রাজধানীতে মহাজোট প্রার্থীদের ষষ্ঠ দিনের প্রচারণা

অলিগলিতে দিনভর মিছিল-শোডাউন

  যুগান্তর রিপোর্ট ১৬ ডিসেম্বর ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

নির্বাচন,

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন সামনে রেখে রাজধানীতে ষষ্ঠ দিনের মতো গণসংযোগ করেছেন আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন মহাজোটের প্রার্থীরা। উৎসবমুখর পরিবেশে শনিবার সকাল থেকে রাত পর্যন্ত মানুষের কাছে গিয়ে নৌকার পক্ষে ভোট চেয়েছেন তারা। অনেকেই যোগ দিয়েছেন বিভিন্ন সভা-সমাবেশ ও সামাজিক অনুষ্ঠানে। তুলে ধরেছেন সরকারের উন্নয়ন কর্মকাণ্ড। এছাড়া এদিন নগরীর বিভিন্ন রাস্তা ও অলিগলিতে দিনভর নৌকার পক্ষে মিছিল ও শোডাউন করেন প্রার্থী এবং তাদের সমর্থকরা।

সকাল থেকে রাত পর্যন্ত ঢাকা-১০ আসনে নির্বাচনী প্রচারণা চালিয়েছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস। হাজারীবাগ থানার ১৪ নম্বর ওয়ার্ড দিয়ে তিনি তার নির্বাচনী প্রচারণা শুরু করেন। দুপুর ১২টায় রাজধানীর ঝিগাতলা এলাকায় নৌকার পক্ষে ভোট চেয়েছেন শেখ ফজলে নূর তাপস। এছাড়া একই দিন দুপুর ১টায় মুন্সিবাড়ি এলাকায়, রাত ৮টায় বাংলা সড়ক এলাকায় সাধারণ মানুষের কাছে গিয়ে নৌকার পক্ষে ভোট চান তিনি। রাত ৯টায় নির্বাচনী এলাকার তল্লাবাড়ে উঠোন বৈঠকে অংশ নেন আওয়ামী লীগের প্রার্থী তাপস। এ সময় স্থানীয় বিভিন্ন সমস্যা সমাধানের প্রতিশ্র“তি দিয়ে আবারও নৌকা মার্কাকে বিজয়ী করার আহ্বান জানান তিনি।

শনিবার দুপুরের পর রাজধানীর রামপুরা এলাকায় নির্বাচনী প্রচারে নামেন ঢাকা-১১ আসনের আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগ সভাপতি এ কে এম রহমতুল্লাহ এমপি। সেখানে প্রথমে ২৬ নম্বর ওয়ার্ড এলাকার সাধারণ ভোটারের সঙ্গে কুশল বিনিময় করেন ও নৌকা মার্কায় ভোট চান তিনি। সন্ধ্যা ৬-৭টা পর্যন্ত মীরবাগ পাক-প্রাইমারি স্কুলে এক কর্মী সভায় যোগ দেন। পরে রাতে হাজীপাড়া এলাকায় নির্বাচনী গণসংযোগ চালান নৌকার এই প্রার্থী। এ সময় তার সঙ্গে রামপুরা থানা আওয়ামী লীগ সভাপতি হাজী মো. লিয়াকত, সাধারণ সম্পাদক বাদল, স্থানীয় কমিশনার মোস্তাক, নগর আওয়ামী লীগ নেতা সাচ্চা, মুকুল প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

শনিবার সকালে রাজধানীর ৫০ নম্বর ওয়ার্ড এলাকা দিয়ে নির্বাচনী গণসংযোগ শুরু করেন ঢাকা-৫ আসনের আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী হাবিবুর রহমান মোল্লা। এ সময় তিনি সাধারণ মানুষের কাছে সরকারের উন্নয়নের প্রচারপত্র বিলি করেন। এ সময় তার সঙ্গে ৫০ নম্বর ওয়ার্ড যুবলীগ সভাপতি সায়েম খন্দকার উপস্থিত ছিলেন। এছাড়া এদিন নির্বাচনী এলাকার সারুলিয়া গরুর হাট, গোলাকটা, বড়ভাঙা এলাকায় প্রায় দুই হাজার নেতাকর্মী নিয়ে মিছিল করেছেন সারুলিয়া ইউনিয়ন যুবলীগ নেতা শহিদুজ্জামান আকাশ।

মিছিলটি স্টাফ কোয়ার্টার এলাকায় গিয়ে শেষ হয়। এ সময় যুবলীগ নেতা খলিলুর রহমান উপস্থিত ছিলেন। এছাড়া নৌকার প্রার্থীর পক্ষে রাজধানীর ধলপুর ও যাত্রবাড়ী এলাকায় মিছিল করেছেন আওয়ামী লীগ ও যুবলীগের নেতাকর্মীরা। এ সময় যুবলীগ নেতা আবুল কালাম আজাদ, নুরুল আমিন নীরু প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

