কালিয়াকৈরের বন ক্ষতিসাধন মামলা

অন্যের সাজা খাটছে নিরীহ জাহাঙ্গীর

  কালিয়াকৈর (গাজীপুর) প্রতিনিধি ০১ এপ্রিল ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

অন্যের সাজা খাটছে নিরীহ জাহাঙ্গীর
জাহাঙ্গীর আলম। ছবি: সংগৃহীত

অর্থলোভী দুইজনের যোগসাজশে সাজাপ্রাপ্ত আসামি ওফাজ উদ্দিনের বদলি হিসেবে জেল খাটছেন নিরীহ জাহাঙ্গীর আলম। বন ক্ষতিসাধন মামলায় ওফাজের দুই বছরের সশ্রম কারাদণ্ড হলে তার বদলি হিসেবে সাজা খাটার জন্য জাহাঙ্গীরকে জড়ানো হয়। দুইজনের যোগসাজশে জাহাঙ্গীরকে জেল খাটানো হচ্ছে। বর্তমানে তিনি কাশিমপুর কেন্দ্রীয় কারাগারের হাই সিকিউরিটি সেলের সৈকত ভবনে রয়েছেন।

সাজাপ্রাপ্ত ওফাজ উপজেলার হিজলহাটি কাপাসিয়াচালা গ্রামের কছিমউদ্দিনের ছেলে। চন্দ্রা বন বিটের বিশ্বাসপাড়া এলাকায় তিনি বসবাস করেন। অপরদিকে জাহাঙ্গীর উপজেলার খোলাপাড়া গ্রামের আতর আলীর ছেলে। সূত্র জানায়, ওফাজের পরিবর্তে সাজাপ্রাপ্ত আসামি হিসেবে জাহাঙ্গীরকে ৬ জানুয়ারি গাজীপুর জেলখানায় পাঠানো হয়। এরপর ২৬ জানুয়ারি তাকে কাশিমপুর কারাগারে নেয়া হয়।

কালিয়াকৈর উপজেলার আটাবহ ইউনিয়নের হিজলহাটি এলাকায় বনের ক্ষতিসাধন করায় ওফাজের বিরুদ্ধে ২০০৬ সালে বন বিভাগ মামলা করে। এ মামলায় ২০১৮ সালে ৭ আগস্ট আদালত এক ধারায় এক বছর এবং অন্য ধারায় ওফাজকে দুই বছরের সশ্রম কারাদণ্ড দেন। তার অনুপস্থিতিতে রায় দেয়া হয়। দুই মাস আগে স্থানীয় সুলতান মিয়া এবং মেছের আলীর যোগসাজশে ওফাজ খোলাপাড়া গ্রামের আতর আলীর মাদকাসক্ত ছেলে জাহাঙ্গীরকে মোটা অঙ্কের টাকার বিনিময়ে বদলি সাজা খাটার জন্য চুক্তি করে। চুক্তি অনুযায়ী ওফাজের ছদ্মবেশে জাহাঙ্গীরকে আদালতে আত্মসমর্পণ করানো হলে আদালত তাকে জেলহাজতে পাঠান। কিন্তু টাকা ভাগাভাগি নিয়ে সুলতান ও মেছেরের দ্বন্দ্বে বিষয়টি প্রকাশ পায়।

জাহাঙ্গীরের মা জাহানারা বেগম জানান, আড়াই মাস ধরে তার ছেলে বাড়িতে আসে না। নানাজনের কাছে তিনি ছেলের জেল খাটার কথা শুনছেন। স্থানীয় আবু ছাইদ জানায়, ওফাজকে মামলা থেকে অব্যাহতি দেয়ার কথা বলে সুলতান ও মেছের মোটা অঙ্কের টাকা নিয়েছেন বলে তিনি শুনেছেন। তবে অভিযোগ অস্বীকার করে মেছের জানান, এ ঘটনার সঙ্গে তিনি জড়িত নন। সুলতান টাকার বিনিময়ে ওফাজের বদলি হিসেবে জাহাঙ্গীরকে আদালতে আত্মসমর্পণ করায়। ওফাজের মোবাইল ফোন বন্ধ থাকায় তার মতামত নেয়া যায়নি। এ ব্যাপারে চন্দ্রা বন বিটের কর্মকর্তা মনজুুরুল ইসলাম বলেন, আমাদের দায়িত্ব মামলা পরিচালনা করা। গ্রেফতার ও সাজা খাটানোর দায়িত্ব আদালত ও পুলিশ প্রশাসনের।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×