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান আবদুল্লাহ আল নোমান, বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরীসহ ৫ জন।

চট্টগ্রাম-১৪ (চন্দনাইশ-সাতকানিয়া আংশিক) আসনে লিবারেল ডেমোক্রেটিক পার্টির (এলডিপি) সভাপতি কর্নেল (অব.) অলি আহমেদ বীরবিক্রম মনোনয়ন চান। এ আসনে মনোনয়ন নিয়েছেন বিএনপির পরিবার কল্যাণ সম্পাদক ও হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ ডা. মহসিন জিল্লুর করিম এবং বিএনপি নেতা অধ্যাপক এহেছানুল মৌলা।

চট্টগ্রাম-১৫ (সাতকানিয়া আংশিক ও লোহাগাড়া) জামায়াতে ইসলামীর নায়েবে আমীর আ ন ম শামসুল ইসলাম মনোনয়ন চান। এ আসনে বিএনপির মনোনয়ন নিয়েছেন বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির শ্রমিক বিষয়ক সম্পাদক এএম নাজিম উদ্দীন, দক্ষিণ জেলা বিএনপির সিনিয়র সহ-সভাপতি অধ্যাপক শেখ মোহাম্মদ মহিউদ্দিনসহ ৬ জন। এ আসনে দুই মেয়াদে জামায়াতে ইসলামীর শাহজাহান চৌধুরী ও আ ন ম শামসুল ইসলাম এমপি ছিলেন।

চট্টগ্রাম-১৬ (বাঁশখালী) আসনে উপজেলা চেয়ারম্যান ও উপজেলা জামায়াতের আমীর জহিরুল ইসলাম মনোনয়ন চান। এ আসনে বিএনপির মনোনয়ন নিয়েছেন দক্ষিণ জেলা বিএনপির সভাপতি জাফরুল ইসলাম চৌধুরী, বাঁশখালী পৌরসভার সাবেক মেয়র ও দক্ষিণ জেলা বিএনপির যুগ্ম সম্পাদক কামরুল ইসলাম হোছাইনী, দক্ষিণ জেলা বিএনপির সহ-সভাপতি অ্যাডভোকেট মো. ইফতেখার হোসেন চৌধুরী মহসিন ও বিএনপি নেতা শাখাওয়াত জামাল দুলাল।

ঘটনাপ্রবাহ : বৃহত্তর জাতীয় ঐক্য

আরও
আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×