৩৩ দিনে সড়কে ঝরল ২৯৭ প্রাণ

দুই জেলায় বাস-লেগুনার সংঘর্ষে নিহত ১৬

বিভিন্ন স্থানে আরও ৭ জনের মৃত্যু

  যুগান্তর ডেস্ক ০৩ জুন ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

সুনামগঞ্জের দক্ষিণ সুনামগঞ্জ ও সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়ায় যাত্রীবাহী বাস ও লেগুনার মুখোমুখি সংঘর্ষে ১৬ জন নিহত হয়েছেন। মর্মান্তিক এ দুটি ঘটনায় আহত হয়েছেন অন্তত ১০ জন। এছাড়া দেশের আরও ছয় জেলায় সড়ক দুর্ঘটনায় ৭ জন নিহত ও ৩৮ জন আহত হয়েছেন। এর মধ্যে লক্ষ্মীপুরে ট্রাকচাপায় প্রাণ হারিয়েছেন দুই নারী।
ফাইল ছবি

সুনামগঞ্জের দক্ষিণ সুনামগঞ্জ ও সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়ায় যাত্রীবাহী বাস ও লেগুনার মুখোমুখি সংঘর্ষে ১৬ জন নিহত হয়েছেন। মর্মান্তিক এ দুটি ঘটনায় আহত হয়েছেন অন্তত ১০ জন। এছাড়া দেশের আরও ছয় জেলায় সড়ক দুর্ঘটনায় ৭ জন নিহত ও ৩৮ জন আহত হয়েছেন। এর মধ্যে লক্ষ্মীপুরে ট্রাকচাপায় প্রাণ হারিয়েছেন দুই নারী।

নাটোরের বড়াইগ্রামে মাইক্রোবাস উল্টে এক শিশু নিহত ও তার বাবা-মাসহ পরিবারের ৫ সদস্য আহত হয়েছেন। ঈদের ছুটিতে তারা গ্রামের বাড়ি যাচ্ছিলেন। এছাড়া ময়মনসিংহের ভালুকা, চট্টগ্রামের পটিয়া, মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গল ও বরিশালের গৌরনদীতে বাকিরা হতাহত হয়েছেন। এ নিয়ে গত ৩৩ দিনে সড়কে প্রাণ হারালেন ২৯৭ জন। যুগান্তর রিপোর্ট, ব্যুরো ও প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর-

তাহিরপুর (সুনামগঞ্জ) : দক্ষিণ সুনামগঞ্জ থানার ওসি হারুনুর রশীদ চৌধুরী যুগান্তরকে জানান, রোববার সকাল ৭টার দিকে ঢাকা থেকে ছেড়ে আসে লিমন পরিবহন নামে (ঢাকা মেট্রো-ব ১৫-০৮০১) একটি যাত্রীবাহী বাস। সিলেট সুনামগঞ্জ আঞ্চলিক সড়কের দিরাই পয়েন্টে যাত্রীদের নামিয়ে দিয়ে বাসটি ফের সুনামগঞ্জ যাচ্ছিল। পথে দিরাই পয়েন্টে যাত্রীবাহী লেগুনার সঙ্গে বাসটির মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। বাস ও লেগুনটি রাস্তার পাশে একটি খাদে পড়ে যায়। এতে লেগুনার চালকসহ পাঁচ যাত্রী ঘটনাস্থলেই নিহত হন। পরে আরও একজনের মৃত্যু হয়। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন আরও অন্তত ৮ জন।

নিহতরা হলেন- দক্ষিণ সুনামগঞ্জের গাগলী গ্রামের আলী আকবরের ছেলে লেগুনা চালক রুমান মিয়া, দুর্বাকান্দা গ্রামের ইস্তফা মিয়ার ছেলে সাগর মিয়া, শাল্লা উপজেলার নিয়ামতপুর গ্রামের ফজল মিয়ার ছেলে মিলন মিয়া, একই গ্রামের মোহাম্মদ আলীর ছেলে আফজাল হোসেন, মনিন্দ্র দাসের ছেলে ক্ষিতেশ চন্দ্র দাস, দিরাই উপজেলার সিচনী রফিনগর গ্রামের ফুল মিয়ার ছেলে ফজল করিম, ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার সদর উপজেলার কুটিপাড়ার নারায়ণ চন্দ্র সাহার ছেলে শিপন কুমার সাহা।

