শিক্ষার্থীদের পাশে শিক্ষকরা

বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ে ভিসিবিরোধী আন্দোলন আরও তীব্র হচ্ছে

রেজিস্ট্রার ও জনসংযোগ কর্মকর্তাকে অবাঞ্ছিত ঘোষণা

  তন্ময় তপু, বরিশাল ব্যুরো ১৩ এপ্রিল ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়
বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়। ফাইল ছবি

বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ে ভিসিবিরোধী আন্দোলন দিন দিন তীব্র হচ্ছে। শিক্ষার্থীদের এই আন্দোলনে সংহতি জানিয়েছেন শিক্ষকরাও। ভিসির পদত্যাগের দাবিতে শিক্ষক সমিতির নেতারা একাডেমিক ভবনের নিচে অবস্থান কর্মসূচি পালন করছেন।

আর শিক্ষার্থীরা মহাসড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ চালিয়ে যাচ্ছেন। ভিসি ১৫ দিনের ছুটির জন্য মন্ত্রণালয়ে আবেদন করলেও এটাকে ‘আইওয়াশ’ বলছেন শিক্ষার্থীরা। পদত্যাগ না করে ভিসি ছুটির আবেদন করায় ক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা আরও কঠোর কর্মসূচির ঘোষণা দিয়েছেন। ইতিমধ্যে রেজিস্ট্রার ড. হাসিনুর রহমান ও জনসংযোগ কর্মকর্তা ফয়সাল মাহামুদ রুমীকে অবাঞ্ছিত ঘোষণা করেছেন তারা।

শুক্রবার বিকাল সাড়ে ৩টায় অবস্থান কর্মসূচি পালন করেন শিক্ষার্থীরা। এ সময় তারা ভিসিবিরোধী নানা স্লোগান দেন। আন্দোলনের নেতৃত্বে থাকা ছাত্র শফিকুল ইসলাম ও লোকমান হোসেন বলেন, ভিসি ১৫ দিনের জন্য যে ছুটির আবেদন করেছেন তা আইওয়াশ মাত্র। আমাদের দাবি একটাই- তার পদত্যাগ করতে হবে। ভিসি পদত্যাগ না করা পর্যন্ত আন্দোলন চলবে। আন্দোলন আরও জোরদার করা হবে। ইতিমধ্যে রেজিস্ট্রার ও জনসংযোগ কর্মকর্তাকে অবাঞ্ছিত ঘোষণা করা হয়েছে।’

বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক আবু জাফর মিয়া বলেন, ‘শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের যৌক্তিকতা রয়েছে। তাদের আন্দোলনের সঙ্গে আমরাও একাত্মতা প্রকাশ করছি। তবে আমাদের আট দফা দাবি নিয়ে পৃথকভাবে অবস্থান ধর্মঘট চালিয়ে যাচ্ছি।’ তিনি বলেন, ‘বিশ্ববিদ্যালয়ে ভিসির কার্যক্রমে শিক্ষার পরিবেশ নষ্ট করছে। এর থেকে আমরা পরিত্রাণ চাই।’

জানা গেছে, ভিসি ইমামুল হক ঢাকায় অবস্থান করে আন্দোলন বন্ধ করতে নানা চেষ্টা-তদবির চালিয়ে যাচ্ছেন। তার সঙ্গে রয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের বেশ কয়েক কর্মকর্তাও। তবে এই আন্দোলন স্তিমিত হওয়ার কোনো লক্ষণ দেখা যাচ্ছে না। আন্দোলনের তীব্রতা দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে।

এদিকে মহাসড়ক অবরোধ করে কয়েকদিন ধরে বিক্ষোভ করায় জনদুর্ভোগ সৃষ্টি হলেও পুলিশের তেমন কোনো পদক্ষেপ লক্ষ্য করা যাচ্ছে না। এ বিষয়ে বরিশাল মেট্রোপলিটন পুলিশের বন্দর থানার ওসি বলেন, ‘আমরা জনদুর্ভোগের বিষয়টি শিক্ষার্থীদের বোঝানোর চেষ্টা করছি।’

উল্লেখ্য, শিক্ষার্থীদের পাশ কাটিয়ে ভিসি ২৬ মার্চ স্বাধীনতা দিবসের কর্মসূচি পালন করায় সংকটের সূত্রপাত। শিক্ষার্থীরা ভিসির বিরুদ্ধে আন্দোলন শুরু করেন। এরপর ভিসি শিক্ষার্থীদের নিয়ে বিরূপ মন্তব্য করায় আন্দোলন আরও তীব্র হয়, যা টানা ১৮ দিন ধরে চলছে। এর মধ্যে পানিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী জাহিদ ফারুক ও সিটি মেয়র সেরনিয়াবাত সাদিক আবদুল্লাহ শিক্ষার্থীদের প্রতিনিধি, প্রশাসনের সঙ্গে বৈঠক করলেও সমস্যার সমাধান হয়নি।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×