মুসল্লিদের জন্য উন্মুক্ত ক্রাইস্টচার্চের দুই মসজিদ

জাসিন্দাকে নোবেল শান্তি পুরস্কার দেয়ার দাবি

  যুগান্তর ডেস্ক ২৪ মার্চ ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

মসজিদ

নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চে হামলার শিকার দুটি মসজিদই মুসল্লিদের জন্য খুলে দেয়া হয়েছে। হামলার ৯ দিন পর প্রথমবারের জন্য শনিবার সকালে মুষ্টিমেয় কয়েকজনকে মসজিদে প্রবেশের অনুমতি দেয়া হয়।

খুলে দেয়ার পর মসজিদ দুইটিতে নামাজ পড়েন স্থানীয় অধিবাসীরা। তাদের মধ্যে হামলায় বেঁচে যাওয়া ব্যক্তিরাও ছিলেন। নামাজের সময় সশস্ত্র পুলিশ মসজিদের বাইরে পাহারা দেয়। আগের দিনের মতো এদিনও নিহতদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে ক্রাইস্টচার্চে জড়ো হন স্থানীয় অধিবাসীরা। ‘মার্চ ফর লাভ’ নামে র‌্যালিতে অংশ নেন প্রায় ৩ হাজার মানুষ।

দুটি মসজিদে সন্ত্রাসী হামলার ঘটনায় অর্ধশত মুসল্লি নিহত হওয়ার পর নিউজিল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী জাসিন্দা আরদার্নের ভূমিকার প্রশংসা এখন বিশ্বজুড়ে। এমন প্রধানমন্ত্রী প্রত্যেক দেশেই থাকা উচিৎ বলেও মনে করছেন অনেকেই। এবার তাকে নোবেল শান্তি পুরস্কার দেয়ার দাবি উঠেছে। এজন্য অনলাইনে এক পিটিশনে ইতিমধ্যে স্বাক্ষর করেছেন হাজারও মানুষ। খবর রয়টার্স ও সিএনএনের।

১৫ মার্চ ক্রাইস্টচার্চের দুটি মসজিদ আল নূর ও নিকটবর্তী লিনউডে জুমার নামাজের সময় সন্ত্রাসী হামলা চালায় শ্বেতাঙ্গ সন্ত্রাসী অস্ট্রেলীয় নাগরিক ব্রেনটন টেরেন্ট। নিউজিল্যান্ডের ইতিহাসে ভয়াবহতম এ হামলায় নিহত হন ৫০ মুসল্লি। আহত হন অন্তত ৫০ জন। হামলার পর থেকে তদন্তের স্বার্থে মসজিদ দুটিকে বন্ধ রাখা হয়। এক সপ্তাহ পর শুক্রবার মসজিদ দুটির বাইরে জুমার নামাজ অনুষ্ঠিত হয়। শনিবার সকালে মসজিদ দুটি আনুষ্ঠানিকভাবে খুলে দেয়া হয়। এ সময় স্থানীয় মুসলিম নেতা ও মুসল্লিদের সঙ্গে মসজিদে প্রবেশ করেন সরকারি প্রতিনিধিরা। মূল দরজায় যাওয়ার আগে কর্মকর্তারা সংক্ষিপ্ত বক্তব্য প্রদান করেন। এ মসজিদেই তিন বছরের ছোট্ট ছেলে মুসাদ ইব্রাহিমকে হারিয়েছেন বাবা অ্যাডেন ডিরিয়ে। শনিবার বন্ধুদের সঙ্গে তিনিও আল নূর মসজিদে নামাজ পড়তে আসেন। নামাজ শেষে তিনি বলেন, ‘আমি খুব খুশি, আল্লাহ সব সময় আমাদের প্রতি দয়ালু।’ হামলার সময় আল নূর মসজিদে থাকা আশিফ শাইখ নামে একজন শনিবার নামাজ পড়তে আসেন। রয়টার্সকে তিনি বলেন, ‘আমরা এখানে প্রার্থনা করতে আসি, এখানে সবার সঙ্গে দেখা হয়, আমরা আবারও আসব।’ দুপুর ১টার দিকে নামাজ পড়তে মসজিদে প্রবেশ করেন ইমরান শেখ। হামলার পর অকল্যান্ড থেকে এসেছেন তিনি। তার এক আত্মীয় ৬২ বছরের আশরাফ আলী নিহত ৫০ জনের একজন। মৃত্যুর আগে আশরাফ গত ২০ বছর ধরে ক্রাইস্টচার্চে বসবাস করছিলেন। ইমরান দরজা দিয়ে মসজিদে প্রবেশ করেন এবং দেখতে পান, দেয়ালে দেয়ালে নতুন সাদা রঙ করা হয়েছে। দেয়ালে মুসল্লিদের নীরবতা পালনের আহ্বান জানানো হয়েছে। ভয়াবহ হামলার চিহ্ন বহনকারী কার্পেট সরিয়ে নেয়া হয়েছে। বসানো হয়েছে নতুন কার্পেট। ইমরান নামাজ আদায় করেন। তিনি বলেন, ‘এখানে যা ঘটেছে তা আমি এখন অনুভব করতে পারছি।’ নামাজ শেষে ইমরান আরও বলেন, ‘এটা ছিল দারুণ। আমি এখন ভারমুক্ত।’ নিউজিল্যান্ড হেরাল্ডের এক প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে, আরদার্নকে নোবেল শন্তি পুরস্কার দেয়ার জন্য দুটি আবেদন জমা পড়েছে ভিন্ন দুটি ওয়েবসাইটে। তার একটি হলো ‘চেঞ্জ.ওআরজি’ অন্যটি ফ্রান্সভিত্তিক ‘আভাজ.ওআরজি’। ইতিমধ্যে নিউজিল্যান্ডভিত্তিক ওয়েবসাইটটিতে তিন হাজারেরও বেশি স্বাক্ষর জমা পড়েছে। ফ্রান্সভিত্তিক অন্য ওয়েবসাইটটিতে আরদার্নকে নোবেল শান্তি পুরস্কারের দাবি তুলে স্বাক্ষর করেছেন এক হাজারের বেশি মানুষ। ফ্রান্সভিত্তিক ওয়েবসাইটটিতে বলা হচ্ছে, ‘ক্রাইস্টচার্চের মর্মান্তিক সেই হামলার পরিপ্রেক্ষিতে পর্যাপ্ত পদক্ষেপ, সমানুভূতি, ব্যথিত ও শান্তিপূর্ণ ভূমিকার জন্য আমরা চাই তাকে (জাসিন্দা) আগামী নোবেল শান্তি পুরস্কারের জন্য মনোনীত করা হোক।’ ধারণা করা হচ্ছে, ওই ওয়েবসাইটে প্রথম স্বাক্ষরকারী ব্যক্তি হলেন ফ্রান্সের কবি ড. খাল তোরাবুলি।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×