কেমিক্যাল অপসারণ অভিযান

আরও ১৫ ভবনের সেবা সংযোগ বিচ্ছিন্ন

আরও দু’জনের মৃতদেহ হস্তান্তর

  যুগান্তর রিপোর্ট ০৮ মার্চ ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

আরও ১৫ ভবনের সেবা সংযোগ বিচ্ছিন্ন

পুরান ঢাকার কেমিক্যাল অপসারণ অভিযানে বৃহস্পতিবার ১৫টি ভবনের (হোল্ডিং) সেবা সংযোগ বিচ্ছিন্ন করেছে টাস্কফোর্স।

একই সঙ্গে অতি দাহ্য কেমিক্যাল কারখানা সরিয়ে নিতে ছয়টি প্রতিষ্ঠানকে সতর্ক করা হয়েছে। এদিকে, চকবাজারের চুড়িহাট্টায় অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় আরও দু’জনের মৃতদেহ বৃহস্পতিবার হস্তান্তর করা হয়েছে।

সপ্তম দিনের অভিযানে পুরান ঢাকার হোসেনি দালান, নাজিমউদ্দিন রোড, মালিটোলা, মোগলটুলি, হাজারীবাগ, সিদ্দিক বাজার, ইসলামপুরসহ আশপাশের এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন (ডিএসসিসি) নেতৃত্বাধীন টাস্কফোর্স। বৃহস্পতিবার পর্যন্ত টাস্কফোর্সের অভিযানে ১০৯টি হোল্ডিংয়ের সেবা সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা হয়েছে।

এ প্রসঙ্গে ডিএসসিসির জনসংযোগ কর্মকর্তা উত্তম কুমার রায় যুগান্তরকে বলেন, টাস্কফোর্সের বৃহস্পতিবারের অভিযানে কেউ কোনো বাধা দেয়নি। এ অভিযান ৩১ মার্চ পর্যন্ত চলবে।

পুরান ঢাকার ২৭ নম্বর ওয়ার্ডের হোসেনি দালান এবং নাজিমউদ্দিন রোডে অভিযানে সাতটি বাসার সেবা সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা হয়। একই সঙ্গে ছয়টি বাসার মালিককে কেমিক্যাল কারখানা সরিয়ে নেয়ার ব্যাপারে সতর্ক করে দেয়া হয়।

সংযোগ বিচ্ছিনকারী হোল্ডিংগুলোর মধ্যে রয়েছে- নাজিমউদ্দিন রোডের ৯৮/১, ৯৮/২, ৯৮/৩, ৯৮/৪, ৯৮/১/সি, ৯৮/১/এ এবং হোসেনি দালান এলাকার ৯৮/২ নম্বর হোল্ডিং।

টাস্কফোর্সের ভ্রাম্যমাণ আদালত পুরান ঢাকার মালিটোলা ও মোগলটুলি এলাকার ফোম, ফ্যাব্রিক্স এবং রঙের ছয়টি গোডাউন পরিদর্শন করে। হোল্ডিংগুলো হল- ৩০/৩১, ৬৯/১, ৭৯, ৭৪/১, ৪৬ এবং মালিটোলার ২৬ নম্বর হোল্ডিং। এসব হোল্ডিং মালিকদের কেমিক্যাল গুদাম সরিয়ে নিতে বিভিন্ন মেয়াদে সময় দেয়া হয়েছে। এছাড়া কারখানাগুলোতে জরুরি ভিত্তিতে ফায়ার ডিসটিংগুইসার লাগানোর জন্য নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযানে কালুনগর, ভাগলপুর, নিলাম্বর সাহা রোড এবং হাজারীবাগ রোড এলাকায় অভিযানে পাঁচটি কারখানার সেবা সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা হয়েছে।

হোল্ডিংগুলোর মধ্যে রয়েছে- কালুনগরের ৩৪/বি, ৩৪/এ/২, হাজারীবাগের ১৮০ নম্বর হোল্ডিং ভাগলপুরের ১৩৫/১ এবং নিলাম্বর সাহা রোডের ৪০/৪০/১ নম্বর হোল্ডিং।

