শিল্পে আগাম করের বিষয়টি বিবেচনা করা হচ্ছে

এনবিআর চেয়ারম্যান

  যুগান্তর রিপোর্ট ১৯ জুন ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

শিল্পে আগাম করের বিষয়টি বিবেচনা করা হচ্ছে
জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) চেয়ারম্যান মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়া, ফাইল ফটো

প্রস্তাবিত বাজেটে শিল্পের মূলধনী যন্ত্রপাতি আমদানিতে ৫ শতাংশ আগাম কর আরোপের বিষয়টি পুনর্বিবেচনা করা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) চেয়ারম্যান মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়া।

এছাড়া আরও কিছু বিষয়ে ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে আপত্তি পাওয়া গেছে, সেগুলো আলাপ-আলোচনার ভিত্তিতে সমাধান করা হবে।

তিনি বলেন, অগ্রিম আয়কর ও আগাম কর নিয়ে শিল্প উদ্যোক্তাদের কাছ থেকে আপত্তি এসেছে। ব্যবসায়ী ও শিল্প উদ্যোক্তারা যাতে ক্ষতিগ্রস্ত না হয় তাই বিষয়টি বিবেচনা করা হচ্ছে।

রাজধানীর একটি হোটেলে মঙ্গলবার ফরেন ইনভেস্টর্স চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির (ফিকি) মধ্যাহ্নভোজ সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন ফিকির সভাপতি শেহজাদ মুনীম। সভায় দেশি-বিনিয়োগকারীরা বাজেটের অসঙ্গতির কথা তুলে ধরেন।

এনবিআর চেয়ারম্যান বলেন, প্রস্তাবিত বাজেট ব্যবসাবান্ধব। বিশাল রাজস্বের লক্ষ্যমাত্রা দেয়ার পরও কৃষি, শিল্পে বিশেষত অর্থনৈতিক অঞ্চল, হাইটেক পার্কসহ শিল্প স্থাপনের ক্ষেত্রে নানা ধরনের রাজস্ব অব্যাহতি দিয়েছে। এত বিশাল অব্যাহতি রাজস্ব লক্ষ্যমাত্রা আদায়ের জন্য চ্যালেঞ্জিং হবে। তার পরও সঠিকভাবে রাজস্ব আদায়ে সমস্যা হবে না। এনবিআর বেঁধে দেয়া লক্ষ্যমাত্রা আদায় করতে পারবে।

নতুন ভ্যাট আইনকে সব মহল থেকে স্বাগত জানানো হয়েছে- উল্লেখ করে তিনি বলেন, বাজেটে চিনির শুল্ক বাড়ানোয় কেজিতে ৫ টাকা দাম বাড়বে। এতে জনগণের ওপর প্রভাব পড়বে না।

কারণ বর্তমানে বাজারে অনেক সবজির দামই চিনির চেয়ে বেশি। অন্যদিকে ভোজ্যতেলের উৎপাদন ও সরবরাহ পর্যায়ে ভ্যাট অব্যাহতি প্রত্যাহার করায় লিটারে ৩-৫ টাকা দাম বাড়তে পারে, যা সহনীয়। তিনি আরও বলেন, বাজেটে কিছু পণ্যের আমদানি শুল্ক কমানোও হয়েছে। বাজারে এর প্রতিফলন দেখা যায় না।

শেয়ারবাজারকে ‘ফটকা বাজার’ মন্তব্য করে মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়া বলেন, গুজবসহ বেশ কিছু কারণে শেয়ারবাজার ভালো অবস্থানে নেই। বাজেটের আগে স্টক এক্সচেঞ্জ থেকে কিছু দাবি-দাওয়া জানানো হয়েছিল। কর অব্যাহতিপ্রাপ্ত লভ্যাংশের সীমা ২৫ হাজার টাকা থেকে বাড়িয়ে ৫০ হাজার টাকা নির্ধারণসহ বেশ কিছু ক্ষেত্রে প্রণোদনা দেয়ার চেষ্টা করেছি।

স্বাগত বক্তব্যে শেহজাদ মুনীম বলেন, প্রস্তাবিত বাজেটে রিটেইন আর্নিংসের ওপর ১৫ শতাংশ হারে করারোপের প্রস্তাব করা হয়েছে। এতে বিদেশি বিনিয়োগ কমার আশঙ্কা রয়েছে। কারণ বর্তমানে বহুজাতিক কোম্পানিগুলো ৩৬-৪০ শতাংশ বিনিয়োগ রিটেইন আর্নিংস থেকে করে। করারোপের ফলে ডিভিডেন্ট দেয়া হলে, কোম্পানিগুলোর বেশির ভাগ অর্থ বিদেশে চলে যাবে।

মূল্য সংযোজন কর (ভ্যাট) আইন বাস্তবায়নে আরও ছয় মাস সময়ের সুপারিশ করে এফআইসিসিআই সভাপতি বলেন, ভ্যাট ও সম্পূরক শুল্ক আইনের ধারাগুলোর সঙ্গে সঙ্গতিপূর্ণ হতে স্বচ্ছ ও ভালো কাঠামোর প্রতিষ্ঠানগুলোর পর্যাপ্ত সময় প্রয়োজন। তাই আরও ছয় মাস সময়ের আহ্বান জানান তিনি।

প্রশ্নোত্তর : প্রশ্নোত্তর পর্বে ব্যবসায়ীরা প্রস্তাবিত বাজেটের নানা অসঙ্গতির কথা তুলে ধরেন। বেসিস সভাপতি সৈয়দ আলমাস কবির সোস্যাল মিডিয়া ও ভার্চুয়াল বিজনেসের ওপর ৭ দশমিক ৫ শতাংশ ভ্যাট প্রত্যাহারের প্রস্তাব দেন।

রবির সিইও মাহতাব উদ্দিন আহমেদ বলেন, দেশে একমাত্র মোবাইল অপারেটররা বিটিআরসি ও এনবিআরের মতো দুটো রেগুলেটরি সংস্থাকে রাজস্ব দেয়। ভ্যাট-ট্যাক্স সব মিলিয়ে প্রায় ৫০ শতাংশ রাজস্ব দিতে হয়। এরপরও মুনাফার আশায় ধারাবাহিকভাবে দেশে বিনিয়োগ করে যাচ্ছে। আগে মুনাফা না করলেও দশমিক ৭৫ শতাংশ হারে টার্নওভার ট্যাক্স দিতে হতো। এটাকে প্রস্তাবিত বাজেটে ২ শতাংশ করা হয়েছে। এটা চরম বৈষম্য।

ঘটনাপ্রবাহ : বাজেট ২০১৯

আরও
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×