প্রেস ব্রিফিংয়ে সিইসি

পছন্দের প্রার্থীকে ভোট দিতে কেন্দ্রে যাওয়ার আহ্বান

  যুগান্তর রিপোর্ট ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

সিইসি কেএম নুরুল হুদা
সিইসি কেএম নুরুল হুদা। ছবি-যুগান্তর

ঢাকা উত্তর সিটির মেয়র পদে উপনির্বাচন এবং দুই সিটির সম্প্রসারিত ৩৬টি ওয়ার্ড নির্বাচনে পছন্দের প্রার্থীকে ভোট দিতে ভোটারদের কেন্দ্রে যাওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন সিইসি কেএম নুরুল হুদা।

ঢাকার দুই সিটি নির্বাচনের আগের দিন বুধবার এক প্রেস ব্রিফিংয়ে প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) এ কথা বলেন।

সিটি নির্বাচন নিয়ে রাজনৈতিক দল ও সাধারণ মানুষের আগ্রহ কম- এমন প্রশ্নের জবাবে সিইসি বলেন, বিভিন্ন কারণে তারা (অনেক রাজনৈতিক দল) অংশ নেয়নি। একটা কারণ হল- মাত্র এক বছর মেয়াদে তারা নির্বাচিত হবেন। এরপর আবার নির্বাচন হবে। সে কারণে ভোটার ও প্রার্থীদের আগ্রহ কম থাকতে পারে। আমরা তো সবাইকে আহ্বান করেছিলাম, যেহেতু তারা আসেনি, আমাদের কিছু করার নেই।

বিএনপি নির্বাচনে অংশ না নেয়ার বিষয়ে তিনি বলেন, আমাদের কোনো ব্যর্থতা নেই। আমাদের কোনো দুর্বলতা নেই। সঠিকভাবে নির্বাচন করতে যাবতীয় প্রস্তুতি নিয়েছি। তারা রাজনৈতিক মাঠে না গেলে, নির্বাচনে অংশগ্রহণ না করলে, এটা তো রাজনৈতিক সিদ্ধান্ত। এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, এটা আমাদের প্রতি অনাস্থা নয়। সব দলগুলো অংশগ্রহণ করলে আমরা খুশি হতাম, না করাটা আমাদের জন্য একটা অস্বস্তিকর অবস্থা।

তিনি বলেন, দুই সিটিতে ভোট গ্রহণ উপলক্ষে সাধারণ ছুটি ঘোষণা করা হয়েছে। তবে প্রধান সড়কগুলোতে প্রয়োজনীয় গাড়ি চলাচল করতে পারবে। তবে অহেতুক ঘোরাফিরা করতে পারবে না।

এ প্রসঙ্গে তিনি আরও বলেন, ঢাকা শহরে অনেক ইমার্জেন্সি বিষয় আছে। কেউ এয়ারপোর্টে যাবেন, কেউ হাসপাতালে যাবেন, পণ্য আমদানি-রফতানি হবে- এ রকম বিষয়গুলো বিবেচনা করে পুলিশকে নির্দেশনা দেয়া আছে, যাতে এভাবে নিয়ন্ত্রিত হয়। ব্যাপকভাবে সব যান বন্ধ করে দেয়া হয়নি।

বাস চলতে পারবে কিনা- এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, মেইন রোডে চলবে।

ব্যক্তিগত গাড়ি চলাচলের বিষয়ে তিনি বলেন, প্রাইভেট ভেহিক্যাল নির্ধারিত কোনো কাজ ছাড়া চলাচল করতে পারবে না। ঘোরাফেরা করার জন্য তো আর চলবে না।

এ সময় সিইসির পাশে থাকা ইসি সচিব হেলালুদ্দীন আহমেদ বলেন, প্রধান প্রধান সড়কগুলোতে যানবাহন চলবে। আর জরুরি প্রয়োজনে যারা যান (প্রাইভেট কার ও মোটরসাইকেল) ব্যবহার করবে, তারা আমাদের কাছ থেকে স্টিকার সংগ্রহ করবে। এছাড়া পুলিশকে যদি কেউ তার প্রয়োজনের কথা বলে, তারাও কিন্তু তাদের অনুমতি দেবে। পরীক্ষার্থীরা তাদের প্রবেশপত্র দেখিয়ে যান ব্যবহার করতে পারবে।

সাধারণ ছুটি ঘোষণার বিষয়ে ইসি সচিব বলেন, ঢাকা শহর পুরোটাতেই ছুটি থাকবে। স্কুল-কলেজ ও সরকারি অফিস-আদালত বন্ধ থাকবে। জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় এই বিজ্ঞপ্তি জারি করেছে।

নির্বাচনে অনিয়ম হলে প্রিসাইডিং কর্মকর্তা ভোট গ্রহণ বন্ধ করার ক্ষমতা রাখে জানিয়ে কেএম নুরুল হুদা বলেন, প্রিসাইডিং কর্মকর্তা যদি মনে করেন নির্বাচন পরিস্থিতি তার নিয়ন্ত্রণে নেই, তখন তিনি নির্বাচন বন্ধ করে দিয়ে রিটার্নিং কর্মকর্তার কাছে রিপোর্ট দেবেন। রিটার্নিং কর্মকর্তা ওই কেন্দ্র বন্ধ করে আমাদের (ইসি) জানাবেন। এ ক্ষমতা রিটার্নিং কর্মকর্তার আছে। আর যদি সামগ্রিকভাবে কোনো এলাকার ব্যাপকভাবে নিয়ন্ত্রণবহির্ভূত কোনো কাজ হয় তখন রিটার্নিং কর্মকর্তা ওই বিষয়ে ইসির কাছে অনুমতি চাইবে। নির্বাচন কমিশন যদি মনে করে তাৎক্ষণিকভাবে তা বন্ধ করা দরকার, তাহলে ওই এলাকার ৪-৫ ওয়ার্ড এমনকি পুরো এলাকার নির্বাচন বন্ধ করার ক্ষমতা রাখে।

অনিয়ম হলে ভোট গ্রহণ স্থগিত করা হবে জানিয়ে সিইসি বলেন, আমরা চাই একটি সুষ্ঠু, সুন্দর ও আইনানুগ নির্বাচন। ভোট গ্রহণের সঙ্গে সম্পৃক্ত যে কোনো কর্মকর্তা বা আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর কোনো সদস্যের বিরুদ্ধে পক্ষপাতিত্বের অভিযোগ প্রমাণিত হলে তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে। তিনি বলেন, কোনো ধরনের অনিয়মের অভিযোগ পেলে তাৎক্ষণিকভাবে সেই কেন্দ্রের ভোট গ্রহণ স্থগিত করা হবে। তদন্ত সাপেক্ষে সংশ্লিষ্ট দায়ী ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে কঠোর আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×