কাঞ্চন পৌরসভার নতুন মেয়র আ’লীগের রফিক

প্রকাশ : ২৬ জুলাই ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

  রূপগঞ্জ (নারায়ণগঞ্জ) প্রতিনিধি

নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ উপজেলার কাঞ্চন পৌরসভা নির্বাচনে মেয়র পদে বিপুল ভোটের ব্যবধানে জয়ী হয়েছেন আওয়ামী লীগের প্রার্থী রফিকুল ইসলাম রফিক।

বেসরকারি ফলাফলে নৌকা প্রতীকে তিনি পেয়েছেন ১৬ হাজার ২৮২ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী দেওয়ান আবুল বাশার বাদশা নারিকেল গাছ প্রতীকে ৬ হাজার ৯৪৭ ভোট পেয়েছেন।

এ ছাড়া অপর দুই মেয়র প্রার্থী আমিরুল ইসলাম ইমন (মোবাইল ফোন) ২ হাজার ৫৯২ ভোট ও মজিবুর রহমান ভূঁইয়া (জগ) ৭৫৬ ভোট পেয়েছেন।

বৃহস্পতিবার সকাল ৯টা থেকে বিকাল ৫টা পর্যন্ত এ পৌরসভার ১৭টি কেন্দ্রে একযোগে ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়। এ নির্বাচনে ৩৫ হাজার ৬৮০ ভোটের মধ্যে পড়েছে ২৬ হাজার ৬১২টি।

এর মধ্যে বৈধ ভোটের সংখ্যা ২৬ হাজার ৫৭৬টি। এ পৌরসভায় এবারই প্রথম সব কেন্দ্রে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম) ব্যবহার করে ভোট গ্রহণ করা হয়। তবে ইভিএমে ভোট দেয়া নিয়ে অনেকেই বিড়ম্বনার কথা জানান। কালাদী শাহাজউদ্দিন জামেয়া ইসলামিয়া ফাজিল মাদ্রাসা কেন্দ্রে ভোট দেন ৮২ বছর বয়সী হযরত আলী।

তিনি বলেন, জীবনে এবারই প্রথম ইভিএমে ভোট দিলাম। কীভাবে ভোট দিতে হয় তা বুঝতে পারিনি। পাশ থেকে একজন বুথে ঢুকে দেখাইয়া দিছে। এরপর ভোট দিছি।

তিনি আরও বলেন, ৩-৪ বার আঙুলের ছাপ নিয়েও আমাকে শনাক্ত করতে পারেনি মেশিন। পরে আমার জাতীয় পরিচয়পত্রের নম্বর দিয়ে শনাক্ত করা হয়েছে। একই ধরনের অভিযোগের কথা জানান ওই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে স্থাপিত মহিলা কেন্দ্রে ভোট দেয়া মাজেদা বেগম।

তিনি বলেন, সাদা বোতামে চাপ দেয়ার পর সবুজ বোতামে চাপ দেয়ার নিয়ম বুজতাম না। একজন আমাকে সহযোগিতা করেছে। এ কেন্দ্রের প্রিসাইডিং কর্মকর্তা ওমর ফারুক বলেন, নির্দিষ্ট সময়ে ইভিএম চালু হয়েছে। প্রথম দিকে আঙুলের ছাপ মিলছিল না।

এ কারণে ভোট গ্রহণে গতি কমে যায়। পরে ঠিক হয়ে যায়। রিটার্নিং কর্মকর্তা মতিয়ুর রহমান যুগান্তরকে বলেন, অবাধ, সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ পরিবেশে ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়েছে। প্রত্যেক কেন্দ্রে ভোটারদের উপস্থিতি ভালো ছিল।

ইভিএম প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ভোটারদের সচেতন ও প্রশিক্ষণ দেয়া হয়েছে। এ কারণে তেমন কোনো সমস্যা হয়নি।