ঐক্যফ্রন্টের মুখ রক্ষার নতুন বাহানা সংলাপ : তথ্যমন্ত্রী

বিএনপি-জামায়াতের কথার প্রতিধ্বনি করছে টিআইবি

  যুগান্তর রিপোর্ট ১৯ জানুয়ারি ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগ আয়োজিত বর্ধিত সভায় বক্তব্য দেন আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক এবং তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ
ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগ আয়োজিত বর্ধিত সভায় বক্তব্য দেন আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক এবং তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ

আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক এবং তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, আমাদের বিজয় যেমন বিশাল, প্রতিপক্ষের (ঐক্যফ্রন্ট) পরাজয়ও তেমন ধস নামানো। মুখরক্ষার জন্য ও কর্মীদের বোঝানোর জন্য কিছু একটা করতে হয়, সে জন্য তাদের নতুন বাহানা হচ্ছে জাতীয় সংলাপ। নিজেদের মুখরক্ষা ও রাজনৈতিক আলোচনায় টিকে থাকার জন্য জাতীয় সংলাপের কথা বলছে তারা।

রাজধানীর বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়ে শুক্রবার দুপুরে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগ আয়োজিত বর্ধিত সভায় তিনি এসব কথা বলেন। রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে আওয়ামী লীগের মহসমাবেশ সফল করতে এ বর্ধিত সভার আয়োজন করা হয়।

সভায় হাছান মাহমুদ বলেন, এই মুখ থুবড়ে পড়া বিএনপি-জামায়াতের পরাজিত নেতারা যখন আইসিইউতে, তখন টিআইবি তাদের অক্সিজেনের ভূমিকা নিয়েছে। টিআইবি নির্বাচনে পর্যবেক্ষকও ছিল না। যারা পর্যবেক্ষক ছিল তারা বলেছে নির্বাচন সুষ্ঠু, আর পর্যবেক্ষক না হয়ে মনগড়া প্রতিবেদন দিয়ে বিএনপি-জামায়াতের কথার প্রতিধ্বনি করছে টিআইবি।

আওয়ামী লীগের আমলে দেশের উন্নয়নের বর্ণনা দিতে গিয়ে তথ্যমন্ত্রী বলেন, বিমান থেকে এ দেশের ফ্লাইওভার আর গগনচুম্বী অট্টালিকা দেখে ইউরোপের মতো মনে হয়। হাতিরঝিলের সৌন্দর্য মনে করিয়ে দেয় প্যারিসের কথা। গ্রামে আর কুঁড়েঘর পাওয়া যায় না। হারিকেন আজ স্মৃতির অংশ। শেখ হাসিনার জাদুকরী নেতৃত্বে এ দেশ আজ বদলে যাওয়া বাংলাদেশ।

এ সময় টানা তৃতীয় মেয়াদে আওয়ামী লীগকে বিজয়ী করায় দেশবাসীকে ধন্যবাদ জানিয়ে ড. হাছান মাহমুদ বলেন, কাঁধে দায়িত্ব এলে বিনয়ী ও নম্র হতে হয়, বিজয়ীর আচরণ যেন কারও বিরক্তির কারণ না হয়। বিজয়ের পর যেভাবে আমরা নেত্রীর নির্দেশ মেনে চলেছি, তা বজায় রাখতে হবে।

বিএনপি-জামায়াত জোটের প্রসঙ্গ টেনে তিনি বলেন, ২০০১ সালের নির্বাচনের পর দেশকে সন্ত্রাসের জনপদে পরিণত করা হয়েছিল। নৌকায় ভোট দেয়ার অপরাধে আট বছরের শিশুকেও ধর্ষণ করা হয়েছিল, গ্রামছাড়া হয়েছিল বহু পরিবার। আর টানা তৃতীয়বার বিজয়ী হয়েও আওয়ামী লীগ বিজয়োৎসব করেনি।

নেতাকর্মীদের উদ্দেশে তিনি বলেন, সমাবেশ বর্ণিল কিন্তু সুশৃঙ্খল হবে। নেত্রীর বক্তব্য শেষ হওয়া পর্যন্ত সবাই উপস্থিত থাকব।

ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সভাপতি হাজী আবুল হাসনাতের সভাপতিত্বে সভায় দক্ষিণের সাধারণ সম্পাদক শাহে আলম মুরাদসহ বিভিন্ন থানা ও ওয়ার্ডের নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×