অলির ‘জাতীয় মুক্তি মঞ্চ’র উদ্যোগকে স্বাগত বিএনপির

সরকার আইনশৃঙ্খলা রক্ষা করতে সম্পূর্ণ ব্যর্থ -মির্জা ফখরুল

  যুগান্তর রিপোর্ট ২৯ জুন ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর
মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। ফাইল ছবি

এলডিপির সভাপতি কর্নেল (অব.) অলি আহমদের ‘জাতীয় মুক্তি মঞ্চ’র উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়েছে বিএনপি।

দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, একটা রাজনৈতিক দলের সম্পূর্ণ স্বাধীনতা আছে যে কোনো ধরনের উদ্যোগ ও রাজনৈতিক কর্মসূচি নেয়ার। গণতন্ত্রের জন্য ও দেশনেত্রী খালেদা জিয়ার মুক্তির জন্য যে কোনো উদ্যোগকে আমরা স্বাগত জানাই।

রাজধানীর শেরেবাংলা নগরে শুক্রবার বিকালে বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানের মাজার জিয়ারতের পর সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে বিএনপির মহাসচিব এ প্রতিক্রিয়া জানান।

জাতীয় প্রেস ক্লাবে বৃহস্পতিবার এক সংবাদ সম্মেলনে ২০ দলীয় জোটের অন্যতম শরিক লিবারেল ডেমোক্র্যাটিক পার্টির (এলডিপি) সভাপতি অলি আহমদ গণতন্ত্র ফিরিয়ে আনতে জাতীয় সংসদের পুনর্নির্বাচন ও খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে ‘জাতীয় মুক্তি মঞ্চ’ নামে নতুন প্লাটফর্ম গঠনের ঘোষণা দেন।

সংবাদ সম্মেলনে ২০ দলীয় জোটের শরিক কল্যাণ পার্টি, জাতীয় গণতান্ত্রিক পার্টি (জাগপা), বাংলাদেশ খেলাফত মজলিশের একটি অংশ ও জাতীয় আন্দোলনের শীর্ষ নেতারাও উপস্থিত ছিলেন।

বগুড়া-৬ আসনের উপনির্বাচনে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত দলীয় সদস্য গোলাম মোহাম্মদ সিরাজকে নিয়ে বিএনপির মহাসচিব জিয়াউর রহমানের সমাধিতে যান। এ সময় তারা জিয়াউর রহমানের মাজারে পুষ্পমাল্য অর্পণ করেন এবং তার আত্মার মাগফিরাত কামনা করে বিশেষ মোনাজাত করেন।

আরও উপস্থিত ছিলেন দলের ভাইস চেয়ারম্যান বরকতুল্লাহ বুলু, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা হেলালুজ্জামান তালুকদার লালু, মাহবুবুর রহমান, নির্বাহী কমিটির সদস্য তাবিথ আউয়াল, চেয়ারপারসনের মিডিয়া উইংয়ের সদস্য শায়রুল কবির খান, বগুড়া-৪ আসনের সংসদ সদস্য মোশাররফ হোসেন প্রমুখ।

সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে মির্জা ফখরুল বলেন, বর্তমানে বরগুনার মতো ঘটনা প্রতিনিয়ত ঘটছে। প্রতিদিন খারাপ থেকে খারাপ হচ্ছে। এ ঘটনা প্রমাণ করে, এ সরকার আইনশৃঙ্খলা রক্ষা করতে সম্পূর্ণ ব্যর্থ হয়েছে। সর্বক্ষেত্রে দলীয়করণ করার কারণে বিশেষ করে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে দলীয়করণ করার কারণেই এসব ঘটনা ঘটছে।

তিনি বলেন, যখনই অপরাধী শাস্তি না পায় এবং দলীয়করণে তারা যদি মুক্ত হয়ে যায়; স্বাভাবিক কারণে অন্যান্য অপরাধী সেই দলের ছত্রছায়ায় গিয়ে অপরাধ করার প্রবণতা আরও বাড়িয়ে দেয়। সেখানেই আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতি ঘটে।

