সোনাগাজীতে মামলার ৮ দিন পর বাদীকে কুপিয়ে হত্যা, লুট

  সোনাগাজী (ফেনী) প্রতিনিধি ০৩ আগস্ট ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

ফেনী ম্যাপ
ফেনী ম্যাপ

সোনাগাজী উপজেলার মতিগঞ্জে জমি নিয়ে বিরোধে মামলা করার আট দিন পর বুধবার রাতে প্রবাসী জামাল উদ্দিনকে কুপিয়ে ও পিটিয়ে মারাত্মক জখম ও বাড়িঘরে হামলা করেছে প্রতিপক্ষের লোকজন।

চিকিৎসাধীন অবস্থায় জামাল বৃহস্পতিবার রাতে মারা গেছেন। এ ঘটনায় জামালের পুত্রবধূ হত্যা মামলা করেছেন। শুক্রবার জামালের লাশ পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়।

এলাকাবাসী ও পরিবারের সদস্যরা জানান, মতিগঞ্জ ইউনিয়নের ভাদাদিয়া গ্রামে সৌদি প্রবাসী জামালের (৫৫) সঙ্গে প্রতিবেশী শাহ আলমের দীর্ঘদিন ধরে জমি নিয়ে বিরোধ চলে আসছিল। এ সংক্রান্ত মামলায় সম্প্রতি জেতেন জামাল। ২৪ জুলাই জামাল বাড়ির সীমানা প্রাচীর নির্মাণ কাজ শুরু করলে শাহ আলমের নেতৃত্বে ৮-১০ জন ভাড়াটে সন্ত্রাসী হামলা চালায়।

এতে জামাল ও তিন নির্মাণ শ্রমিক আহত হয়। এ ঘটনায় শাহ আলমকে প্রধান আসামি করে সাতজনের নাম উল্লেখ করে জামাল সোনাগাজী মডেল থানায় মামলা করেন। মামলার পর শাহ আলমকে গ্রেফতার করে পুলিশ। এরপর আদালতের মাধ্যমে তাকে কারাগারে পাঠানো হয়। তবে ২৮ জুলাই ফেনীর সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে হাজির হয়ে শাহ আলমসহ অন্যরা জামিন পান। জামিনে বেরিয়ে শাহ আলম একের পর এক জামাল ও তার পরিবারের সদস্যদের প্রাণনাশের হুমকি দেয়।

এরপর ৩১ জুলাই রাত ২টার দিকে শাহ আলমের ছেলে রিয়াদ, হৃদয়, আলাউদ্দিন ও স্থানীয় সন্ত্রাসী জাহিদ, দাউদুল ইসলাম ও জামসেদ আলমসহ ১৫-২০ জন সশস্ত্র সন্ত্রাসী ঘরে ঢুকে জামালকে কুপিয়ে ও পিটিয়ে মারাত্মক আহত করে। চোখেমুখে চেতনানাশক স্প্রে করায় তিনি অচেতন হয়ে পড়েন। এ সময় আলমিরা ভেঙে ১২ ভরি স্বর্ণালঙ্কার ও নগদ দুই লাখ টাকা লুট করা হয়।

বৃহস্পতিবার ভোরে জামালকে প্রথমে সোনাগাজী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এবং পরে ফেনী আধুনিক সদর হাসাপাতালে নেয়া হয়। অবস্থার অবনতি হলে তাকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রাত সাড়ে ৯টার দিকে তার মৃত্যু হয়। হামলায় আহত পুত্রবধূ জাকিয়া আক্তারকে সোনাগাজী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়।

এ ঘটনায় রিয়াদ, হৃদয়, আলাউদ্দিন, জাহিদ, দাউদুল ইসলাম, জামসেদ, আজিমা আক্তার, আমেনা খাতুনসহ আটজনের নাম উল্লেখ করে এবং ৫-৬ জনকে অজ্ঞাত আসামি করে জাকিয়া মামলা করেন। মামলার পর আজিমাকে (৫০) পুলিশ গ্রেফতার করেছে। সোনাগাজী মডেল থানার ওসি বলেন, ইতিমধ্যে এক আসামিকে গ্রেফতার করা হয়েছে। বাকিদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

উল্লেখ্য, ২০০৯ সালে আসামিদের কয়েকজন ও তাদের ভাড়াটে সন্ত্রাসীরা জামালের স্ত্রী আয়েশা আক্তারকে কুপিয়ে হত্যা করে। এ মামলাটিও বিচারাধীন রয়েছে।

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×