অমর একুশে গ্রন্থমেলা ২০১৯

আরও অর্থ বরাদ্দের তাগিদ

  হক ফারুক আহমেদ ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

আরও অর্থ বরাদ্দের তাগিদ
জাতীয় যাদুঘরে আনিসুজ্জামান অনূদিত গাব্রিয়েল গার্সিয়া মার্কেসের ‘নিঃসঙ্গতার একশ বছর’ অনুবাদগ্রন্থের প্রকাশনা উৎসবের অতিথিরা। ছবি : যুগান্তর

অমর একুশে গ্রন্থমেলা আরও নান্দনিক ও সুবিধাসম্পন্ন করতে আরও বেশি অর্থ বরাদ্দ চাইল বাংলা একাডেমি। সোমবার এক সংবাদ সম্মেলনে আরও তিন কোটি টাকা বরাদ্দ বাড়ানোর দাবি জানান সংশ্লিষ্টরা।

মেলা পরিচালনা কমিটির সদস্য সচিব জালাল আহমেদ বলেন, গত বছর সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয় থেকে ১ কোটি টাকা দেয়া হয়েছিল। এ বছর বাংলা একাডেমির পক্ষ থেকে ২ কোটি টাকা মেলার পরিচালনা বাবদ চাওয়া হয়েছে। এ সময় তিনি মেলার স্থায়ী অবকাঠামো নির্মাণের বিষয়েও গুরুত্বারোপ করেন।

বাংলা একাডেমির সচিব মো. আনোয়ার হোসেন বলেন, বইমেলাকে আরও সুন্দরভাবে পরিচালনার জন্য, সুবিধাদি বাড়ানোর জন্য ৩-৪ কোটি টাকা প্রয়োজন। সরকার এ ব্যাপারে এগিয়ে এলে আরও সুন্দর মেলা উপহার দেয়া সম্ভব।

একাডেমির মহাপরিচালক হাবীবুল্লাহ সিরাজী বলেন, প্রতিবছর মেলার কলেবর বাড়ছে। বাড়ছে আয়োজনের ব্যাপ্তি। মেলার জন্য একটি স্থায়ী মাঠের প্রয়োজন। যার জন্য সোহরাওয়ার্দী উদ্যানই সেরা। তিনি বলেন, প্রতিবারই মেলাকে সামনে রেখে আমাদের নানা অবকাঠামো নির্মাণ করতে হয়, যা বেশ খরচসাপেক্ষও। এ জন্য স্থায়ী কিছু অবকাঠামো মেলার জন্য প্রয়োজন। সে সঙ্গে এর সীমানাও বাড়ানো প্রয়োজন।

সংবাদ সম্মেলনে আরও জানানো হয়, এবার মেলার সমাপনী আয়োজনে ভিন্নতা থাকছে। ২৮ ফেব্রুয়ারি রাত ৯টা ১০ মিনিটে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও ফানুস উড়িয়ে মেলা উদ্যাপন করা হবে। সে সঙ্গে লেজার শোয়ের মাধ্যমে এবারের মেলার প্রতিপাদ্য ‘বিজয় : ৫২ থেকে ৭১ নবপর্যায়’র বিষয়টি সবার সামনে উপস্থাপন করা হবে।

‘নিঃসঙ্গতার একশ বছর’র প্রকাশনা উৎসব : কলম্বিয়ায় জন্ম নেয়া মেক্সিকান লেখক গাব্রিয়েল গার্সিয়া মার্কেস। বিশ্বখ্যাত এ লেখকের উত্তরাধিকারীদের অনুমতিপ্রাপ্ত একমাত্র বাংলা অনুবাদ ‘নিঃসঙ্গতার একশ বছর’ বইটির প্রকাশনা উৎসব অনুষ্ঠিত হয়েছে জাতীয় জাদুঘরের সিনেপ্লেক্স হলে।

অনুবাদ করেছেন আনিসুজ্জামান। উৎসবে প্রধান অতিথি ছিলেন সাবেক সংস্কৃতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর এমপি। সভাপতিত্ব করেন কথাশিল্পী-শিক্ষাবিদ অধ্যাপক সৈয়দ মনজুরুল ইসলাম।

প্রধান আলোচক খ্যাতিমান কথাশিল্পী জ্যোতিপ্রকাশ দত্ত। স্বাগত বক্তব্য দেন অন্যপ্রকাশের প্রধান নির্বাহী মাজহারুল ইসলাম। আলোচনা করেন কলম্বিয়ার জাতীয় পুরস্কারে সম্মানিত তরুণ প্রজন্মের কথাশিল্পী পাউল ব্রিতো, প্রাবন্ধিক-অনুবাদক রাজু আলাউদ্দিন ও আনিসুজ্জামান।

