চীন-ভারতকে অর্থনৈতিক অঞ্চল দেয়ায় উদ্বেগ টিআইবির

  যুগান্তর রিপোর্ট ২০ আগস্ট ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

টিআইবি
টিআইবি। ফাইল ছবি

পর্যাপ্ত বিশ্লেষণ ছাড়া চীন, ভারত ও জাপানকে বাংলাদেশে বিশেষায়িত অর্থনৈতিক অঞ্চল প্রতিষ্ঠার সুযোগ দেয়ায় উদ্বেগ জানিয়েছে দুর্নীতিবিরোধী আন্তর্জাতিক সংস্থা ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (টিআইবি)।

বিনিয়োগ চুক্তির শর্তে কী আছে, তা প্রকাশের দাবিও জানিয়েছে সংস্থাটি। টিআইবির পক্ষ থেকে পাঠানো এক বিবৃতি সোমবার এ দাবি জানানো হয়। সংস্থাটি মনে করে, অস্ট্রেলিয়ায় বিনিয়োগের মাধ্যমে পরিবেশ ধ্বংস করে ব্যাপক সমালোচিত ভারত। এছাড়াও শ্রীলংকাসহ বিভিন্ন দেশে চীনের আগ্রাসী বিনিয়োগের অভিজ্ঞতা ভালো নয়।

বিবৃতিতে টিআইবির নির্বাহী পরিচালক ড. ইফতেখারুজ্জামান বলেন, গণমাধ্যমে প্রকাশিত সংবাদে জানা গেছে, সম্প্রতি ভারত, চীন ও জাপানকে বেশ কয়েকটি অর্থনৈতিক অঞ্চল প্রতিষ্ঠার অনুমতি দেয়া হয়েছে।

যার যৌক্তিকতা বিতর্কের ঊর্ধ্বে। কিন্তু কী শর্তে এসব অর্থনৈতিক অঞ্চল প্রতিষ্ঠা, কীভাবে মুনাফা বণ্টন হবে, এতে স্বল্প, মধ্য ও দীর্ঘমেয়াদে দেশের লাভ এবং পরিবেশ ও অন্যান্য খাতে কী ধরনের ঝুঁকি রয়েছে তা স্পষ্ট করা হয়নি। বিশেষ করে যেসব এলাকায় অর্থনৈতিক অঞ্চল প্রতিষ্ঠা হচ্ছে, সেখানকার স্থানীয় জনগণের সম্পৃক্ততা এবং তাদের জীবনে কী প্রভাব পড়বে, সেটিও স্পষ্ট নয়।

ফলে পর্যাপ্ত বিশ্লেষণ ছাড়া বিদেশিদের এ সুযোগ দেয়া উদ্বেগজনক। তিনি বলেন, টিআইবি বিশেষভাবে উদ্বেগ জানানোর কারণ হল, দেশের অন্যতম দুষ্প্রাপ্য সম্পদ হল জমি। সেই জমি বিদেশিদের দেয়া হচ্ছে।

এছাড়া জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাবে দেশের উপকূলে লবণাক্ততা বেড়ে কৃষিজমি কমছে। এসব বিষয় বস্তুনিষ্ঠ বিশ্লেষণ না করেই কৃষি ও পতিত জমি ব্যবহার করে অর্থনৈতিক অঞ্চল করা হচ্ছে

। দীর্ঘমেয়াদে এ উদ্যোগ রাষ্ট্রের জন্য কতটা লাভজনক বা সম্পদের বিকল্প ব্যবহারের সুযোগ রয়েছে কিনা এবং এসব অঞ্চলে কী ধরনের শিল্প প্রতিষ্ঠান হবে সেটিও স্পষ্ট নয়। ফলে স্বচ্ছতার স্বার্থে এসব তথ্য প্রকাশ করা জরুরি। ইফতেখারুজ্জামান বলেন, উল্লিখিত বিষয়গুলো সমীক্ষা ছাড়াই এসব চুক্তি হয়ে থাকলে, অবিলম্বে তা স্থগিত করতে হবে। তার মতে, জাপানের ক্ষেত্রে মোটা দাগে বাংলাদেশের প্রাপ্য অংশ নির্ধারিত হয়েছে।

কিন্তু এখনও চীন ও ভারতের জন্য বরাদ্দ দেয়া অঞ্চলে বাংলাদেশের অংশীদারিত্বের রূপরেখা নির্ধারিত হয়নি। টিআইবির নির্বাহী পরিচালক বলেন, মীরসরাইয়ে ভারতের জন্য বরাদ্দ দেয়া অঞ্চলটি উন্নয়নের দায়িত্ব দেয়া হয়েছে দেশটির ব্যবসায়িক গোষ্ঠী আদানি গ্রুপকে। কিন্তু ইতিমধ্যে এই গ্রুপটি অস্ট্রেলিয়ার কুইন্সল্যান্ডে কয়লা খনি নিয়ে ব্যাপকভাবে সমালোচিত হয়েছে।

আর এ ধরনের বিতর্কিত প্রতিষ্ঠানকে অর্থনৈতিক অঞ্চল প্রতিষ্ঠার সুযোগ দেয়া, দেশের স্বার্থ কতটুকু বিবেচিত হয়েছে তা জানার অধিকার জনগণের রয়েছে।

একইভাবে পাশের দেশ শ্রীলংকাসহ বিভিন্ন দেশে আগ্রাসী বিনিয়োগ করছে চীন। ফলে বিনিয়োগের নেতিবাচক প্রভাব বিবেচনায় না নিয়ে চীনের সঙ্গে এ ধরনের উদ্যোগ অপরিণামদর্শী।

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×