কলেজছাত্রীকে অস্ত্র ঠেকিয়ে ধর্ষণ

সাভারে স্কুলছাত্রী, রাজাপুরে মাদ্রাসাছাত্রী ও মির্জাগঞ্জে প্রতিবন্ধী ধর্ষণের শিকার * সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভিডিওচিত্র ছড়িয়ে দেয়ার হুমকি * গাইবান্ধা ও দিনাজপুরে গ্রেফতার ২

  যুগান্তর ডেস্ক ১৪ মে ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

কলেজছাত্রীকে অস্ত্র ঠেকিয়ে ধর্ষণ
প্রতীকী ছবি

ময়মনসিংহের গফরগাঁওয়ে অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে কলেজছাত্রীকে ধর্ষণ করা হয়েছে। সেই চিত্র ভিডিও ধারণ করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দেয়ার হুমকি দিচ্ছে সংঘবদ্ধ চক্র।

ঝালকাঠির রাজাপুরে ধর্ষণের শিকার হয়েছে মাদ্রাসাছাত্রী। পটুয়াখালীর মির্জাগঞ্জে ধর্ষণের শিকার প্রতিবন্ধী অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়েছে। গাইবান্ধা ও দিনাজপুরে দুই শিশু ধর্ষণের ঘটনায় গ্রেফতার হয়েছে দু’জন। সাভারে বেড়াতে এসে ধর্ষণের শিকার হয়েছে স্কুলছাত্রী। এ ছাড়া গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জে এক শিশুকে ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগে মামলা হয়েছে।

যুগান্তর ব্যুরো ও প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর-

গফরগাঁও (ময়মনসিংহ) : কলেজছাত্রীকে ধর্ষণের ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার কান্দিপাড়া গ্রামে। এ ঘটনায় রোববার রাতে ছাত্রী বাদী হয়ে চাঁন মিয়া সিং, মোশারফ হোসেন ও মো. স্বপনকে আসামি করে পাগলা থানায় মামলা করেছে। থানার ওসি (ভারপ্রাপ্ত) ফয়েজুর রহমান জানান, ঘটনার সঙ্গে জড়িত চাঁন মিয়া সিংকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

৮ ফেব্রুয়ারি এ ধর্ষণের ঘটনা ঘটে। বিষয়টি এলাকায় জানাজানি হয়ে গেলে চাঁন মিয়া সিংয়ের লোকজন মেয়েটির বাড়িতে গিয়ে মা-খালাকে মারধর করে তাদের বাড়ি থেকে বের করে তালা লাগিয়ে দেয়।

মেয়েটির মা জানান, অভিযুক্তদের অত্যাচার থেকে বাঁচতে একপর্যায়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করে আমার মেয়ে। তিনি আরও বলেন, পালিয়েও এদের হাত থেকে আমার মেয়েকে আমি রক্ষা করতে পারছিলাম না। এরা মাদকাসক্ত ও মাদক ব্যবসায়ী। আমাকে ও আমার মেয়েকে প্রতিনিয়ত হত্যার হুমকি দিয়ে যাচ্ছে তাদের লোকজন। স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম তোতা বলেন, লোকমুখে ঘটনা শুনেছি।

রাজাপুর (ঝালকাঠি) : রাজাপুরে মাদ্রাসাছাত্রী ধর্ষণের শিকার হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। সোমবার সকালে উপজেলার সাতুরিয়ায় এ ঘটনা ঘটে। স্থানীয়রা এ ঘটনায় নুর আলম নামে একজনকে আটক করে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. সোহাগ হাওলাদারের কাছে হস্তান্তর করে।

পরে নির্বাহী কর্মকর্তা নুর আলমকে রাজাপুর থানা পুলিশে সোপর্দ করেন। নুর আলম উপজেলার নৈকাঠি গ্রামের আফছের কাগজীর ছেলে। এ ঘটনায় অভিযুক্ত আরেকজন রাবিক হোসেন ঘটনার পর থেকে পলাতক রয়েছে। সে উপজেলার সাতুরিয়ার মাহে আলম হাওলাদারের ছেলে।

পটুয়াখালী (দক্ষিণ) : মির্জাগঞ্জ উপজেলার মনোহরখালী গ্রামে এক প্রতিবন্ধী ধর্ষণের শিকার হয়েছে। বর্তমানে ওই কিশোরী ৮ মাসের অন্তঃসত্ত্বা বলে জানা গেছে।

এ ব্যাপারে কিশোরীর বাবা কামাল শেখ নামে একজনের বিরুদ্ধে মির্জাগঞ্জ থানায় রোববার রাতে মামলা করেছেন। কামালের মোবাইল ফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে তা বন্ধ পাওয়া যায়। মির্জাগঞ্জ থানার ওসি মাসুমুর রহমান বলেন- এ ব্যাপারে মামলা রেকর্ড করা হয়েছে। আসামি গ্রেফতারের চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।

রংপুর ও দিনাজপুর : গাইবান্ধা ও দিনাজপুরে পৃথক দুই শিশুকে ধর্ষণের ঘটনায় দু’জনকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব। রোববার রাতে লালমনিরহাটের পাটগ্রামে এবং দিনাজপুরের বিরলে পৃথক দুটি অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেফতার করা হয়। সোমবার র‌্যাবের রংপুর-১৩ সদর দফতরে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান অধিনায়ক অতিরিক্ত ডিআইজি মোজাম্মেল হক।

গ্রেফতাররা হল- গাইবান্ধা সদর উপজেলার কুপতলা ইউনিয়নের পশ্চিম কুপতলা মধ্যপাড়ায় এক শিশুকে ধর্ষণের ঘটনায় আইয়ুব খানের ছেলে শাকিল মিয়াকে রোববার রাতে লালমনিরহাটের পাটগ্রাম থেকে গ্রেফতার কর হয়।

এ ছাড়া দিনাজপুরের বিরল উপজেলার রানীপুকুর ইউনিয়নের কাজিপাড়ায় এক শিশুকে ধর্ষণের ঘটনায় একই গ্রামের নওশাদের ছেলে আরিফুল ইসলামকে রোববার রাতে গ্রেফতার করা হয়। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেফতার দুই আসামি ধর্ষণের বিষয়টি স্বীকার করেছে।

আশুলিয়া (ঢাকা) : সাভারে ভাইয়ের বাসায় বেড়াতে এসে ধর্ষণের শিকার হয়েছে এক স্কুলছাত্রী। এ ঘটনায় একজনকে আটক করে গণপিটুনি দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করেছেন স্থানীয়রা।

সোমবার সাভারের গেণ্ডা এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। সাভার থানার ওসি এএফএম সায়েদ জানান, ধর্ষণের ঘটনায় আলম নামের এক নিরাপত্তাকর্মীকে এলাকাবাসী আটক করে গণপিটুনি দিয়ে পুলিশে দিয়েছেন। ধর্ষণের শিকার শিক্ষার্থীকে উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠিয়েছে পুলিশ।

গাইবান্ধা : গোবিন্দগঞ্জে ৪র্থ শ্রেণীর এক স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগে থানায় মামলা হয়েছে। রোববার সন্ধ্যায় উপজেলার ফাঁসিতলা বাজারে এ ঘটনা ঘটে। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা গোবিন্দগঞ্জ থানার এসআই আবু বক্কর সিদ্দিক বলেন, শিশুটিকে ধর্ষণ করা হয়েছে কিনা তা ডাক্তারি পরীক্ষার রিপোর্ট পাওয়ার পর নিশ্চিত হয়ে এ বিষয়ে কার্যকরী ব্যবস্থা নেয়া হবে।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×