রাস্তার ৫ হাজার ইট তুলে নিলেন আ’লীগ নেতা

  সিলেট ব্যুরো ১৮ আগস্ট ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

ইট

সিলেটে রাস্তা থেকে প্রায় ৫ হাজার ইট তুলে নিয়েছেন জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মোহাম্মদ আলী দুলাল। তিনি মঙ্গলবার সাঙ্গোপাঙ্গদের নিয়ে ইট তুলে নেন বলে স্থানীয়রা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যানের কাছে অভিযোগ করেন। এরপর থেকে এলাকায় এ নিয়ে আলোচনা-সমালোচনা চলছে।

কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার ভাটরাই-চন্দ্রনগর-নিগারেরপাড় সড়কটি ব্যবহার করেন কয়েক গ্রামের মানুষ। ইট বিছানো (সলিং) ওই রাস্তা থেকে দুলাল মঙ্গলবার ইট তুলে নেন বলে জানান স্থানীয়রা। তারা জানান, ইট তুলে নেয়ার খবর ছড়িয়ে পড়লে লোকজন জড়ো হয়ে ইট তুলতে নিষেধ করেন। এ নিয়ে দুই পক্ষের মধ্যে উত্তেজনা দেখা দেয়।

খবর পেয়ে পূর্ব ইসলামপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মুহাম্মদ বাবুল মিয়া ও ইউপি সদস্য আনিসুর রহমান স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিদের নিয়ে সেখানে আসেন। তারাও রাস্তা থেকে ইট তুলতে বাধা দিলে দুলাল লোকজন নিয়ে চলে যান। তবে এর আগেই প্রায় পাঁচ হাজার ইট তুলে নিয়ে যায় দুলালবাহিনী।

ভাটরাই গ্রামের বাসিন্দা এমদাদুল হক বুধবার এ নিয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে অভিযোগ করেন। এতে তিনি রাস্তার ৫ হাজার ইট তুলে নেয়ার পাশাপাশি তার (এমদাদ) বাড়ির লক্ষাধিক টাকার গাছও কেটে নেয়ার অভিযোগ করেন। তিনি বলেন, দুলাল জেলা আওয়ামী লীগের প্রভাবশালী নেতা হওয়ায় ভয়ে এলাকার লোকজন তার অন্যায়-অপকর্মের প্রতিবাদ করার সাহস পায় না।

এমদাদুল এর প্রতিকার ও দুলালের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানান। কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বিজেন ব্যানার্জি বলেন, তদন্ত করে এ বিষয়ে ব্যবস্থা নেয়া হবে। স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান এ নিয়ে কাজ করছেন। ইউপি চেয়ারম্যান মুহাম্মদ বাবুল মিয়া বলেন, মোহাম্মদ আলী দুলাল কিছু ইট তুলে নিয়ে গেছেন। তবে একটি চক্র রাস্তার একটি অংশ দখল করার অপচেষ্টা চালাচ্ছে।

তারা রাস্তার ওপর গাছ লাগিয়ে রেখেছে বলে গ্রামবাসী আমার কাছে অভিযোগ করেছেন। যেহেতু রাস্তাটি সরকারি, সার্ভেয়ার দিয়ে মাপজোখ করে সীমানা চিহ্নিত করা হবে। এ বিষয়ে জানতে চাইলে মোহাম্মদ আলী দুলাল তার বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ অস্বীকার করেন। তিনি বলেন, দুর্বৃত্তরা রাস্তটি অবৈধভাবে দখল করে রেখেছে। সার্ভেয়ার দিয়ে রাস্তা জরিপ করলে প্রকৃত ঘটনা বেরিয়ে আসবে। রাস্তা দখলকারীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার জন্য উপজেলা প্রশাসনের কাছে আবেদন করেছেন বলে দাবি করেন ক্ষমতাসীন দলের এ নেতা।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×