ধর্মীয় উসকানি মামলা

খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা

কুমিল্লার মামলায় জামিন আবেদন * ১১টির শুনানি ১৭ ফেব্রুয়ারি

  যুগান্তর রিপোর্ট ২১ জানুয়ারি ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া
বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। ফাইল ছবি

বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে ধর্মীয় উসকানির মামলায় গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেছেন আদালত। রোববার ঢাকা মহানগর হাকিম মোহাম্মদ জসীম মামলার প্রতিবেদন আমলে নিয়ে এ পরোয়ানা জারি করেন।

একই সঙ্গে আদালত আগামী ১৮ ফেব্রুয়ারি গ্রেফতার সংক্রান্ত তামিল প্রতিবেদন দাখিলের জন্য দিন ধার্য করেছেন। এদিকে কুমিল্লার নাশকতার মামলায় খালেদা জিয়ার জামিন চেয়ে হাইকোর্টে আবেদন করা হয়েছে।

এ ছাড়া তার বিরুদ্ধে দায়ের করা রাষ্ট্রদ্রোহসহ ১১টি মামলার শুনানির জন্য আগামী ১৭ ফেব্রুয়ারি দিন ধার্য করেছেন আদালত।

সকালে ধর্মীয় উসকানির মামলায় বাদীপক্ষের আইনজীবী আবুল কালাম আজাদ ফের গ্রেফতারি পরোয়ানা জারির আবেদন করে শুনানি করেন। শুনানি শেষে আদালত খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারির এ আদেশ দেন।

গত বছরের ২৩ জুলাই এ পরোয়ানা জারির আবেদন করেন মামলার বাদী এবি সিদ্দিকী। ওই দিন শুনানি শেষে আদালত আদেশের জন্য গত বছরের ১৬ সেপ্টেম্বর, ২৩ সেপ্টেম্বর, ১ নভেম্বর, ২৬ ডিসেম্বর ও পরবর্তী সময়ে তা পিছিয়ে এদিন (২০ জানুয়ারি) ধার্য করেন।

এর আগে গত বছরের ৩০ জুন এ মামলায় খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল করেন তদন্তকারী কর্মকর্তা শাহবাগ থানার ওসি (তদন্ত) জাফর আলী বিশ্বাস। তদন্ত প্রতিবেদনে তিনি অভিযোগের সত্যতা পাওয়া গেছে বলে উল্লেখ করেন।

২০১৪ সালের ১৪ অক্টোবর রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইন্সটিটিউশনে হিন্দু সম্প্রদায়ের শুভ বিজয়ার অনুষ্ঠানে সনাতন ধর্মাবলম্বীদের সঙ্গে শুভেচ্ছা বিনিময়কালে সংক্ষিপ্ত বক্তব্য দেন খালেদা জিয়া। এ সময় তিনি আওয়ামী লীগ সম্পর্কে কটূক্তিপূর্ণ সমালোচনা করেন।

বক্তৃতার একপর্যায়ে খালেদা জিয়া বলেন, ‘আওয়ামী লীগ ধর্মনিরপেক্ষতার মুখোশ পরে আছে। আসলে দলটি ধর্মহীনতায় বিশ্বাসী।’

ওই বক্তব্য দেয়ার জন্য ২০১৪ সালের ২১ অক্টোবর খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে দণ্ডবিধির ১৫৩(ক) ও ২৯৫(ক) ধারায় ঢাকা মহানগর হাকিম মোস্তাফিজুর রহমানের আদালতে একটি নালিশি মামলা করা হয়। ওই দিনই আদালত মামলাটি গ্রহণ করে তা তদন্তের জন্য শাহবাগ থানার ওসিকে নির্দেশ দেন।

কুমিল্লার মামলায় জামিন চেয়ে আবেদন : কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামে দায়ের করা মামলায় খালেদা জিয়ার জামিন চেয়ে হাইকোর্টে আবেদন করা হয়েছে। রোববার হাইকোর্টের সংশ্লিষ্ট শাখায় আবেদনটি দাখিল করেন খালেদা জিয়ার আইনজীবী প্যানেলের অন্যতম সদস্য ব্যারিস্টার কায়সার কামাল।

তিনি সাংবাদিকদের বলেন, ‘কুমিল্লার নাশকতার এক মামলায় স্থানীয় বিচারিক আদালত জামিন আবেদনের শুনানি দীর্ঘায়িত করছেন। তাই আমরা জামিন চেয়ে হাইকোর্টে আবেদন জানিয়েছি। এখন আবেদনটি বিচারপতি মো. রেজাউল হক ও বিচারপতি জাফর আহমেদের বেঞ্চের কার্যতালিকায় আসবে।

রাষ্ট্রদ্রোহসহ ১১ মামলার শুনানি ১৭ ফেব্রুয়ারি : খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে করা রাষ্ট্রদ্রোহসহ ১১টি মামলার শুনানির জন্য আগামী ১৭ ফেব্রুয়ারি দিন ধার্য করেছেন আদালত। রোববার রাজধানীর বকশীবাজারে স্থাপিত ঢাকা মহানগর দায়রা জজ কেএম ইমরুল কায়েশ মামলাগুলোর শুনানির পরবর্তী ওই দিন ধার্য করেন।

এদিন মামলাগুলোর কার্যক্রম উচ্চ আদালতের নির্দেশে স্থগিত থাকার কথা জানিয়ে সময় আবেদন করেন খালেদা জিয়ার আইনজীবীরা। আসামিপক্ষের সময় আবেদন মঞ্জুর করে আদালত শুনানির জন্য পরবর্তী ওই দিন ধার্য করেন। খালেদা জিয়ার আইনজীবী সৈয়দ জয়নুল আবেদীন মেজবাহ যুগান্তরকে এ তথ্য জানিয়েছেন।

আদালত সূত্র জানায়, মামলাগুলোর মধ্যে রাজধানীর দারুস সালাম থানার নাশকতার আটটি, যাত্রাবাড়ী থানার দুটি ও রাষ্ট্রদ্রোহের অপর একটি মামলা রয়েছে। এর মধ্যে যাত্রাবাড়ী থানায় যাত্রী হত্যা মামলার চার্জশিট (অভিযোগপত্র) গ্রহণের বিষয়ে শুনানির দিন ধার্য ছিল।

আর রাষ্ট্রদ্রোহ মামলায় ইতিমধ্যেই আসামিপক্ষ হাইকোর্টে মামলা বাতিল চেয়ে আবেদন করেছেন। ওই মামলায় চার্জ গঠন সংক্রান্ত উচ্চ আদালতের আদেশ দাখিলের দিন ধার্য ছিল। বাকি মামলায় চার্জ গঠন সংক্রান্ত শুনানির দিন ধার্য ছিল।

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×