চট্টগ্রামে ৯০ জনসহ সারা দেশে গ্রেফতার ১৭১

  যুগান্তর ডেস্ক ১৬ ডিসেম্বর ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

বিএনপি,

চট্টগ্রামে ৯০ জনসহ দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে বিএনপি-জামায়াতের ১৭১ নেতাকর্মীকে গ্রেফতার করেছে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী। এর মধ্যে রাজধানীতে ১০, মানিকগঞ্জের সাটুরিয়ায় ১৭, হবিগঞ্জে ১৪, যশোরে ১০, মৌলভীবাজারে ৯, নওগাঁয় ৭, চাঁদপুরের হাজীগঞ্জে ২, নারায়ণগঞ্জে ২, ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবায় ১ ও পাবনায় ১ জন রয়েছেন।

বিভিন্ন মামলায় তাদের গ্রেফতার করা হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ। তবে দল ও পরিবারের পক্ষ থেকে বলা হয়, অধিকাংশের বিরুদ্ধে মামলা না থাকলেও গায়েবি মামলায় তাদের গ্রেফতার করা হয়েছে। যুগান্তর ব্যুরো ও প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর-

রাজধানী : ঢাকা-৮ আসনে বিএনপির প্রার্থী মির্জা আব্বাস অভিযোগ করেন, শনিবার সেগুনবাগিচা কাঁচাবাজারে তার নেতাকর্মীদের ওপর আওয়ামী লীগ, যুবলীগ ও ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা সশস্ত্র হামলা করেছে। আহত নেতাকর্মীরা হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে গেলে দু’জনকে আটক করেছে পুলিশ। তার স্ত্রী আফরোজা আব্বাস ঢাকা-৯ আসনের প্রার্থী। সেখানেও প্রচারকালে সাতজনকে আটক করা হয়। ঢাকা-১২ আসনের প্রার্থী সাইফুল আলম নীরব জানান, নির্বাচনী প্রচারণার সময় শনিবার তেজগাঁও থানা যুবদলের সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক আবু সুফিয়ানকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

চট্টগ্রাম : বিএনপি-জামায়াতের অন্তত ৯০ নেতাকর্মীকে পুলিশ গ্রেফতার করেছে। শুক্রবার সন্ধ্যা থেকে শনিবার সকাল ৮টা পর্যন্ত নগরী ও জেলার বিভিন্ন থানা এলাকা থেকে তাদের গ্রেফতার করা হয় বলে দল দুটির পক্ষ থেকে দাবি করা হয়েছে। এর মধ্যে কয়েকজনকে গ্রেফতারের কথা স্বীকার করেছে পুলিশ। চট্টগ্রাম-৯ আসনের বিএনপির প্রার্থী কারাবন্দি ডা. শাহাদাত হোসেনের পক্ষে নির্বাচনী প্রচারণা চালানোর সময় চট্টগ্রাম নগর বিএনপির সহসভাপতি ও সাবেক কাউন্সিলর সবুক্তগীন সিদ্দিকী মক্কীকে গ্রেফতার করে পুলিশ। চকবাজার থানার ওসি নিজাম উদ্দীন বলেন, গ্রেফতারি পরোয়ানার আসামি হিসেবে মক্কীকে গ্রেফতার করা হয়েছে। শুক্রবার রাত ১০টায় মহানগর বিএনপির অপর সহসভাপতি সৈয়দ আহমদকে গ্রেফতার করা হয়। ডবলমুরিং থানার ওসি একেএম মহিউদ্দিন সেলিম বলেন, বৃহস্পতিবার পুলিশের ওপর হামলা মামলায় সৈয়দ আহমদকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির উপ-দফতর সম্পাদক মো. ইদ্রিস আলী যুগান্তরকে বলেন, নগর বিএনপির দুই সহসভাপতি ছাড়াও নগরীর বিভিন্ন ওয়ার্ড থেকে ৬০ নেতাকর্মীকে গ্রেফতার করা হয়েছে। নির্বাচন সামনে রেখে এসব নেতাকর্মীকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এছাড়া পটিয়ায় বিএনপির ১৩ ও চট্টগ্রাম-১৫ (লোহাগাড়া-সাতকানিয়া) আসনে জামায়াতের ১৮ নেতাকর্মীকে পুলিশ গ্রেফতার করেছে বলে অভিযোগ করা হয়েছে।