এদিকে ঢাকা-৮ আসনে মহাজোটের প্রার্থী বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি রাশেদ খান মেনন শনিবার সকালে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ ডা. মিল্টন হলে এক আলোচনা সভায় যোগ দেন। সেখান থেকে বেরিয়ে গণসংযোগ শুরু করেন তিনি। বিকালে রাজধানীর মতিঝিলে যুব সমাবেশে যোগ দেন তিনি। ঢাকা মহানগর দক্ষিণ যুবলীগ আয়োজিত এই সমাবেশে সভাপতি ইসমাইল চৌধুরী সম্রাট মহাজোট প্রার্থী রাশেদ খান মেননকে নৌকায় ভোট দিয়ে বিজয়ী করার আহ্বান জানান। পরে সেখান থেকে একটি মিছিল বের করা হয়। মিছিলটি কাকরাইলে গিয়ে শেষ হয়। এদিন সন্ধ্যার পরেও নির্বাচনী এলাকার বেশ কিছু স্থানে প্রচারে অংশ নেন নৌকার প্রার্থী মেনন।

ঢাকা-১৩ আসনে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সাদেক খানও দিনভর গণসংযোগে ব্যস্ত সময় পার করেছেন। শনিবার বেলা ১১টার দিকে ২৮ নম্বর ওয়ার্ডের শেরেবাংলা নগর এলাকা দিয়ে তিনি প্রচারণা শুরু করেন। এ সময় সাধারণ মানুষের সঙ্গে কথা বলেন এবং তাদের কাছে নৌকায় ভোট চান তিনি। প্রচারের কিছু সময় রিকশায় চড়েও ঘোরেন সাদেক খান। এছাড়া এদিন ৩৩ নম্বর ওয়ার্ডে নৌকা মার্কার পক্ষে উঠোন বৈঠক করেন স্থানীয় নেতাকর্মীরা। মোহাম্মদপুর থানা যুবলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক ও ৩৩ নব্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর তারেকুজ্জামান রাজীব এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

এদিকে আমাদের তেজগাঁও প্রতিনিধি জানান, শনিবার সকালে রাজধানীর মানিক মিয়া এভিনিউয়ে যান ঢাকা-১২ আসনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল। বেলা সাড়ে ১১টার দিকে সেখানে শত শত মানুষের সঙ্গে বাংলাদেশের পতাকা নিয়ে ‘বিজয়ের পতাকা’ মিছিলে যোগ দেন তিনি। মিছিলটি সেখান থেকে কৃষিবিদ ইন্সটিটিউট অডিটরিয়ামে আসে। এ সময় অনুষ্ঠানে আসা দলীয় নেতাকর্মী ও দর্শকদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন অতিথিরা।

আসাদুজ্জামান খান কামালের সভাপতিত্বে জাতীয় পতাকার ডিজাইনার শিব নারায়ণ দাস, বিজিএমইএ’র সাবেক সভাপতি আতিকুল ইসলাম, এফবিসিসিআই সভাপতি শফিউল ইসলাম মহিউদ্দিন, ডাকসুর সাবেক ভিপি মাহফুজা খানম, ঢাকা-১২ আসনের বিভিন্ন ওয়ার্ড ও থানার আওয়ামী লীগের বিভিন্ন অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন। আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেন, স্বাধীনতাবিরোধীরা এক হয়েছে। বিএনপি-জামায়াতের সঙ্গে হাত মিলিয়ে গণতন্ত্র নষ্ট করতে চাচ্ছে। দেশের মানুষ তা মেনে নেবে না। এদিন নির্বাচনী এলাকায় গণসংযোগের সময় ভোটারদের হাতে জাতীয় পাতাকাও তুলে দেন তিনি।

এছাড়া শনিবার ঢাকা-৭ আসনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী হাজী সেলিম, ঢাকা-৯ আসনে সাবের হোসেন চৌধুরী, ঢাকা-১৪ আসনে নৌকার প্রার্থী আসলামুল হক আসলাম, ঢাকা ১৭-এর প্রার্থী চিত্রনায়ক ফারুক, ঢাকা-১৮ আসনে সাহারা খাতুনসহ রাজধানীর বিভিন্ন আসনের মহাজোট মনোনীত প্রার্থীরা সরকারের উন্নয়ন কার্যক্রম প্রচার এবং আওয়ামী লীগ ও বিএনপি-জামায়াতের তুলনামূলক কর্মকাণ্ড উপস্থাপন করে নৌকা মার্কার প্রচারণা চালিয়েছেন। এ ছাড়া এসব এলাকার পাড়া-মহল্লায় স্থানীয় আওয়ামী লীগ যুবলীগ-ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরাও নৌকার প্রার্থীর পক্ষে প্রচারণায় অংশ নেন।

ঘটনাপ্রবাহ : একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন

আরও
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×