মার্কেস’র প্রবাদপ্রতিম উপন্যাস হল ‘নিঃসঙ্গতার একশ বছর’ (সিয়েন আনিওস দে সোলেদাদ)। এটি মূলত বুয়েন্দিয়া পরিবারের ছয় প্রজন্মের কাহিনী, পাশাপাশি এটি মাকন্দো নামের এক কাল্পনিক গ্রামেরও কাহিনী, যে গ্রামের পত্তন হয় বুয়েন্দিয়া পরিবারের প্রধান হোসে অরেলিয়ানো বুয়েন্দিয়ার হাতে।

এ উপন্যাসের কাহিনী প্রোথিত থাকে বাস্তবে কিন্তু এর ওপর কল্পনার ফানুস উড়িয়ে দেন মার্কেস। এখানে তিনি জাদু বাস্তবতার এমন শৈলী অবলম্বন করেছেন-যেখানে দিনে দুপুরে চাদরে জড়িয়ে বাতাসে উড়ে যায় এক নারী, যে কি না সৃষ্টিছাড়া সৌন্দর্যের অধিকারী, যেখানে একটানা চার বছর এগারো মাস দুই দিন ধরে অনবরত ঝরে বৃষ্টি, জন্ম নেয় শুয়ারের লেজসহ শিশু। অথচ পাঠকের কাছে কখনও এসব অবাস্তব মনে হয় না। বরং এটাই হওয়া উচিত বলে মনে হয়।

১৯৬৭ সালে প্রকাশিত এ গ্রন্থটি ২০১৪ সাল পর্যন্ত ৩৭টি ভাষায় অনূদিত হয়ে প্রায় ৫ কোটি কপি বিক্রি হয়। ২০১৭ সালে মূল স্প্যানিশ ভাষা থেকে বাংলায় এটি অনুবাদ করেন আনিসুজ্জামান। তবে পূর্ণাঙ্গভাবে বইটি প্রকাশ হল মেলায় অন্যপ্রকাশ থেকে।

লেখক বলছি... মঞ্চ : নিজেদের সাম্প্রতিক বই নিয়ে পাঠকের মুখোমুখি হন পাঁচ কবি-সাহিত্যিক। এরা হলেন বিশ্বজিৎ ঘোষ, এম. আবদুল আলীম, বিমল গুহ, জেসমিন মুন্নী ও ড. চৌধুরী শহীদ কাদের।

নতুন বই : একাডেমির জনসংযোগ উপবিভাগ থেকে প্রাপ্ত তথ্যানুযায়ী, রোববার মেলায় ৯১টি নতুন বই এসেছে। এর মধ্যে গল্প ১৬, উপন্যাস ৯, প্রবন্ধ ৭, কবিতা ১৮, গবেষণা ২, ছড়া ১, শিশুসাহিত্য ১৬, জীবনী ৬, রচনাবলি ১, মুক্তিযুদ্ধ ১, ভ্রমণ ২, ইতিহাস ২, রাজনীতি ১, রম্য/ধাঁধা ২, ধর্মীয় ১, অনুবাদ ১ এবং অন্যান্য বিষয়ের ওপরে আরও ৫টি নতুন বই এসেছে।

মেলামঞ্চ : রোববার গ্রন্থমেলার মূলমঞ্চে অনুষ্ঠিত হয় ‘বলধা গার্ডেন : আমাদের উদ্যান-ঐতিহ্য’ শীর্ষক আলোচনা অনুষ্ঠান। প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন মোকারম হোসেন। আলোচনায় অংশ নেন হাশেম সূফী, মোহাম্মদ আলী খান ও নূরুন্নাহার মুক্তা। সভাপতিত্ব করেন বিপ্রদাশ বড়ুয়া। সন্ধ্যায় ছড়া পাঠ করেন ছড়াকার মাহমুদউল্লাহ, রফিকুল হক, আলী ইমাম, ফারুক নওয়াজ, লুৎফর রহমান রিটন, আমীরুল ইসলাম, আলম তালুকদার, খালেক বিন জয়েনউদ্দিন, রহীম শাহ, ফারুক হোসেন, আনজীর লিটন ও সুজন বড়–য়া। আবৃত্তি পরিবেশন করেন আবৃত্তিশিল্পী ফয়জুল্লাহ সাঈদ ও সৈয়দ শহীদুল ইসলাম। সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে ছিল আনন্দন ও উদীচী শিল্পীগোষ্ঠীর পরিবেশনা।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×