খুনিদের গ্রেফতারে নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী: ওবায়দুল কাদের

পুলিশ বসে নেই -স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী * আশপাশের লোক কেন এগিয়ে এলো না -তথ্যমন্ত্রী

  যুগান্তর রিপোর্ট ২৮ জুন ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

খুনিদের গ্রেফতারে নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী: ওবায়দুল কাদের

আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, বরগুনায় প্রকাশ্যে যুবক রিফাত শরীফকে কুপিয়ে হত্যার ঘটনায় কঠোর অবস্থানে সরকার।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এরই মধ্যে জড়িতদের যে কোনো মূল্যে গ্রেফতার করে বিচারের আওতায় নিয়ে আসার নির্দেশ দিয়েছেন। সচিবালয়ে বৃহস্পতিবার সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী এ কথা বলেন।

এদিকে পুলিশ বসে নেই জানিয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেছেন, ঘটনায় জড়িত সব আসামিকে যত দ্রুত সম্ভব গ্রেফতার করা হবে।

চট্টগ্রামে বৃহস্পতিবার ‘বাংলাদেশ উইমেন পুলিশ অ্যাওয়ার্ড ২০১৯’ প্রদান অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন। অন্যদিকে রাজধানীতে এক অনুষ্ঠান শেষে আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক এবং তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ প্রশ্ন রেখেছেন- ‘ঘটনার সময় আশপাশের লোক কেন এগিয়ে এলো না?’

বরগুনা শহরের কলেজ রোডে বুধবার রিফাত শরীফকে (২৩) প্রকাশ্যে কুপিয়ে হত্যা করে একদল যুবক। এ নিয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে বৃহস্পতিবার ওবায়দুল কাদের বলেন, এ ঘটনায় অলরেডি একজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। বাকিদেরও গ্রেফতার করার প্রক্রিয়া চলছে। পুলিশ অত্যন্ত কঠোর অবস্থানে আছে।

তিনি বলেন, এটা একটা নৃশংস ঘটনা, একটা মর্মান্তিক ঘটনা। আমি যতটা পুলিশ সোর্সে জানতে পেরেছি এবং আমাদের মিডিয়ায়ও খবর এসেছে- বিষয়টি অনেকটা ব্যক্তিগত সম্পর্কের... প্রেমঘটিত।

সেখান থেকে ব্যক্তিগত বিদ্বেষের প্রকাশ ঘটেছে খুব নগ্নভাবে। বুধবার নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে আওয়ামী লীগের একজন ইউপি সদস্যকেও কুপিয়ে হত্যা করা হয়েছে।

এসব ঘটনা আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতি কিনা জানতে চাইলে সেতুমন্ত্রী বলেন, সামগ্রিকভাবে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতি হয়েছে এটা কী বলা যায়? এগুলো দুয়েকটি বিচ্ছিন্ন ঘটনা।

রূপগঞ্জের ঘটনার শিকার রাজনৈতিক দলের সদস্য হলেও ঘটনাটা তো রাজনৈতিক কারণে হয়নি। তিনি বলেন, দেশে বিরোধী দল আছে কিন্তু তারা এমন কোনো পরিস্থিতি বাংলাদেশে সৃষ্টি করতে পারেনি। যেখানে আইনশৃঙ্খলার অবনতি হবে। বরং তারা নিজেরা নিজেদের সাথে সংঘাতে লিপ্ত। তাদের দলীয় অফিসে তালা দিচ্ছে তাদেরই লোকেরা। এটাকে যদি অবনতি বলেন, তবে অবনতি হতে পারে।

পুরান ঢাকার দর্জি বিশ্বজিৎকে কুপিয়ে হত্যার বিচার হলে এ ধরনের ঘটনার কি পুনরাবৃত্তি হতো? জবাবে ওবায়দুল কাদের বলেন, বিশ্বজিৎ হত্যার একটা রায় তো হয়েছে।

কীভাবে বলেন, বিচার হয়নি। বিচার কার্যক্রম চলছে। অনেকের ফাঁসির আদেশ হয়েছে, যাবজ্জীবন হয়েছে। সরকারের নমনীয় অবস্থানের কোনো প্রমাণ এখানে নেই।

বিচারটা নিম্ন আদালত থেকে উচ্চ আদালতে যাবে। তারপর আপিল বিভাগে যাবে, সবকিছু মিলিয়ে তো এটা একটা বিচার প্রক্রিয়ার ব্যাপার। এখানে সরকার তো কোনো ছাড় দেবে না।

