নিবন্ধন পরিদফতরকে অধিদফতরে উন্নীত

৪৯১ পদে জনবল নিয়োগের উদ্যোগ

  আলমগীর হোসেন ২৭ জানুয়ারি ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

আইন মন্ত্রণালয়ের অধীন প্রতিষ্ঠান নিবন্ধন পরিদফতরকে (রেজিস্ট্রেশন বিভাগ) আরও গতিশীল করার উদ্যোগ নিয়েছে সরকার। এর অংশ হিসেবে নিবন্ধন পরিদফতরকে অধিদফতরে উন্নীত করা হয়েছে। ইতিমধ্যে ৪৯১টি পদে জনবল নিয়োগের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। এতে সাধারণ মানুষের সেবা আরও নিশ্চিত হবে বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা।

সূত্র জানায়, রেজিস্ট্রেশন বিভাগ প্রতিবছর প্রায় ১১ হাজার কোটি টাকা রাজস্ব আদয় করলেও পরিদফতর থাকা অবস্থায় ক্ষুদ্র প্রাতিষ্ঠানিক কাঠামোর কারণে মাঠ পর্যায়ের কর্মকর্তাদের কাজের সঠিক তদারকি করার সুযোগ ছিল না। এজন্য কর্মকর্তাদের মাঝেও এক ধরনের হতাশা ছিল। অধিদফতরে উন্নীত করার পর সেই হতাশা নিরসন হয়েছে।

এছাড়া রেজিস্ট্রেশন বিভাগে কর্মরত প্রায় ১৫ হাজার নকল নবিশ নিয়মিত পারিশ্রমিক না পাওয়ায় এবং প্রয়োজনীয় বালাম বই সরবরাহ না থাকায় কাজে স্থবিরতা ছিল। দুই বছরেরও বেশি সময় নকল নবিশদের পারিশ্রমিক বকেয়া থাকায় তারা কলম বিরতি, মানববন্ধনসহ নানা ধরনের আন্দোলন কর্মসূচি গ্রহণ করে। এতে বালামে মূল দলিল নকলের কাজ ব্যাহত হয়। এছাড়া নিয়মিত বালাম বই ও অন্যান্য প্রয়োজনীয় ফরম সরবরাহ না করায় জনগণকে মূল দলিল ফেরত পাওয়ার জন্য বছরের পর বছর অপেক্ষা করতে হয়েছে। আইনমন্ত্রী আনিসুল হক বিষয়টি জানার পর দ্রুততার সঙ্গে মানসম্পন্ন বালাম বই ও অন্যান্য প্রয়োজনীয় ফরম সরকারি প্রকাশনা ও মুদ্রণালয়ের পরিবর্তে মন্ত্রণালয়ের নিজস্ব ব্যবস্থায় ছাপানোর উদ্যোগ গ্রহণ করেন।

দীর্ঘদিন ধরে দেশের বিভিন্ন উপজেলায় শতাধিক সাব- রেজিস্ট্রারের পদ শূন্য ছিল। এ কারণে দলিল রেজিস্ট্রেশনে সমস্যা হচ্ছিল। ইতিমধ্যে পিএসসির মাধ্যমে নতুন ১১০ জনকে সাব-রেজিস্ট্রার পদে নিয়োগ দেয়া হয়েছে। নিয়োগপ্রাপ্ত ১১০ সাবরেজিস্ট্রার প্রশিক্ষণ গ্রহণ শেষে দেশের বিভিন্ন উপজেলায় যোগদান করেছেন। এদিকে দেশের সব কয়টি বিভাগে ৪৯১ জন বিভাগীয় নিবন্ধন কর্মকর্তা নিয়োগের উদ্যোগ নিয়েছে সরকার। শিগগিরই এ নিয়োগ প্রক্রিয়া শুরু হবে।

এ বিষয়ে আইনমন্ত্রী আনিসুল হক বলেন, জনগণের সুবিধার কথা চিন্তা করেই নিবন্ধন পরিদফতরকে অধিদফতরে উন্নীত করা হয়েছে। ইতিমধ্যে বিভিন্ন প্রকল্পের মাধ্যমে ৪৮টি জেলা রেজিস্ট্রি অফিস ভবন এবং ২৩৩টি সাবরেজিস্ট্রি অফিস ভবন নির্মাণ করা হয়েছে। এছাড়া ৩০৯ কোটি ৩২ লাখ টাকা ব্যয়ে ৪ তলাবিশিষ্ট ১৪টি জেলা রেজিস্ট্রি অফিস ভবন এবং ২ ও ৩ তলাবিশিষ্ট ৯৮টি সাবরেজিস্ট্রি অফিস ভবন নির্মাণ প্রকল্প অনুমোদিত হয়েছে। এ প্রকল্প বাস্তবায়িত হলে আর কোনো জেলা রেজিস্ট্রার ও সাবরেজিস্ট্রারকে ভাড়া বাসায় অফিস করতে হবে না।

এ বিষয়ে মহাপরিদর্শক (নিবন্ধন অধিদফতর) খান মো. আবদুল মান্নান যুগান্তরকে বলেন, পরিদফতরকে অধিদফতরে উন্নীত করায় নাগরিক সুবিধা আরও বৃদ্ধি পাবে। এতে করে আমাদের সার্ভিস জুরিসডিকশন (কাজের পরিধি) বাড়বে। ইতিমধ্যে সার দেশে ১১৪টি জেলা এবং ১শ’টি সাবরেজিস্ট্রার অফিসের কাজ হচ্ছে। প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, যেখানে খালি জায়গা পাওয়া যাবে সেখানেই ভবন নির্মাণ করা হবে।

এ বিষয়ে ঢাকার জেলা রেজিস্ট্রার ও বাংলাদেশ রেজিস্ট্রেশন সার্ভিস অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি দীপক কুমার সরকার যুগান্তরকে বলেন, ২০১১ সালে বিভিন্ন দাবি-দাওয়া নিয়ে বাংলাদেশ রেজিস্ট্রেশন সার্ভিস অ্যাসোসিয়েশনের একটি প্রতিনিধি দল প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে দেখা করে। প্রধানমন্ত্রী রেজিস্ট্রেশন বিভাগের উন্নয়নের জন্য তার দফতরের সিনিয়র সচিব মোল্লা ওয়াহিদুজ্জামানকে প্রধান করে একটি উচ্চ পর্যায়ের কমিটি করে দেন।

দীপক কুমার আরও বলেন, প্রধানমন্ত্রীর অনুশাসনের ভিত্তিতে আইন মন্ত্রণালয় রেজিস্ট্রেশন অধিদফতর বাস্তবায়নের উদ্যোগ গ্রহণ করে। প্রথম অবস্থায় জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের অনুমোদন পাওয়া যায়। পরবর্তীতে অর্থ মন্ত্রণালয়ের ব্যয় নিয়ন্ত্রণ শাখা ও বাস্তবায়ন শাখা থেকে ৪৯১টি নতুন পদের মঞ্জুরিসহ অনুমোদন প্রদান করা হয়।

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×