মাদারীপুরে স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণ পুলিশ সদস্য প্রত্যাহার

পেকুয়ায় ধর্ষণের ঘটনা ধামাচাপ দিতে কিশোরীকে বিষ খাইয়ে হত্যাচেষ্টা * হাজীগঞ্জে ধর্ষণের অভিযোগে ইমাম গ্রেফতার * রাজশাহীতে নারী শ্রমিককে ধর্ষণের অভিযোগ

  যুগান্তর ডেস্ক ২১ মে ২০১৯, ০০:০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

প্রতীকী ছবি

মাদারীপুরে মোক্তার হোসেন নামে এক পুলিশ সদস্যের বিরুদ্ধে স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় তাকে প্রত্যাহার করা হয়েছে। পাশাপাশি দুই সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। কক্সবাজারের পেকুয়ায় ১২ বছরের এক কিশোরী ধর্ষণের পর ঘটনা ধামাচাপ দিতে তাকে বিষ খাইয়ে হত্যার চেষ্টা করে ধর্ষকের স্বজনরা।

বর্তমানে ওই কিশোরীর অবস্থা আশঙ্কাজনক। চাঁদপুরের হাজীগঞ্জে এক মসজিদের ইমামের বিরুদ্ধে অন্ধ ভিক্ষুকের মেয়েকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। পুলিশ অভিযুক্ত ইমামকে গ্রেফতার করেছে। রাজশাহীতে আদিবাসী নারী শ্রমিককে ধর্ষণের অভিযোগে মামলা হয়েছে। ব্যুরো ও প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর-

মাদারীপুর : জানা গেছে, মাদারীপুর পুলিশ লাইনের পুলিশ সদস্য মোক্তার হোসেন দীর্ঘদিন ধরে শহরের টিবি ক্লিনিক সড়কে ভাড়া বাসায় থাকেন। কয়েক দিন আগে মোক্তারের গর্ভবতী স্ত্রী গ্রামের বাড়ি চলে যায়। এ সুযোগে রোববার রাতে প্রতিবেশী এক স্কুলছাত্রীকে ঘরে ডেকে ধর্ষণ করে বলে অভিযোগ উঠেছে। বিষয়টি টের পেয়ে স্থানীয়রা বাইরে থেকে দরজা বন্ধ করে দেন।

পরে মোক্তার স্কুলছাত্রীকে পেছনের ভেন্টিলেটর দিয়ে ফেলে দেয়। এতে ওই ছাত্রী গুরুতর আহত হয়। তাকে উদ্ধার করে মাদারীপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। নির্যাতিত স্কুলছাত্রী জানায়, ভেন্টিলেটর দিয়ে ফেলে দেয়ার আগে সে আমাকে লাঠি দিয়ে পিটিয়েছে। মাদারীপুর সদর হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসক শশাঙ্ক ঘোষ বলেন, ধর্ষণের অভিযোগে একটি মেয়েকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। প্রয়োজনীয় নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে।

এ ব্যাপারে অভিযুক্ত মোক্তার হোসেন জানায়, আমার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করা হচ্ছে। আমাকে শুধু শুধু স্থানীয়রা ঘরের বাইরে থেকে দরজা বন্ধ করে দিয়েছিল। ওই মেয়ের সঙ্গে আমার কিছুই হয়নি।

মাদারীপুরের ভারপ্রাপ্ত পুলিশ সুপার উত্তম প্রসাদ পাঠক বলেন, এ ঘটনায় দুই সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। অভিযুক্ত পুলিশ সদস্যকে প্রত্যাহার করা হয়েছে। মামলার বিষয়টি প্রক্রিয়াধীন।

চকরিয়া (কক্সবাজার) : ভুক্তভোগী কিশোরীর মা জানান, তার মেয়ে পেকুয়া সদর ইউনিয়নের সিকদারপাড়া গ্রামের জাফর আলমের বাড়িতে কাজ করত। রোববার রাত ৯টার দিকে কিশোরীটি জাফর আলমের ঘরের বাইরে টিউবওয়েলে কাজ করতে যায়। এ সময় পাশের বাড়ির চাঁদ মিয়ার ছেলে মো. ছোটন তাকে ধর্ষণ করে।

পরে ধর্ষণের ঘটনা ধামাচাপা দিতে ছোটনের আত্মীয়স্বজনরা কিশোরীকে জোর করে বিষ খাইয়ে দিয়ে হত্যার চেষ্টা চালায়। পরে এলাকাবাসী তাকে উদ্ধার করে পেকুয়া উপজেলা হাসপাতালে ভর্তি করেন। পুলিশ ওই রাতেই অভিযান চালিয়ে ধর্ষক মো. ছোটনকে গ্রেফতার করে। পেকুয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কর্মকর্তা ডা. মোহাম্মদ ছাবের জানান, ওই কিশোরীর পেট থেকে বিষ বের করা হয়েছে। তবে তার অবস্থা এখনও শঙ্কামুক্ত নয়।

