গ্রামপুলিশকে গুলি করে হত্যা

  ব্রাহ্মণবাড়িয়া ও আশুগঞ্জ প্রতিনিধি ০৭ এপ্রিল ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

গ্রামপুলিশ,

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জে স্থানীয় টাইগার বাহিনীপ্রধান ইউপি চেয়ারম্যান আবুশামা মিয়ার দেহরক্ষী ভানু চন্দ্র দাস (৪৫) নামে এক গ্রামপুলিশকে গুলি করে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। শনিবার সকালে তালশহর-বাহাদুরপুর সড়কে আশুগঞ্জ উপজেলার ভাইস চেয়ারম্যান মো. আমির হোসেনের গাড়িতে এ হামলা ও গুলির ঘটনা ঘটে। আমির হোসেন আবুশামা মিয়ার ছেলে।

তবে ওই হামলার সময় গাড়িতে থাকা ড্রাইভার অক্ষত থাকা এবং গাড়িতে কোনো রক্তের দাগ না থাকায় খুনের ঘটনা নিয়ে এলাকাবাসীর মনে সন্দেহ সৃষ্টি হয়েছে। জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ড্রাইভার শিপনকে আটক করেছে পুলিশ। নিহত ভানু চন্দ্র দাস ওই ইউনিয়নের হরি চন্দ্র দাসের ছেলে। তিনি তালশহর ইউনিয়নে কর্মরত ছিলেন।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, সকাল ১০টার দিকে ভাইস চেয়ারম্যান আমির হোসেনের গাড়িতে তেল ভরার জন্য ভানু চন্দ্র দাস চালকসহ সরাইল বিশ্বরোড পাম্পের দিকে যাচ্ছিলেন। তালশহর-বাহাদুরপুর সড়কের নির্জন স্থানে সিএনজিচালিত একটি অটোরিকশা গাড়িটির গতিরোধ করে। পরে অটোরিকশা থেকে তিন যুবক অস্ত্র হাতে বের হলে গাড়ির চালক দৌড়ে পালিয়ে যান। এ সময় যুবকরা গাড়িতে থাকা গ্রামপুলিশ ভানু চন্দ্র দাসকে গুলি করে পালিয়ে যায়। এতে ঘটনাস্থলেই তিনি মারা যান।

এ ব্যাপারে আশুগঞ্জ উপজেলার ভাইস চেয়ারম্যান আমির হোসেন বলেন, সন্ত্রাসীরা আমাকে ও আমার বাবাকে মারতে এসেছিল। আমরা গাড়িতে না থাকায় প্রাণে বেঁচে যাই। তিনি এর সঙ্গে জড়িতদের দ্রুত আটক করে আইনের আওতায় আনার দাবি জানান। তিনি বলেন, সম্প্রতি উপজেলা নির্বাচন হয়েছে আশুগঞ্জে। নির্বাচনকে কেন্দ্র করে এ ঘটনা ঘটানো হয়েছে। তবে ড্রাইভার অক্ষত থাকা এবং গাড়িতে রক্তের দাগ না থাকার বিষয়ে প্রশ্ন করলে তিনি কোনো সদুত্তর দিতে পারেননি।

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. আলমগীর হোসাইন বলেন, খবর পেয়ে আমরা ঘটনাস্থলে যাই। সেখানে গিয়ে লাশ দেখি এবং মোটিভ উদ্ধারের চেষ্টা করি। তবে কেন এ হত্যাকাণ্ড, তা এ মুহূর্তে বলা যাচ্ছে না। এখানে অন্য কোনো রহস্য আছে কি না, তা-ও যাচাই না করে বলা যাবে না। তবে গাড়ির ড্রাইভারের সিট থেকে একটি গুলির খোসা পাওয়া গেছে।

তিনি আরও বলেন, ঘটনার একমাত্র প্রত্যক্ষদর্শী ড্রাইভার শিপনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করা হয়েছে। আশা করছি, তার কাছ থেকে অনেক গুরুত্বপূর্ণ তথ্য পাওয়া যাবে।

এদিকে পুলিশের একটি সূত্র জানিয়েছে, টাইগার বাহিনীপ্রধান আবুশামা মিয়ার প্রতিটি কাজে ভানু চন্দ্র দাস প্রধান সহযোগী ছিলেন। ধারণা করা হচ্ছে, এসব কারণেও তাকে হত্যা করা হতে পারে।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×