পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের তথ্য

ভূমধ্যসাগরে নৌকাডুবিতে নিখোঁজ ৩৯ বাংলাদেশি

  যুগান্তর রিপোর্ট ১৬ মে ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. একে আবদুল মোমেন বলেছেন, ভূমধ্যসাগরে নৌকাডুবিতে নিখোঁজ ৩৯ জন বাংলাদেশির নাম-পরিচয় পাওয়া গেছে। এর মধ্যে ২২ জন বৃহত্তর সিলেট অঞ্চলের। তিনি আরও বলেন, মানব পাচারে যুক্ত নোয়াখালীর তিন ভাইয়ের একটি চক্র ও মাদারীপুরের দু’জনকে শনাক্ত করা হয়েছে। এছাড়া সিলেটের নিখোঁজদের স্বজনরা কয়েকজন দালালকে চিহ্নিত করেছেন। জীবিত উদ্ধার হওয়া ১৪ জন বাংলাদেশির নামের তালিকাও পাওয়া গেছে। বুধবার তিনি এসব কথা বলেন। এদিকে, মাদারীপুরের চারজন, সিলেটের বিশ্বনাথের পাঁচজন ও মৌলভীবাজার সদর উপজেলার এক যুবকের নিখোঁজ হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। এ খবরে তাদের পরিবারে চলছে শোকের মাতম। পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে নিজ কার্যালয়ে সাংবাদিকদের পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবদুল মোমেন বলেন, জীবিত ১৪ যাত্রীর সঙ্গে কথা বলে লিবিয়ায় বাংলাদেশ দূতাবাসের কর্মকর্তারা এসব তথ্য জেনেছেন। আর যে চারজনের মৃতদেহ পাওয়া গেছে তাদের একজন বাংলাদেশি বলে নিশ্চিত হওয়া গেছে। শরীয়তপুরের নড়িয়ার উত্তম কুমার দাসের লাশ পাওয়া গেছে। তার বাবার নাম গৌতম দাস। ছবি পাঠিয়ে তার ভাইয়ের সঙ্গে কথা বলে উত্তম কুমারের পরিচয়ের বিষয়ে নিশ্চিত হওয়া গেছে। পররাষ্ট্রমন্ত্রী আরও বলেন, ওই দিন দুটি নৌকায় করে ভূমধ্যসাগর হয়ে প্রায় ১৩০ জন ইতালির উদ্দেশে যাত্রা করেন। এতে ১০০ জন ছিলেন বাংলাদেশের নাগরিক। এর মধ্যে একটি নৌকা নিরাপদে পৌঁছে যায় বলে জানা গেছে। অন্যটিতে ৭০ থেকে ৮০ জন ছিলেন। উদ্ধার হওয়া ১৪ জন বাংলাদেশির মধ্যে চারজন সরকারি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

এক প্রশ্নের জবাবে পররাষ্ট্রমন্ত্রী মোমেন বলেন, মানব পাচারের সঙ্গে যুক্ত নোয়াখালীর তিন ভাইয়ের একটি চক্র ও মাদারীপুরের দু’জনকে শনাক্ত করা হয়েছে। উদ্ধার বাংলাদেশিদের সঙ্গে কথা বলে বাংলাদেশি কর্মকর্তারা এ তথ্য পেয়েছেন। এছাড়া সিলেটের নিখোঁজদের পরিবারের সদস্যরা কয়েকজন দালালকে চিহ্নিত করেছেন।

নিখোঁজের তালিকা : ভূমধ্যসাগরে নৌকাডুবির ঘটনায় এখনও যাদের খোঁজ পাওয়া যায়নি তারা হলেন- সিলেটের আবদুল আজিজ, আহমদ, লিটন আহমেদ, খোকন, আফজাল হোসেন, মমিন আহমেদ, দিলাল আহমেদ, কাশেম, জিল্লুর রহমান, কামরান আহমেদ মারুফ, রুকন আহমেদ, আয়াজ আহমেদ, সুজন আহমেদ, ইন্দ্রজিৎ, জুয়েল, শোয়েব ও সাজু; সুনামগঞ্জের মৌলানা মাহবুবুর রহমান ও নাজির আহমেদ; মৌলভীবাজারের হাফিজ শামিম আহমেদ ও ফাহাদ আহমেদ; হবিগঞ্জের মুক্তাদির; কিশোরগঞ্জের সাব্বির, সজল ও জালালউদ্দিন, মাদারীপুরের আলি আকবর, শাহেদ, নাইম, স্বপন, নাদিম ও জাকির হাওলাদার; শরীয়তপুরের মনির, সুমন, পারভেজ ও রাজিব; নরসিংদীর জাহিদ ও নোয়াখালীর নাসির আহমেদ।