এ ঘটনায় গুরুতর আহত দু’জনকে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ও অন্যদের সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালে নিয়ে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করা হয়।

সুনামগঞ্জ ফায়ার সার্ভিসের টিম লিডার হায়দার আলী জানান, দুর্ঘটনার পরপরই বাসের চালক ও হেলপার পালিয়ে যায়। এদিকে হতাহতদের দেখতে ঘটনাস্থলে ছুটে যান পরিকল্পনামন্ত্রী এমএ মান্নান, মুহিবুর রহমান মানিক এমপি, জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ আবদুল আহাদ, অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট হারুন-অর রশীদ, পুলিশ সুপার (সদ্য পদোন্নতিপ্রাপ্ত) মো. মিজানুর রহমান প্রমুখ। এ সময় জেলা প্রশাসনের আপৎকালীন তহবিল থেকে নিহত প্রত্যেকের পরিবারকে ২০ হাজার টাকা করে প্রদান করেন জেলা প্রশাসক।

উল্লাপাড়া (সিরাজগঞ্জ) : রোববার দুপুর ১টার দিকে বগুড়া-নগরবাড়ী মহাসড়কের উল্লাপাড়া উপজেলার বোয়ালিয়া বাজারের কাছে লেগুনা ও পাবনা এক্সপ্রেসের যাত্রীবাহী বাসের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে ঘটনাস্থলেই ৮ জন এবং পরে হাসপাতালে একজন মারা গেছেন। আহত হয়েছেন অন্তত দু’জন। হতাহতরা সবাই লেগুনার যাত্রী। আহতদের সিরাজগঞ্জ বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুননেছা জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। নিহতরা হলেন- লেগুনার চালক উল্লাপাড়ার পাগলা গ্রামের রেজাউল ইসলাম (৩২), কয়ড়া কৃষ্টপুর গ্রামের সবুজ হোসেন (৩০), মোহাম্মাদ আলী (৩৫), জয়ান উদ্দীন (৩৪), নুরে ইসলাম (৩৩), ফজলুল হক (৪৫), উল্লাপাড়ার বড়হর গ্রামের আক্তার হোসেন (৪২), বেতকান্দি গ্রামের আবদুল মান্নান (৪৫) ও কোনাগাতী গ্রামের হাফিজুল ইসলাম (৩৩)।

এলাকাবাসী ও পুলিশ জানায়, লেগুনাটি ১০ জন যাত্রী নিয়ে উল্লাপাড়া থেকে হাটিকুমরুল যাচ্ছিল। অপরদিকে পাবনা এক্সপ্রেসটি ঢাকা থেকে পাবনায় যাচ্ছিল। বোয়ালিয়া বাজারের কাছে বাস-লেগুনা মুখোমুখি সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। দুর্ঘটনার পর উল্লাপাড়া ফায়ার সার্ভিস, পুলিশ সদস্যরা হতাহতদের উদ্ধার করেন। এদিকে দুর্ঘটনার পরপর বগুড়া-নগরবাড়ী সড়কে যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। পরে পুলিশের প্রচেষ্টায় প্রায় দেড় ঘণ্টা পর যানবাহন চলাচল স্বাভাবিক হয়।

ভালুকা (ময়মনসিংহ) : ভালুকায় পৃথক দুর্ঘটনায় এক ইউপি সদস্যসহ দু’জন নিহত ও অন্তত পাঁচজন আহত হয়েছেন। রোববার দুপুরে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কে পৌরসভার বাঘরাপাড়া এলাকায় যাত্রীবাহী ভ্যানকে একটি লরি চাপা দিলে নাজমুল (৪০) নামে একজন মারা যান। নিহত নাজমুল গফরগাঁও উপজেলার রসুলপুর গ্রামের রতন মিয়ার ছেলে। এ সময় আহত হয়েছেন আরও ৫ জন। অপরদিকে শনিবার রাতে একই মহাসড়কের উপজেলার ভরাডোবা বাসস্ট্যান্ড এলাকায় রাস্তা পারাপারের সময় ট্রাকচাপায় নজরুল ইসলাম (৪৫) নামে এক ইউপি সদস্য নিহত হয়েছেন। নিহত নজরুল ইসলাম ফুলবাড়িয়া উপজেলার ১৩ নম্বর ভবানীপুর ইউনিয়নের ৩ নম্বর ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য ও ভবানীপুর গ্রামের মৃত জাহান আলীর ছেলে।