বিএনপির মহাসচিব বলেন, হত্যাকাণ্ড বেড়েছে যেহেতু দেশে আইনের শাসন নেই। যেহেতু জবাবদিহিতামূলক কোনো সরকার নেই। জনগণ এ সরকারকে নির্বাচিত করেনি, পার্লামেন্টে জনগণের কোনো প্রতিনিধি নেই, সেই কারণে এসব ঘটনা ঘটছে। এখানে ন্যায়বিচার নেই।

তিনি বলেন, আমরা খুব পরিষ্কারভাবে দেখতে পাচ্ছি বিগত এক দশক ধরে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী শুধু নয়, বিচার বিভাগকেও দলীয়করণ করা হয়েছে। সেই ক্ষেত্রে খুব স্বাভাবিকভাবে আইনশৃঙ্খলার অবনতি হবে, হত্যা বাড়বে, ধর্ষণ বাড়বে- এটাই স্বাভাবিক। ১০ বছরে যত হত্যা-নির্যাতন-ধর্ষণ হয়েছে, তা নজিরবিহীন।

জাতীয় সংসদে আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য মোহাম্মদ নাসিম বলেছেন, ড. কামাল হোসেন আওয়ামী লীগের পক্ষে খেলেছেন- এর প্রতিক্রিয়া জানতে চাইলে মির্জা ফখরুল বলেন, এসব পলিটিক্যাল রেটোরিক্টস। এগুলোর উত্তর পাবেন না আমার কাছে।

বগুড়া-৬ আসনে নির্বাচিত সদস্য গোলাম মোহাম্মদ সিরাজ বলেন, বগুড়া উপনির্বাচনে যে ভোট হয়েছে তা উৎসবমুখর বলব না। এবার ভোট হয়েছে মানুষের মনে বিষাদ, মানুষ ধিক্কার নিয়ে ভোট দিয়েছে। মানুষের ভোটের ওপর অনাস্থা, অনাগ্রহ। আপনারা জানেন, গত ১০ বছর ভোটের সংস্কৃতি নষ্ট করে দিয়েছে এ সরকার, মানুষ ভোট দিতে পারছে না।

তিনি বলেন, এ সরকার ভোটের সরকার নয়। দিনের ভোট রাতে হয়। যাহোক মানুষের এই অনাগ্রহ ও মানুষের অনিচ্ছার মধ্যে বগুড়ায় ভোট হয়েছে। তারপরও বিএনপি সিদ্ধান্ত নিয়েছে বলে যে আসন খালেদা জিয়ার আসন, যে আসন জিয়া পরিবারের আসন, তা যাতে বেহাত না হয় সে জন্য বগুড়ার মানুষ ভোট দিয়ে আমাকে নির্বাচিত করেছে।

জিএম সিরাজ বলেন, সারা দেশে আমাদের হাজার হাজার, লাখ লাখ নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে মামলা-হামলা। মাঠেও আমরা যেতে পারি না, বক্তৃতা দিতে পারি না, মিছিল করতে পারি না। মিলাদ-মাহফিল করলে পুলিশের অনুমতি লাগে। সেখানে আমরা ৬ জন হই, ৭ জন হই আমরা সংসদের ভেতরে-বাইরে যখন স্পিকারের অনুমতি নিয়ে ২/৪ মিনিট কথা বলতে পারব- ১০ কোটি মানুষ শুনবে, গণতন্ত্রের মুক্তির কথা শুনবে। আমাদের নেত্রী খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবির কথা শুনবে।

তিনি আরও বলেন, বিনা অপরাধে মিথ্যা মামলায় আমাদের নেতা তারেক রহমান আজ নির্বাসিত। তিনি দেশে প্রত্যাবর্তন করতে পারবেন, সেটা আমরা সংসদে বলতে পারব। সবচেয়ে বড় কথা মানুষ আজ বাকরুদ্ধ। গণমাধ্যমের সাংবাদিকদেরও আইনকানুন দিয়ে কণ্ঠরোধ করে রাখা হয়েছে, জনগণের পক্ষে আমরা সংসদে কথা বলব।

নির্বাচন কমিশন ভোটের ফলাফলের গেজেট প্রকাশ করলে সংসদ সদস্য হিসেবে শপথ নেবেন বলে জানান গোলাম মোহাম্মদ সিরাজ।

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

 
×