সাটুরিয়া (মানিকগঞ্জ) : সাটুরিয়ায় বিএনপির ১৭ নেতাকর্মীকে আটক করেছে পুলিশ। শুক্রবার রাতে ও শনিবার দিনব্যাপী তাদের আটক করা হয়। তারা হলেন- আবু বকর সিদ্দিক, আরিফ খান স্বপন, আবদুল মালেক, শওকত আলী, সামসুল আলম, মুন্নাফ, জামান, শাহিনুর আলী, সোহেল রানা, মালেক, মিঠু, নাজিমুদ্দিন, আবুল কালাম, আবদুস সামাদ, আবদুস সোবাহান, সেন্টু, ফজলুল হক ও দুলাল মিয়া। সাটুরিয়া থানার ওসি মো. আমিনুল ইসলাম বলেন, আটককৃতদের বিরুদ্ধে হামলা ও নাশকতার পরিকল্পনার অভিযোগ রয়েছে।

হবিগঞ্জ : বিএনপির ১৪ নেতাকর্মীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। শুক্রবার রাত থেকে শনিবার সন্ধ্যা পর্যন্ত তাদের গ্রেফতার করা হয়। তাদের মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলেন জেলা বিএনপির যুগ্ম সম্পাদক কামাল উদ্দিন সেলিম, শায়েস্তাগঞ্জ উপজেলা বিএনপির আহ্বায়ক সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান গোলাম কিবরিয়া চৌধুরী বেলাল, সাবেক ছাত্রনেতা মহিবুল ইসলাম শাহীন, জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ মুশফিক আহমেদ, সহসভাপতি জাকি চৌধুরী, অ্যাডভোকেট গুলজার খান, ইউপি মেম্বার মোস্তফা জামাল ও হাবিবুর রহমান।

যশোর ও অভয়নগর : চৌগাছায় শুক্রবার রাতে বিএনপি-জামায়াতের আট নেতাকর্মীকে আটক করেছে পুলিশ। তারা হলেন- চৌগাছা পৌরসভার টিকাদানকারী মাসুদ আহমেদ, চৌগাছা পৌর জামায়াতের সাবেক সেক্রেটারি আহসান হাবিব, জগদীশপুর ইউনিয়ন জামায়াতের সভাপতি সহকারী অধ্যাপক ড. মাহবুবুর রহমান, নারায়ণপুর ইউনিয়ন জামায়াতের সভাপতি তুহিনুর রহমান, চৌগাছা পৌরসভার ৬নং ওয়ার্ড জামায়াতের সভাপতি ও জেটিকেইউ দাখিল মাদ্রাসার সুপার মাওলানা আনোয়ার হুসাইন, সাঞ্চাডাঙ্গা ওয়ার্ড জামায়াতের সভাপতি আবদুল খালেক, রঘুনাথপুর ওয়ার্ড জামায়াতের সভাপতি সাহাজ উদ্দিন। হাকিমপুর ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি সাজ্জাদ হোসেন খানকে শনিবার দুপুরে নিজ গ্রাম থেকে আটক করা হয়। চৌগাছা থানার সেকেন্ড অফিসার উপপরিদর্শক আকিকুল ইসলাম বলেন, নাশকতার মামলায় আটজনকে আটক করা হয়েছে। শনিবার তাদের আদালতে পাঠানো হয়েছে। এছাড়া অভয়নগর উপজেলার গাজীপুর থেকে শুক্রবার রাতে নাশকতার মামলায় বিএনপি কর্মী রবিউল ইসলামকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

ভেড়ামারা ও দৌলতপুর (কুষ্টিয়া) : দৌলতপুরে শুক্রবার রাতে বিএনপির আট নেতাকে আটক করেছে পুলিশ। তারা হলেন- মথুরাপুর ইউনিয়ন বিএনপির যুগ্ম সম্পাদক রেজাউল হক মেম্বার, বিএনপি নেতা শরিফুল ইসলাম, আতিয়ার রহমান, মাসুদ শেখ, লাভলু হক লাভলু, বাঘা উদ্দিন বাঘা, আশরাফুল ইসলাম ও ছাত্রদল নেতা শিমুল। শনিবার নাশকতার মামলা দিয়ে তাদের জেলে পাঠানো হয়েছে।

নওগাঁ : মান্দা উপজেলায় বিএনপির সাত নেতাকর্মীকে শনিবার আটক করেছে পুলিশ। তারা হলেন- মান্দা থানা বিএনপির সিনিয়র সহসভাপতি একেএম নাজমুল হক নাজু, যুবদলের সভাপতি মিজানুর রহমান নান্টু, ছাত্রবিষয়ক সম্পাদক রবিউল হাসান রবি, তেঁতুলিয়া ইউনিয়ন বিএনপির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আজাহার হোসেন, সাংগঠনিক সম্পাদক জব্বার মৌল্যা, সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক আজাদ মণ্ডল ও ছাত্রদল নেতা কামরুল হাসান। মান্দা থানার ওসি মোজাফ্ফর হোসেন বলেন, আওয়ামী লীগের নির্বাচনী অফিস ভাংচুরের ঘটনায় থানায় মামলায় তাদের আটক করে জেলে পাঠানো হয়েছে।