লক্ষ্মীপুর : লক্ষ্মীপুরে ট্রাকচাপায় একটি ব্যাটারিচালিত অটোরিকশার দুই নারী যাত্রী নিহত হয়েছেন। তারা হলেন- খুশি আক্তার (৩২) ও পূর্ণিমা আক্তার (৩৫)। নিহত খুশি উপজেলার গঙ্গাপুর এলাকার শাজাহানের স্ত্রী ও পূর্ণিমা একই এলাকার শাহ আলমের স্ত্রী। রোববার দুপুরে সদর উপজেলার দালাল বাজার এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। এ সময় শিশুসহ আরও ৪ জন আহত হয়েছে। ঘাতক ট্রাকটি আটক করেছে স্থানীয়রা। লক্ষ্মীপুর সদর মডেল থানার এসআই আবু নাছের বলেন, ট্রাকটি পুলিশের হেফাজতে রয়েছে। এ ঘটনায় আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

চট্টগ্রাম : পটিয়ায় মাইক্রোবাসের ধাক্কায় নিতাই সর্দার (৩০) নামে এক মোটরসাইকেল আরোহী নিহত হয়েছেন। রোববার দুপুর দেড়টায় উপজেলার বাইপাস সড়কের ভাটিখাইন এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহত নিতাই সর্দার পটিয়া পৌরসভার ২নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা মৃত উপেন্দ্র সর্দারের ছেলে।

বড়াইগ্রাম (নাটোর) : বড়াইগ্রামে মাইক্রোবাস উল্টে মারিয়া তাসনিম (৮) নামে এক শিশু নিহত ও একই পরিবারের আরও পাঁচজন আহত হয়েছেন। রোববার সকালে ঈদের ছুটিতে গ্রামের বাড়ি যাওয়ার পথে বনপাড়া-হাটিকুমরুল মহাসড়কের বনপাড়া পাটোয়ারী ফিলিং স্টেশনের সামনে এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহত মারিয়া ঢাকার কদমতলী থানায় কর্মরত উপপরিদর্শক আবদুল জলিলের মেয়ে। এ ঘটনায় আবদুল জলিল, তার স্ত্রী রিনা খাতুন, ছেলে তাসনিম আহমেদ, অপর মেয়ে জান্নাতুল মাওয়া এবং মাইক্রোবাসের চালক আহত হয়েছেন। তাদের স্থানীয় হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসার পর রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

শ্রীমঙ্গল (মৌলভীবাজার) : শ্রীমঙ্গলে অসুস্থ বন্ধুকে দেখতে গিয়ে সড়ক দুর্ঘটনায় পারভেজ (২৪) নামে এক যুবক নিহত হয়েছেন। শনিবার রাত সাড়ে আটটায় মোটরসাইকেলে অসুস্থ বন্ধুকে দেখতে কালাপুর ইউনিয়নের রাজাপুর গ্রামে যাওয়ার পথে ইছুবপুর নামক এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। এ সময় একটি কাভার্ডভ্যানের সঙ্গে মুখোমুখি সংঘর্ষ হলে ঘটনাস্থলেই মারা যান তিনি। নিহত পারভেজ শহরের মক্কা সুপার মার্কেটের একজন মোবাইল দোকান ব্যবসায়ী ছিলেন।

গৌরনদী : ঢাকা-বরিশাল মহাসড়কে রোববার দুপুরে গৌরনদী উপজেলার বাটাজোর এলাকায় যাত্রীবাহী দুটি বাসের সংঘর্ষে উভয় বাসের চালকসহ ১০ যাত্রী আহত হয়েছে। গুরুতর আহত চালক আক্কাস শেখসহ ২ জনকে বরিশাল শেবাচিম হাসপাতালে ও ৩ যাত্রীকে গৌরনদী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। গৌরনদী মডেল থানা পুলিশ দুর্ঘটনাকবলিত বাস ২টিকে হেফাজতে নিয়েছে।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×