জীবিত উদ্ধার ১৪ জন : জীবিত উদ্ধার হওয়া ব্যক্তিরা হলেন- সুনামগঞ্জের মোহাম্মদ রনি মিয়া, মাদারীপুরের মোহাম্মদ মাসুদ, সাঈদ সরদার ও রনি মোল্লা; নোয়াখালীর মাহমুদুল হাসান ও মানজুরুল আলম; নারায়ণগঞ্জের ইব্রাহিম মিয়া; সিলেটের সিজুর আহাম্মদ, মাহফুজ আহম্মদ ও বিলাল আহাম্মদ; কিশোরগঞ্জের বাহাদুর; হবিগঞ্জের মোহাম্মদ মামুন মিয়া; শরীয়তপুরের শিশির মাখদুম ও বরিশালের মোহাম্মদ আল আমিন।

পাচারকারীদের চিহ্নিত করার তাগিদ : মানব পাচারের সঙ্গে জড়িতদের চিহ্নিত করে তাদের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেয়ার তাগিদ দিয়েছে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সদস্যরা। ভূমধ্যসাগরে নৌকাডুবিতে প্রাণহানির ঘটনায় তারা শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন। পাশাপাশি সংশ্লিষ্ট মিশনগুলোকে বাংলাদেশিদের সহযোগিতা দিতে সুপারিশ করা হয়। বুধবার জাতীয় সংসদ ভবনে অনুষ্ঠিত কমিটির বৈঠকে এ সুপারিশ করা হয়।

মাদারীপুর ও টেকেরহাট : ভূমধ্যসাগরে ট্রলারডুবির ঘটনায় মাদারীপুরের সদর উপজেলার মনির হোসেন মাতুব্বর (২২), নাদিম মাতুব্বর (১৭), সাইফুল ইসলাম (২৪) ও রাজৈর উপজেলার নাঈম সিকদার (১৯) নিখোঁজ রয়েছেন। এছাড়া শিবচর উপজেলার দত্তপাড়া ইউনিয়নের ৮নং চর গ্রামের সেকান্দার হাওলাদারের ছেলে জাকির হোসেন (২৮) এবং সদর উপজেলার শিরখাড়া ইউনিয়নের উত্তর শিরখাড়া গ্রামের আজিজ শিকদারের ছেলে সজিব হোসেনের মৃত্যুর আশঙ্কা করা হচ্ছে। একই নৌকায় ছিলেন সদর উপজেলার বল্লভদী গ্রামের আদেল উদ্দিন মাতুব্বরের ছেলে মনির হোসেন মাতুব্বর (২২) ও শ্রীনদী এলাকার জোবায়ের মাতুব্বরের ছেলে নাদিম মাতুব্বর (১৭)। তারা নিখোঁজ রয়েছেন। এছাড়া একই ঘটনায় সদর উপজেলার খোয়াজপুর মঠেরবাজার এলাকার মজিবুর রহমানের ছেলে সাইফুল ইসলাম (২৪), রাজৈর উপজেলার আলমদস্তার গ্রামের জাফর সিকদারের ছেলে নাইম সিকদার (১৯) নিখোঁজ রয়েছেন।

বিশ্বনাথ (সিলেট) : নৌকাডুবিতে বিশ্বনাথ উপজেলার নিখোঁজরা হলেন- রামপাশা ইউনিয়নের নওধার মাঝপাড়া গ্রামের ইলিয়াস আলীর ছেলে ও সিলেট সরকারি কলেজের ছাত্র রেদুয়ানুল ইসলাম খোকন (২৪), উপজেলার গোয়াহরি গ্রামের আবদুল হান্নানের ছেলে ও সিলেট এমসি কলেজের ছাত্র আবদুল মুমিন (২২), শিমুলতলা গ্রামের আরসদ আলী মাস্টারের ছেলে দিলাল হোসেন (২৩), পালেরচক গ্রামের নুরুল ইসলামের ছেলে মাছুম আহমদ (২৮)।

মৌলভীবাজার : সদর উপজেলার গিয়াসনগর ইউনিয়নের কালিয়ারগাঁও গ্রামের সাদিকুর রহমানের ছেলে আজিজুর রহমান রুকুলের নিখোঁজ হওয়ার খবর পাওয়া গেছে।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×