পেকুয়া থানার অফিসার ইনচার্জ মো. জাকির হোসেন ভূঁইয়া বলেন, গ্রেফতার মো. ছোটন পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে ধর্ষণের কথা স্বীকার করেছে। কিশোরীর প্রচুর রক্তক্ষরণ হয়েছে। তার মা বাদী হয়ে ছোটনের বিরুদ্ধে একটি মামলা করেছেন।

রাজশাহী : দুর্গাপুরে এক আদিবাসী নারী শ্রমিককে ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় ভুক্তভোগী ওই গৃহবধূ রোববার রাতে থানায় একটি মামলা করেছেন। মামলায় জাহাঙ্গীর আলম নামে একজনকে আসামি করা হয়েছে। পুলিশ তাকে গ্রেফতার করেছে। জাহাঙ্গীর উপজেলার ব্রহ্মপুর পূর্বপাড়া গ্রামের বাসিন্দা। সোমবার সকালে তাকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠিয়েছে পুলিশ। দুর্গাপুর থানার ওসি আবদুল মোতালেব জানান, ভুক্তভোগী নারীর বাড়ি চাঁপাইনবাবগঞ্জের নাচোলে।

কয়েক দিন আগে আরও কয়েকজন আদিবাসী নারীর সঙ্গে ওই গৃহবধূ দুর্গাপুরে কৃষি শ্রমিক হিসেবে কাজে আসেন। সারাদিন কাজ শেষে রাতে তারা সবাই ব্রহ্মপুর গ্রামের একটি কলোনিতে থাকতেন। গত শুক্রবার কলোনির পাশে জাহাঙ্গীরের বাড়িতে যান টিউবওয়েলের পানি নিতে। এ সময় একা পেয়ে জাহাঙ্গীর তাকে ধর্ষণ করে। ওসি জানান, ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য ওই নারীকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

হাজীগঞ্জ (চাঁদপুর) : অন্ধ ভিক্ষুকের মেয়েকে ধর্ষণের অভিযোগে মো. মোজাম্মেল হক নামে এক মসজিদের ইমামকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। এ ব্যাপারে ভুক্তভোগী মেয়ের মা মামলা করেছেন। সোমবার দুপুরে অভিযুক্ত ইমামকে আদালতে পাঠালে আদালত তাকে জেলহাজতে পাঠান। গ্রেফতার ইমাম চাঁদপুর সদর উপজেলার দেবপুর জামে মসজিদে কর্মরত ছিলেন।

তিনি শাহরাস্তি উপজেলার টামটা উত্তর ইউনিয়নের মুড়াগাঁও ভূঁইয়াবাড়ির মোহাম্মদ জাফর আলী মিয়ার ছেলে। মামলার বিবরণে জানা গেছে, ইমাম মোজাম্মেল হক মেয়েটিকে ইংরেজি পড়ানোর কথা বলে সম্পর্ক গড়ে তোলে। ১৭ নভেম্বর হাজীগঞ্জ বাজারের মকিমাবাদ ৪নং ওয়ার্ডের হাজী ম্যানশনে একটি ফ্ল্যাট বাসা ভাড়া নেন। পরে মেয়েটিকে পড়ানোর কথা বলে সেখানে নিয়ে ধর্ষণ করেন।

হাজীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. আলমগীর হোসেন রনি যুগান্তরকে বলেন, মোজাম্মেল হকের মোবাইলে ওই মেয়ের আপত্তিকর ছবি পাওয়া গেছে। তিনি আরও জানান, ওই ইমাম মাত্র ৫০০ টাকা দিয়ে একদিনের জন্য ওই ফ্ল্যাট ভাড়া করেছিল।

ফেনী : ছাগলনাইয়ায় ধর্ষণের শিকার সাত বছরের শিশুটি রোববার বিকালে আদালতে জবানবন্দি দিয়েছে। ফেনীর জ্যেষ্ঠ বিচারিক হাকিম তানিয়া ইসলাম জবানবন্দি রেকর্ড করেন। পরে আদালতের নির্দেশে শিশুটিকে তার মায়ের হেফাজতে দেয়া হয়। পুলিশ ও আদালত সূত্র জানায়, শুক্রবার দুপুরে মো. বাহার নামে এক যুবক শিশুটির হাতে ১০ টাকার নোট ধরিয়ে দিয়ে তাকে ধর্ষণ করে। আসামি বাহার ফেনীর জ্যেষ্ঠ বিচারিক হাকিম মো. জাকির হোসাইনের আদালতে ধর্ষণের কথা স্বীকার করে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দিয়েছে।

রূপগঞ্জ (নারায়ণগঞ্জ) : কিশোরীকে ধর্ষণের অভিযোগে তার সৎ বাবাকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। রাজধানীর ভাটারার জগন্নাথপুর থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়। রূপগঞ্জের পূর্বাচল ক্যাম্পের সিপিসি-৩ এর মেজর আবদুল্লাহ-আল মেহেদী প্রেস ব্রিফিংয়ে জানান, স্ত্রীর অনুপস্থিতিতে জগন্নাথপুর এলাকার ভাড়া বাড়িতে কিশোরী মেয়েকে ধর্ষণ করে সে। বিষয়টি টের পেয়ে কিশোরীর মা ভাটারা থানায় মামলা করেন।

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত