রিফাত হত্যা প্রসঙ্গে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

প্রভাবশালী জড়িত থাকলে তাকেও বের করব

  যুগান্তর রিপোর্ট ০৩ জুলাই ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল
স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল। ফাইল ছবি

বরগুনায় প্রকাশ্যে স্ত্রীর সামনে স্বামী রিফাত শরীফ হত্যা প্রসঙ্গে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেছেন, ঘটনার সঙ্গে জড়িত সবাইকে ধরেছি।

প্রভাবশালী কেউ থাকলে, তাকেও বের করব। আপনারা নিশ্চয়ই দেখেছেন কোনো প্রভাবশালী এমনকি নির্বাচিত প্রতিনিধিকেও আমরা ক্ষমা করছি না। প্রধানমন্ত্রী সুশাসন প্রতিষ্ঠার জন্য যা যা করা দরকার সবই করছেন। এর জন্য কোনো প্রভাবশালী, কোনো জনপ্রতিনিধি বা কোনো নেতা আমাদের কাছে অন্তরায় নয়।

যে অন্যায় করবে সে আইনের মুখোমুখি হবে। মঙ্গলবার দুপুরে রাজধানীর সিরডাপ মিলনায়তনে এক অনুষ্ঠান শেষে বেরিয়ে যাওয়ার সময় সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন।

রিফাত শরীফ হত্যা মামলার প্রধান আসামি সাব্বির হোসেন নয়ন ওরফে নয়ন বন্ড বন্দুকযুদ্ধে নিহত হওয়া প্রসঙ্গে মন্ত্রী বলেন, ‘যে তিনজন নৃশংসভাবে রিফাত শরীফকে কুপিয়ে হত্যা করেছে, তাদের খুঁজছিলাম।

পুলিশ ও নিরাপত্তা বাহিনী, গোয়েন্দা বাহিনী তার (নয়ন) পিছু নিয়ে সর্বক্ষণ চেষ্টা করছিল তাকে ধরার জন্য। আগেই বলেছিলাম সবাইকে ধরে ফেলব। কিন্তু নয়ন শুধু পালিয়ে বেড়াচ্ছিল। আমি যতটুকু শুনেছি, সে অবস্থান চেঞ্জ করছিল। শেষ পর্যন্ত কেন গুলিবিনিময় করতে হয়েছিল- সেটি না জেনে কিছু বলতে পারব না।’

তিনি বলেন, ‘আমি যতটুক জানি, নিশ্চয়ই সে (নয়ন) অস্ত্র দেখিয়েছিল, গুলি বা নিজেকে আড়াল করার প্রচেষ্টা চালিয়েছিল। সেজন্য পুলিশ নিজের নিরাপত্তায়, জীবন বাঁচানোর জন্য হয়তো এটি করেছে। এ বিষয়ে আমাকে আরও জানতে হবে।’ মন্ত্রী বলেন, ‘এই নৃশংস হত্যাকাণ্ডে যে বর্বরতা ছেলেরা চালিয়েছে, এ ধরনের ঘটনা যেন বাংলাদেশে আর না হয় আমরা সেটাই চাই।’

নয়নকে জীবিত ধরা হলে আরও অনেক কিছু বেরিয়ে আসত কিনা এমন প্রশ্নের জবাবে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘আপনারা নিশ্চিন্তে থাকুন, কারা এর পেছনে ছিল, হয়তো আপনারা আরও অনেক কিছু জানতে পারবেন। আমরা ইনকোয়ারি করার পর সবই আপনারা জানতে পারবেন।’

সিরডাপ মিলনায়তনে সম্প্রীতি বাংলাদেশ আয়োজিত ‘শতবর্ষের পথে বঙ্গবন্ধু ও সম্প্রীতির বাংলাদেশ’ শীর্ষক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী।

শ্যামলী নাসরীন চৌধুরীর সভাপতিত্বে সভায় তথ্য প্রতিমন্ত্রী ডা. মুরাদ হাসান, জাতীয় প্রেস ক্লাবের সাবেক সভাপতি মুহাম্মদ শফিকুর রহমান এমপি, বিশিষ্ট সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব রামেন্দু মজুমদার, সংসদ সদস্য আরমা দত্ত, কূটনীতিক ও সাবেক সচিব আতিকুর রহমান, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উদযাপন জাতীয় বাস্তবায়ন কমিটির প্রধান সমন্বয়ক ড. কামাল আবদুল নাসের চৌধুরী, নিরাপত্তা বিশ্লেষক মেজর জেনারেল (অব.) মোহাম্মদ আলী শিকদার, সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি গোলাম কুদ্দুস, সাবেক রাষ্ট্রদূত ও সচিব একেএম আতিকুর রহমান, বিএসএমএমইউ’র সাবেক ভিসি ডা. কামরুল হাসান, খ্রিস্টান অ্যাসোসিয়েশনের মহাসচিব উইলিয়াম প্রলয় সমদ্দার, সাবেক তথ্য ও সাংস্কৃতিক সচিব মো. নাসির উদ্দিন আহমেদ, স্বাচিবের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ডা. উত্তম কুমার বড়ুয়া, শহীদ পরিবারের সদস্য ডা. নুজহাত চৌধুরী প্রমুখ বক্তব্য দেন।

অনুষ্ঠানে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, আমরা সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী পালন করতে যাচ্ছি। আমি বিশ্বাস করি- আমরা সবাই মিলে বঙ্গবন্ধুর যে স্বপ্ন সেই সোনার বাংলা গড়ে তুলতে পারব।

বঙ্গবন্ধু ছিলেন অসাম্প্রদায়িক চেতনায় বিশ্বাসী। আমরাও অসাম্প্রদায়িক চেতনায় বিশ্বাস করি। আমরা দেশকে সেই জায়গাতেই নিয়ে যেতে চাই। বঙ্গবন্ধুকে আমরা হৃদয়ে ধারণ করতে চাই।

অনুষ্ঠানে তথ্য প্রতিমন্ত্রী ডা. মুরাদ হাসান বলেন, আওয়ামী লীগের এমন দৈন্যদশা হয়নি যে যুদ্ধাপরাধীদের সন্তানদের নিয়ে আওয়ামী লীগকে পরিচালিত করতে হবে। যুদ্ধাপরাধীদের সন্তানের রক্তে বেইমানি আছে, এদের দলে নিলে যে কোনো সময় এরা বেইমানি করবে। এদের দলে আশ্রয় দেয়ার কোনো প্রয়োজন নেই। তিনি আরও ব?লেন, যুদ্ধাপরাধীদের সন্তানদের আমরা আওয়ামী লীগ করতে দিতে পারি না। এদেরকে দলে আশ্রয় দেয়ার কোনো প্রয়োজন নেই।

ডা. মুরাদ হাসান বলেন, যে আওয়ামী লীগ আছে সেই আওয়ামী লীগকেই সঙ্গে নিয়ে বঙ্গবন্ধুকন্যা অনেক দূর এগিয়ে যাচ্ছেন। প্রতিদিন এগিয়ে যাচ্ছে বাংলাদেশ। আগামীতে শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আমরা বিশ্ব জয় করব। জাতির পিতার চেতনা মানুষের মধ্যে ছড়িয়ে দেব। আমরাই পারব বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা গড়তে। তাই এই আওয়ামী লীগে আর কারও প্রয়োজন নেই।

বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উদযাপনের প্রসঙ্গ উল্লেখ করে রামেন্দু মজুমদার বলেন, জন্মদিন মানে শুধু উৎসবই নয়। বঙ্গবন্ধুর আদর্শ লালন ও তার প্রচার করতে হবে। আবার বঙ্গবন্ধুর জন্মদিন উপলক্ষে দেশের প্রতিটি প্রতিষ্ঠান একটি করে ভালো কাজ করতে পারে। এর মধ্য দিয়ে আমরা বঙ্গবন্ধুকে স্মরণ করতে পারি। সভায় মূল প্রবন্ধ পাঠ ও সঞ্চালনা ক?রেন অধ্যাপক ডা. মামুন আল মাহতাব স্বপ্নীল।

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×