কঠোর আন্দোলনে যেতে হবে: মির্জা ফখরুল

  যুগান্তর রিপোর্ট ০৪ এপ্রিল ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর

গণতন্ত্রকে বিসর্জন দিয়ে সরকার ‘একদলীয় ব্যবস্থা’ পুনঃপ্রবর্তনের চক্রান্ত করছে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

তিনি বলেন, বারবার বিএনপিকে নিশ্চিহ্ন করার ষড়যন্ত্র হয়েছে। কিন্তু সব বাধা-বিপত্তি অতিক্রম করে বিএনপি ঠিকই উঠে দাঁড়িয়েছে। খালেদা জিয়াকে মুক্ত করে, গণতন্ত্রকে মুক্ত করে বিএনপি আবার উঠে দাঁড়াতে সক্ষম হবে- এটা আমরা মনেপ্রাণে বিশ্বাস করি। আজ দেশনেত্রীর মুক্তিই আমাদের কাছে প্রধান দায়িত্ব ও কর্তব্য। এজন্য জনগণকে সঙ্গে নিয়ে কঠোর আন্দোলনে যেতে হবে।

বুধবার জাতীয় প্রেস ক্লাব মিলনায়তনে এক সমাবেশে তিনি এসব কথা বলেন।

‘খালেদা জিয়ার অবৈধ সাজা বাতিল ও নিঃশর্ত মুক্তি এবং তারেক রহমানের সাজা বাতিল ও মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে’ সমাবেশের আয়োজন করে ‘নব্বইয়ের ডাকসু ও সর্বদলীয় ছাত্র ঐক্য’।

সরকার ‘একদলীয় ব্যবস্থা’ পুনঃপ্রবর্তনের চক্রান্ত করছে অভিযোগ করে মির্জা ফখরুল বলেন, আজ দেশে যে সংকট, তা শুধু বিএনপির সংকট নয়। আজ এ সংকট এত গভীর যে এটা জাতির সংকট। এটা রাষ্ট্রের সংকট। কারণ এ রাষ্ট্র থেকে চিরতরে গণতন্ত্রকে বিসর্জন দেয়ার আয়োজন প্রায় সম্পন্ন হয়ে গেছে। এটাকে একটা একদলীয় শাসনব্যবস্থায় নিয়ে যাওয়ার জন্য সব চক্রান্ত প্রায় সম্পন্ন। এখন বাংলাদেশের মানুষ পুরোপুরি একটা আবদ্ধ কারাগারের মধ্যে রয়েছে।

নেতাকর্মীদের উদ্দেশে বিএনপি মহাসচিব বলেন, রাজনৈতিক দল হিসেবে আমাদের নেতাদের সবার পবিত্র দায়িত্ব হচ্ছে, সব ষড়যন্ত্রকে রুখে দিতে হবে। গণতন্ত্রকে ফিরিয়ে আনার জন্য জনগণকে সঙ্গে নিয়ে আন্দোলনে নামতে হবে।

তিনি বলেন, গণবিচ্ছিন্ন হয়ে কখনও কোনো আন্দোলন সফল করা যায় না। সেজন্য জনগণকে সম্পৃক্ত করার জন্য আমাদের সব কৌশল করে নিতে হবে। আমি ব্যক্তিগতভাবে খুব আশাবাদী মানুষ। আমি মনে করি, কখনও অন্যায়ের কাছে ন্যায়ের পরাজয় হতে পারে না। যেটা হয়, সেটা সাময়িক হতে পারে। অবশ্যই ন্যায়ের জয় হবেই, সত্যের জয় হবেই।

বিএনপির পুনর্গঠন প্রক্রিয়া শুরু হচ্ছে উল্লেখ করে মির্জা ফখরুল বলেন, ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান অত্যন্ত সঠিকভাবেই আমাদের অঙ্গসংগঠনগুলোকে পুনর্গঠিত করার কাজ শুরু করেছেন। সক্রিয় করার কাজ শুরু করেছেন। বিএনপির সাংগঠনিক জেলাগুলোকে সক্রিয় করার কাজ শুরু করেছেন। আমার বিশ্বাস, অতি অল্প সময়ের মধ্যেই আমাদের এ সংগঠন আবার নিজের পায়ে দাঁড়াতে সক্ষম হবেই। অনেক ঝড় গেছে, অনেক ঝঞ্চা গেছে, অনেক সমস্যার সৃষ্টি হয়েছে, তার মধ্যেও বিএনপি উঠে দাঁড়িয়েছে সবসময়। তিনি বলেন, অনেকে হতাশায় ভোগেন। হতাশায় ভোগলে বিজয় অর্জন করা সম্ভব নয়। বিএনপি সেই দল, যে দলের রাজনীতি হচ্ছে এ দেশের জনগণের রাজনীতি। এদেশের মানুষ হচ্ছে বিএনপির সবচেয়ে বড় শক্তি। এ শক্তিকে কাজে লাগাতে হবে।

মির্জা ফখরুল বলেন, আমাদের মিডিয়া এখন নিয়ন্ত্রিত মিডিয়া। আপনারা লক্ষ করে দেখবেন যে, বিরোধী দলের খবর এখন সবচেয়ে কম ছাপা হয়- তৃতীয় কিংবা চতুর্থ পৃষ্ঠায়। ইলেকট্রনিক মিডিয়ায় কয়েক সেকেন্ড খবর দেয়া হয়। কারণটা কী? মিডিয়া হচ্ছে একটা বড় মাধ্যম, যে মাধ্যমে জনগণের কাছে পৌঁছানো যায়। সে কারণে এই সরকারের অপচেষ্টা হচ্ছে, যারা জনগণের শক্তি নিয়ে এগোতে চায়, তাদের বিভ্রান্ত করা। আজ আমাদের মধ্যে বিভ্রান্তি সৃষ্টি করার চেষ্টা করা হচ্ছে বিভিন্নভাবে।

দলের চেয়ারপারসনের মুক্তির দাবি জানিয়ে বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আমান উল্লাহ আমান বলেন, দেশনেত্রীর মুক্তির জন্য প্রয়োজনবোধে আমরা স্বেচ্ছায় কারাবরণ করব। স্বেচ্ছায় কারাবরণ করে হয় আমরা খালেদা জিয়াকে মুক্ত করব, নইলে সবাই জেলে থাকব- এটাই আজ আমাদের শপথ হোক।

কারাগারে দীর্ঘদিন আটক আবদুস সালাম পিন্টু, লুৎফুজ্জামান বাবর, গিয়াস কাদের চৌধুরী, আসলাম চৌধুরী, হাবিব উন নবী খান সোহেল, ফজলুল হক মিলন, মীর সরাফাত আলী সপু, শহিদুল ইসলাম বাবুল, শেখ শামীম, সুলতান সালাউদ্দিন টুকু, ইসহাক সরকার, মামুনুর রশীদসহ সব নেতাকর্মীর মুক্তির দাবিও জানান তিনি। এবিএম মোশাররফ হোসেনের পরিচালনায় সমাবেশে আরও বক্তব্য দেন শামসুজ্জামান দুদু, আসাদুজ্জামান রিপন, খায়রুল কবির খোকন, মোস্তাফিজুর রহমান বাবুল, সাইফুদ্দিন আহমেদ মনি, খন্দকার লুৎফর রহমান, আসাদুর রহমান খান, শহিদউদ্দিন চৌধুরী এ্যানী, কামরুজ্জামান রতন, হাবিবুল ইসলাম হাবিব, শফিউল বারী বাবু, আবদুল কাদের ভূঁইয়া জুয়েল, এজমল হোসেন পাইলট প্রমুখ।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×