বড় দল নির্বাচনে অংশগ্রহণ না করা হতাশাব্যঞ্জক

সিইসি

  যুগান্তর রিপোর্ট ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

বড় দল নির্বাচনে অংশগ্রহণ না করা হতাশাব্যঞ্জক
প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কেএম নুরুল হুদা। ফাইল ছবি

আসন্ন উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে বড় বড় রাজনৈতিক দলের অংশগ্রহণ না করাকে হতাশাব্যঞ্জক বলে উল্লেখ করেছেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কেএম নুরুল হুদা। রাজধানীর আগারগাঁওয়ে রোববার নির্বাচনী প্রশিক্ষণ ভবনে উপজেলা নির্বাচনের প্রশিক্ষকদের প্রশিক্ষণ কর্মসূচি উদ্বোধনকালে তিনি বলেন, অনেকগুলো বড় বড় রাজনৈতিক দল এ নির্বাচনে অংশগ্রহণ করবে না। এটা আমাদের জন্য অবশ্যই একটা হতাশাব্যঞ্জক খবর। আমরা সব সময় চাই, সব সময় চেয়েছি, নির্বাচন প্রতিযোগিতামূলক হবে। নির্বাচন অংশগ্রহণমূলক হবে এবং সব দল নির্বাচনে অংশগ্রহণ করবে। এ সময় তিনি নির্বাচন কর্মকর্তারা দায়িত্ব পালনে গাফলতি করলে তাদের বিরুদ্ধে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেয়ার হুশিয়ারি দেন।

এবারের উপজেলা নির্বাচনে বিএনপিসহ বেশ কযেকটি রাজনৈতিক দল প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছে না। একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অনিয়মের অভিযোগ তুলে উপজেলা নির্বাচনে অংশ নিচ্ছে না এসব দল।

সিইসি বলেন, সার্বিকভাবে অংশগ্রহণমূলক না হলেও আমি বিশ্বাস করি এ নির্বাচন প্রতিযোগিতামূলক হবে। কারণ এ স্থানীয় নির্বাচনে দলের মধ্যে অথবা বাইরে অনেক যোগ্য লোক থাকেন যারা নির্বাচনে প্রতিযোগিতা করেন। সুতরাং প্রতিযোগিতামূলক নির্বাচন হবে। এর মধ্যে কোনো সন্দেহ নেই।

নির্বাচন কর্মকর্তাদের সতর্ক করে সিইসি বলেন, আপনাদের কোনো আচরণের কারণে যদি নির্বাচন ব্যাহত হয়, বিঘ্নিত হয়, সেটা কিন্তু আমরা কঠোরভাবে দমন করব। আপনারা শুধু আইন-কানুনের ভিত্তিতে নিরপেক্ষভাবে নির্বাচন করবেন। আপনাদের কোনো দল নেই, মত নেই, রাজনৈতিক দলকে কোনো পরামর্শ দেয়ার সুযোগ নেই। সাংবিধানিক, আইন-কানুনের যতটুকু দায়িত্ব আছে তার বাইরে আর কোনো চাওয়া নেই।

সিইসি বলেন, অনেক সময় জেনে বা না জেনে অনেকে আচরণবিধি লঙ্ঘন করে থাকেন। অনেক সময় দেখা যায় রাজনৈতিক দল বা প্রার্থীর জানার বাইরে অথবা তার সম্মতির বাইরে উৎসাহী লোক বা কোনো সমর্থক এগুলো (আচরণবিধি লঙ্ঘন) করে থাকেন। এগুলোর ব্যাপারেও আপনাদের সতর্ক থাকতে হবে। পোলিং এজেন্টদের বিষয়ে কেএম নুরুল হুদা বলেন, নির্বাচনে প্রার্থীর পোলিং এজেন্টরা গুরুত্বপূর্ণ। তাদের আশ্বস্ত করবেন যে তারা কেন্দ্রে দায়িত্ব পালনের পর রেজাল্ট সিট নিয়ে নিরাপদে ফিরে যেতে পারবেন। তারা যাতে নিরাপদে কেন্দ্রে আসতে পারেন সে ব্যবস্থা করবেন। তবেই এজেন্ট দেবে প্রার্থী। অনেক সময় অনেক দুর্বল প্রার্থী এজেন্ট দিতেও পারেন না। আপনাদের কাজ হল এজেন্ট দিলে তাদের নিরাপত্তা দেয়া। প্রশিক্ষণ অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন নির্বাচন প্রশিক্ষণ ইন্সটিটিউটের মহাপরিচালক মোস্তফা ফারুক।

ঘটনাপ্রবাহ : উপজেলা নির্বাচন ২০১৯

আরও
আরও পড়ুন
--
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×