মৌলভীবাজার, বড়লেখা ও শ্রীমঙ্গল : মৌলভীবাজার সদর উপজেলায় শুক্রবার রাতে আখাইলকুড়া ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান শামিম আহমদ ও মনুমুখ ইউনিয়ন যুবদল নেতা আফজল আহমদকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। মৌলভীবাজার থানার ওসি সোহেল আহাম্মদ বলেন, তাদের নিয়মিত মামলায় গ্রেফতার করা হয়েছে। বড়লেখা উপজেলার উত্তর শাহবাজপুর ইউনিয়ন যুবদলের সাধারণ সম্পাদক জামিল আহমদ এবং দক্ষিণভাগ উত্তর ইউনিয়নের মুছেগুল গ্রামের জামায়াত নেতা নিজাম উদ্দিনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। বড়লেখা থানার উপ-পরিদর্শক অমিতাভ দাস তালুকদার বলেন, নিজাম উদ্দিন ছয়টি ও জামিল আহমদ একটি মামলার ওয়ারেন্টভুক্ত পলাতক আসামি। এছাড়া শ্রীমঙ্গলে বিএনপির পাঁচজন নেতাকর্মীকে শুক্রবার রাতে আটক করা হয়েছে। তারা হলেন- মির্জাপুর ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি সুফি মিয়া, মছদ্দর মিয়া, আহাদ মেম্বার, ৫নং ওয়ার্ড বিএনপির সভাপতি আতা মিয়া ও যুবদল নেতা মোছাব্বির মিয়া। শ্রীমঙ্গল থানার ওসি তদন্ত সোহেল রানা বলেন, ১ সেপ্টেম্বর দায়ের করা মামলায় এজাহার নামীয় পাঁচ আসামিকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

হাজীগঞ্জ (চাঁদপুর) : হাজীগঞ্জের ৬নং বড়কুল ইউনিয়ন যুবদলের সহসভাপতি শাহাদাত হোসেন ও ৩নং ওয়ার্ড যুবদলের সিরাজুল ইসলামকে শুক্রবার রাতে আটক করেছে পুলিশ।

সিদ্ধিরগঞ্জ (নারায়ণগঞ্জ) : নারায়ণগঞ্জ শহর ছাত্রশিবিরের সভাপতি সাঈদ সরোয়ারসহ দু’জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। সিদ্ধিরগঞ্জের আদমজী কদমতলী থেকে শুক্রবার রাতে নারায়ণগঞ্জ শহর ছাত্রশিবিরের সভাপতি সাঈদ সরোয়ারকে গ্রেফতার করে পুলিশ। সাঈদ বন্দর থানার নবীগঞ্জের ওবায়েদ আলীর ছেলে। এছাড়া সিদ্ধিরগঞ্জের পাইনাদী নতুন মহল্লা থেকে গোলাম রব্বানী নামে এক ব্যক্তিকে গ্রেফতার করা হয়েছে। পুলিশ জানায়, গোলাম রব্বানী জামায়াত করেন। তবে তার পরিবারের দাবি, গোলাম রব্বানী কোনো রাজনীতির সঙ্গে জড়িত নয়। তার বিরুদ্ধে থানায় কোনো মামলাও নেই।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া : কসবা উপজেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক শরীফুল ইসলামকে শুক্রবার রাতে খারপাড়া থেকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। ওসি আবদুল মালেক জানান, শরীফুলকে কসবা থানায় সন্ত্রাসবিরোধী আইনের একটি মামলায় গ্রেফতার করা হয়েছে।

পাবনা : বেড়া উপজেলার হাটুরিয়া-নাকালিয়া ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান ও বিএনপি নেতা চাঁদ প্রামাণিককে শনিবার গ্রেফতার করেছে পুলিশ। বেড়া থানার ওসি শাহিদ মাহমুদ খাঁন বলেন, আওয়ামী লীগের অফিস পোড়ানো মামলায় চাঁদ প্রামাণিককে গ্রেফতার করে জেলে পাঠানো হয়েছে।

রাজশাহী : রাজশাহীর গোদাগাড়ী উপজেলা বিএনপির সভাপতি আবদুস সালাম শাওয়ালকে আটকের দেড় ঘণ্টা পর ছেড়ে দিয়েছে পুলিশ। দলীয় সূত্র জানায়, শাওয়াল শুক্রবার রাত ৯টার দিকে বিএনপি প্রার্থী ব্যারিস্টার আমিনুল হকের প্রচারণা শেষে নিজ গ্রাম রাজাবাড়িতে ফেরার পথে সাদা পোশাকের পুলিশ তাকে আটক করে। পরে তাকে ছেড়ে দেয়া হয়।

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: jugantor.[email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter
×