ডিএসসিসির ৩৪ নম্বর ওয়ার্ডের নর্থ সাউথ রোড এবং সিদ্দিক বাজার এলাকায় ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযানে তিনটি গোডাউনের সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা হয়। হোল্ডিংগুলোর মধ্যে রয়েছে- ৪৫ সিদ্দিক বাজার, নর্থ সাউথ রোডের ১২ নম্বর হোল্ডিংয়ের ২ নম্বর গোডাউন।

ডিএসসিসির ৩৭ নম্বর ওয়ার্ডের ইসলামপুর, ওয়াইজঘাট এবং নারায়ণ লেনে অভিযান চালিয়ে পাঁচটি কারখানার মালিককে কারখানা সরিয়ে নেয়ার সময় বেঁধে দেয়া হয়েছে। নির্দিষ্ট সময়ে কারখানা সরিয়ে না দিলে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের হুশিয়ারি দেয়া হয়েছে।

আরও দু’জনের মৃতদেহ হস্তান্তর : চকবাজারের চুড়িহাট্টায় ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের ২ সপ্তাহ পর ডিএনএ পরীক্ষায় পরিচয় শনাক্ত আরও দু’জনের মরদেহ স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার ইব্রাহিম ও নুরুল হক নামের দু’জনের মরদেহ তারা ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গ থেকে স্বজনদের কাছে বুঝিয়ে দেয়া হয়েছে। চকবাজার থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মো. মুরাদুল ইসলাম জানান, আরও দু’জনের মৃতদেহ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

পেশায় রিকশাচালক ইব্রাহিমের গ্রামের বাড়ি শরীয়তপুরের ঘোসাইহাটে। স্ত্রী রোকসানা লাশ বুঝে নেন। আর তরকারি বিক্রেতা নুরুল হকের বাড়ি কিশোরগঞ্জে। তার মরদেহ নেন শ্বশুর ফজলুর রহমান। মুরাদুল ইসলাম আরও বলেন, দুলাল কর্মকার (৪০) নামে আরও একজনের মরদেহ ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে রয়েছে। তার বাড়ি রাজশাহীতে। ঢাকার কামরাঙ্গীরচরে তিনি থাকতেন। স্বজনদের লাশ বুঝিয়ে দেয়া হবে।

তরকারি বিক্রেতা নুরুল হকের শ্বশুর ফজলুর রহমান বলেন, চুড়িহাট্টা মসজিদের সামনে তরকারি বিক্রি করতেন তার জামাতা। ঢাকার ইসলামবাগে তিনি থাকতেন। তার স্ত্রী রহিমা আক্তার আর এক বছরের ছেলে আলামিন কিশোরগঞ্জে গ্রামের বাড়িতে থাকে।

২০ ফেব্রুয়ারি রাতে চকবাজারের চুড়িহাট্টা মোড়ে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের পর ৬৭ জনের লাশ উদ্ধার করে ফায়ার সার্ভিস। পরে হাসপাতালে মারা যান আরও চারজন। অগ্নিকাণ্ডের পর ২ দিনে ৪৮ জনের লাশ শনাক্ত করে স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হলেও বাকিদের পোড়া লাশ চেনার অবস্থা না থাকায় ডিএনএ পরীক্ষার ব্যবস্থা করা হয়।

পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ (সিআইডি) যে ১৯টি লাশের ডিএনএ নমুনা পরীক্ষা করেছে সেগুলোর মধ্যে ১১ জনের পরিচয় বুধবার পর্যন্ত জানা সম্ভব হয়েছে। এ ১১ জনের মধ্যে আটজনের লাশ বুধবার স্বজনদের কাছে বুঝিয়ে দেয়া হয়। বাকি তিনজনের মধ্যে দু’জনের মরদেহ বৃহস্পতিবার হস্তান্তর করা হয়।

ঘটনাপ্রবাহ : চকবাজার আগুনে মৃত্যুর মিছিল

আরও
আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×