বরগুনার ঘটনাকে দুঃখজনক উল্লেখ করে চট্টগ্রামে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেন, ‘আমাদের পুলিশ কিন্তু বসে নেই। জোর গলায় বলতে পারি, যত ঘটনাই ঘটুক... দক্ষতা-সক্ষমতায় পিছিয়ে পড়া পুলিশ আমাদের নয় এখন।

আপনি যদি ১০ বছর আগের পুলিশ আর এই পুলিশ চিন্তা করেন, তাহলে ভুল করবেন। আমাদের পুলিশ অনেক সক্ষম, অনেক দক্ষ এবং অনেক ইনফরমেটিভ। তিনি বলেন, ‘এই যে নুসরাতের হত্যাকাণ্ডটা।

এটা কী আমাদের আইনশৃঙ্খলা বাহিনী ধরে ফেলছে না? পিবিআই তদন্ত করে আসল যারা ক্রিমিনাল তাদের ধরে আইনের সম্মুখে দিয়েছে না। আগের পুলিশ আর এই পুলিশ এক নয়। এরা অন্তত সক্ষম, দক্ষ এবং যে কোনো চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করতে পারে।’

বরগুনার ঘটনাটি দেশের আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতির নজির কিনা- প্রশ্নে আসাদুজ্জামান কামাল বলেন, ‘আইনশৃঙ্খলার অবনতি হবে কেন? আমাদের পুলিশরা তো সঙ্গে সঙ্গেই কাজ করছেন। এ ধরনের দু-একটি ঘটনা তো...।’

সেগুনবাগিচায় বৃহস্পতিবার এক অনুষ্ঠান থেকে বের হয়ে তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ সাংবাদিকদের বলেন, এটি অত্যন্ত বর্বরোচিত ঘটনা। আমি এর তীব্র নিন্দা জানাই।

একই সঙ্গে আমার নিজের কাছেই প্রশ্ন- ঘটনার সময় আশপাশের লোক কেন এগিয়ে এলো না? তথ্যমন্ত্রী আরও বলেন, তবে তার স্ত্রী যেভাবে দুর্বৃত্তদের প্রতিহত করার চেষ্টা করেছে, তা নিশ্চয়ই সমাজে প্রশংসার দাবি রাখে। নিজের জীবনের কথা চিন্তা না করে স্বামীকে বাঁচানোর চেষ্টা করেছিল, তাকে আমি সম্মান জানাই, শ্রদ্ধা জানাই। সরকার এ ব্যাপারে অত্যন্ত কঠোর জানিয়ে তিনি বলেন, ইতোমধ্যেই একজন গ্রেফতার হয়েছে। সব অপরাধীকে গ্রেফতার করা হবে।

আন্দোলন করার সক্ষমতা বিএনপির নেই : সচিবালয়ে বৃহস্পতিবার মন্ত্রণালয়ের চলমান উন্নয়ন কার্যক্রম ও সমসাময়িক ইস্যু নিয়ে সংবাদ সম্মেলনে এক প্রশ্নের জবাবে ওবায়দুল কাদের বলেন, ৫০০ লোক নিয়ে একটি মিছিলও বিএনপি বের করতে পারেনি। এটা কি তাদের দুর্বলতা নয়? তাদের আন্দোলন করার সাহস বা সক্ষমতা কোনোটাই নেই। তারা তাদের বিবেকের আদালতে প্রশ্ন করুক। একদিকে তারা নির্বাচনে ব্যর্থ অন্যদিকে আন্দোলনেও ব্যর্থ। বাংলাদেশ এরকম ব্যর্থ বিরোধী দল আমার জানা মতে এর আগে কখনো দেখিনি।

খালেদা জিয়ার জামিনে সরকারের হস্তক্ষেপের যে অভিযোগ বিএনপি তুলেছে তা নিয়ে সেতুমন্ত্রী বলেন, আমি বারবার বলেছি, এখানে বিচারব্যবস্থা স্বাধীন। কোনো প্রকার বাধা ও হস্তক্ষেপ আগেও করেনি, এখনও করবে না। ভিন্ন প্রশ্নে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, যদি তাদের (বিএনপির) সাহস থাকে, সক্ষমতা থাকে আন্দোলন করে মুক্তি নিয়ে আসুক আমাদের কোনো আপত্তি নেই, যেভাবে আনুক। বেগম জিয়াকে নিয়ে তারা আন্দোলন করুক না। অসুস্থতা নিয়ে রাজনীতি করে, মুক্তি নিয়ে কোনো আন্দোলন আজ পর্যন্ত করতে পারেনি।

ঘটনাপ্রবাহ : রিফাতকে প্রকাশ্যে কুপিয়ে হত্যা

আরও
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×