একটুও বদলায়নি বাংলাদেশ!

দ্বিতীয় ওয়ানডেতেও আট উইকেটে হার

  স্পোর্টস ডেস্ক ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

ওয়ানডে

ছোট-বড় ভূমিকম্পে ১২ মাসই কাঁপাকাঁপির ওপর থাকে নিউজিল্যান্ড। নেপিয়ারের চেয়ে ক্রাইস্টচার্চ শহরটা আরও বেশি ভূমিকম্পপ্রবণ। কিন্তু বাংলাদেশের কাছে সবই যেন সমান। ভূমিকম্পের শহরে মাশরাফিদের পারফরম্যান্স বরং আরও নিস্তরঙ্গ। একই রেসিপিতে টানা দুই ম্যাচে বাংলাদেশকে আট উইকেটে হারিয়ে এক ম্যাচ বাকি থাকতে ওয়ানডে সিরিজ জিতে নিল নিউজিল্যান্ড।

টানা দুই সেঞ্চুরিতে নেপিয়ারের ম্যাকলিন পার্ক ও ক্রাইস্টচার্চের হ্যাগলি ওভালকে একবিন্দুতে মিলিয়ে দিলেন নিউজিল্যান্ডের ব্যাটিং হিরো মার্টিন গাপটিল। শনিবার ক্রাইস্টচার্চে সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচে কার্যত প্রথম ওয়ানডেরই পুনরাবৃত্তি হয়েছে। মেঘেঢাকা গুমোট সকালে টপঅর্ডারের আরেকটি ব্যর্থতায় আঁধারে ডুবে থাকল বাংলাদেশের ব্যাটিং। ধ্বংসস্তূপের মধ্যে দাঁড়িয়ে মোহাম্মদ মিঠুনের আরেকটি ফিফটি। আগের ম্যাচে প্রতিরোধ পর্বে মিঠুনের সঙ্গী ছিলেন মোহাম্মদ সালাউদ্দিন।

এবার সেই ভূমিকায় সাব্বির রহমান। আগের ম্যাচে বাংলাদেশ অলআউট হয়েছিল ২৩২ রানে। এবার দুই বল বাকি থাকতে বাংলাদেশ গুটিয়ে যায় ২২৬ রানে। মিঠুন ও সাব্বিরের ব্যাটে পাওয়া মাঝারি পুঁজিতে মুখরক্ষা হলেও জয়ের মুখ দেখা হয়নি। আগের ম্যাচে গাপটিলের সেঞ্চুরিতে ৩৩ বল বাকি থাকতে আট উইকেটের জয় তুলে নিয়েছিল নিউজিল্যান্ড।

কালও আট উইকেটে জিতেছে কিউইরা। তবে আরও দাপটের সঙ্গে, ৮৩ বল হাতে রেখে। নেপিয়ারে ১১৬ বলে ১১৭ রানে অপরাজিত থাকা গাপটিল কাল আরও রুদ্ররূপে হাজির হয়েছিলেন বাংলাদেশের বোলারদের সামনে। মাত্র ৭৬ বলে তুলে নেন ক্যারিয়ারের ১৬তম ওয়ানডে শতক। ১৪টি চার ও চারটি ছক্কায় ৮৮ বলে ১১৮ রান করে গাপটিল যখন আউট হন, ম্যাচের ভাগ্য ততক্ষণে লেখা হয়ে গেছে। গাপটিলের আগে হেনরি নিকোলসকে ফিরিয়েছেন মোস্তাফিজুর রহমান। প্রতিদ্বন্দ্বিতাহীন ম্যাচে বাংলাদেশের বোলারদের প্রাপ্তি বলতে মোস্তাফিজের দুই উইকেট। তবে তাতে কিউইদের গায়ে সামান্য আঁচড়ও লাগেনি।

দ্বিতীয় উইকেটে গাপটিলকে নিয়ে ১৪৩ রান যোগ করার পর অপরাজিত ফিফটিতে রস টেলরকে (২০*) নিয়ে জয়ের আনুষ্ঠানিকতা সারেন অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসন (৬৫*)। ব্যাটে-বলে হতাশার যুগলবন্দি এভাবেই বয়ে আনে সিরিজ খোয়ানো আরেকটি প্রতিরোধহীন হার। বুধবার ডানেডিনে সিরিজের শেষ ওয়ানডে এখন বাংলাদেশের জন্য ধবলধোলাইয়ের গ্লানি এড়ানোর লড়াই। নেপিয়ারে বাংলাদেশের অধিনায়ক হিসেবে শততম ম্যাচটি যেমন রাঙাতে পারেননি মাশরাফি মুর্তজা, ক্রাইস্টচার্চে তেমনি বাংলাদেশের দ্বিতীয় ক্রিকেটার হিসেবে ২০০তম ওয়ানডের মাইলফলক ছোঁয়ার উপলক্ষটি স্মরণীয় করে রাখতে পারলেন না মুশফিকুর রহিম। ২০০তম ওয়ানডেতে দু’বার ‘জীবন’ পেয়েও ২৪ রানে থামেন মুশফিক। আশার সমাধি খোঁড়া শুরু অবশ্য তার আগেই।

ম্যাচের আগে ঘণ্টাদুয়েকের বৃষ্টিতে গ্রীষ্মেও আচমকা শীত নেমে এসেছিল ক্রাইস্টচার্চে। কনকনে ঠাণ্ডায় টস হেরে ব্যাটিংয়ে নেমে কিউই পেস আক্রমণের চ্যালেঞ্জ সামলাতে পারেননি বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানরা। ঠিক আগের ম্যাচের মতোই দুই ওপেনার লিটন দাস ও তামিম ইকবাল ফেরেন যথাক্রমে এক ও পাঁচ রান করে। সৌম্য সরকারের (২২) ব্যাটে ছিল ক্ষণিকের ঝলক। স্বাগতিকরা ক্যাচ মিসের মহড়া দিলেও সুযোগ কাজে লাগাতে ব্যর্থ মুশফিক ও মাহমুদউল্লাহ। ৯৩ রানে পাঁচ উইকেট হারিয়ে ধুঁকতে থাকা দলকে আবারও ভরসা জোগালেন মিঠুন। ষষ্ঠ উইকেটে সাব্বিরকে নিয়ে ৭৫ রান যোগ করার পথে নিজের চতুর্থ ওয়ানডে ফিফটি তুলে নেন মিঠুন।

শেষপর্যন্ত ৬৯ বলে ৫৭ রানে থামেন তিনি। সাব্বির করেন ৬৫ বলে ৪৩। লোয়ার অর্ডারের একটু লড়াই ও অতিরিক্ত খাত থেকে আসা ২৩ রানের সুবাদে শেষ পর্যন্ত বাংলাদেশ ২২৬ রানের পুঁজি পেলেও ম্যাচে তার কোনো ছাপ পড়েনি। ম্যাচ শেষে মাশরাফির উপলব্ধি, ‘২২০-২৩০ রানের পুঁজি নিয়ে নিউজিল্যান্ডের মাটিতে নিউজিল্যান্ডকে চোখ রাঙানোও সম্ভব নয়।’

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×