লক্ষ্মীপুরে অগ্নিদগ্ধ শাহীনের দাফন

গ্রেফতার ৪, আজ রিমান্ড শুনানি

  যুগান্তর রিপোর্ট ও রামগতি (লক্ষ্মীপুর) প্রতিনিধি ২৪ এপ্রিল ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

লক্ষ্মীপুরে অগ্নিদগ্ধ শাহীনের দাফন

স্ত্রীর স্বীকৃতি আদায়ে চট্টগ্রাম থেকে লক্ষ্মীপুরে এসে অগ্নিদগ্ধ হয়ে শাহীন আক্তারের মৃত্যুর ঘটনায় করা মামলায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক ৪ জনকে গ্রেফতার দেখিয়েছে পুলিশ। মঙ্গলবার তাদের আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়। আজ বুধবার তাদের রিমান্ড শুনানির দিন ধার্য করা হয়েছে।

গ্রেফতার ব্যক্তিরা হলেন- প্রধান আসামি সালাউদ্দিনের ভাই আলাউদ্দিন, আবদুর রহমান, স্থানীয় ইউপি সদস্য হাফিজ উদ্দিন ও গ্রামপুলিশ আবু তাহের। এদিকে নিহত শাহীনের মরদেহ ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে ময়নাতদন্ত শেষে মঙ্গলবার বেলা ১১টার দিকে তার বাবা জাফর উদ্দিনের কাছে হস্তান্তর করা হয়। লাশবাহী অ্যাম্বুলেন্সটি মঙ্গলবার সন্ধ্যায় চট্টগ্রামে পৌঁছলে সেখানে এক হৃদয়বিদারক দৃশ্যের অবতারণা হয়। পরে জানাজা শেষে শাহীনের লাশ পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়।

জানতে চাইলে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ফরেনসিক বিভাগের ডা. সোহেল মাহমুদ যুগান্তরকে বলেন, ময়নাতদন্ত শেষে লাশ পরিবারের কাছে দেয়া হয়েছে। তার শরীরের ৪০ ভাগের বেশি পুড়ে গিয়েছিল।’ কমলনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ইকবাল হোসেন যুগান্তরকে বলেন, নারী ও শিশু নির্যাতন আইনের ৪(১)/৩০ ধারায় মামলা হয়েছে।

নিহতের বাবা জাফর উদ্দিন বাদী হয়ে মামলা করেন। সেখানে সালাউদ্দিনসহ ৫ জনকে আসামি করা হয়েছে। অজ্ঞাত আসামি আরও ৭-৮ জন। এ পর্যন্ত ৪ জনকে গ্রেফতার দেখিয়ে আদালতে পাঠানো হয়েছে। প্রধান আসামিকে ধরতে পুলিশের ৪টি টিম কাজ করছে। আমরা সব ধরনের চেষ্টা করছি। তাকে ধরতে পারলে বিস্তারিত জানা সম্ভব হবে।’

নানা দেনদরবারের পর রোববার কমলনগর উপজেলার চরফলকন গ্রামে একটি সয়াবিনক্ষেতের ভেতর থেকে গায়ে আগুন লাগা অবস্থায় বের হলে শাহীনকে উদ্ধার করেন স্থানীয় লোকজন। প্রথমে তাকে কমলনগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেয়া হয়। অবস্থার অবনতি হলে পরে তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে পাঠানো হয়।

স্থানীয় জাহানার বেগম বলেন, ইউপি সদস্য হাফিজ ও গ্রামপুলিশ তাহের ওই নারীকে বাঁচাতে হাসপাতালে নিয়ে গেছেন কিন্তু এখন উল্টো তাদের মামলায় জড়ানো হয়েছে। এমন হলে তো আর কেউ কারও বিপদে ছুটে আসবে না।

এ বিষয়ে কমলনগর থানার ওসি বলেন, তাদের সংশ্লিষ্টতার বিষয়ে আমরা নিশ্চিত নই। তবে তাদের অবহেলা ছিল। তারা যদি আইন হাতে না নিয়ে পুলিশকে বিষয়টি জানাত তাহলে এ ধরনের ঘটনা এড়ানো সম্ভব হতো।’

লক্ষ্মীপুর সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শাহীনের অভিযোগ ছিল, মোবাইল ফোনে সালাউদ্দিনের সঙ্গে তার পরিচয়। প্রায় দেড় বছর আগে কাজী অফিসে তাদের বিয়ে হয়। শেষ পর্যন্ত স্ত্রীর স্বীকৃতি আদায়ে চট্টগ্রাম থেকে শহীন লক্ষ্মীপুরে ছুটে যান। এ নিয়ে সালিশ বৈঠকও হয়।

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×