রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনে সফলতা আসবেই : ওবায়দুল কাদের

স্বাধীনতা পরবর্তীতে সবচেয়ে ব্যর্থ বিরোধী দল বিএনপি

  যুগান্তর রিপোর্ট ২৪ আগস্ট ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

ওবায়দুল কাদের
আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। ফাইল ছবি

আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, রোহিঙ্গাদের ফেরত পাঠানোর জন্য সরকার যে প্রাথমিক উদ্যোগ নিয়েছিল তা বাধাগ্রস্ত হলেও একে কূটনৈতিক ব্যর্থতা বলা যাবে না। কারণ কূটনীতি একটা চলমান প্রক্রিয়া। এখানে হুট করে ব্যর্থ বলার সুযোগ নেই। আমাদের প্রচেষ্টা অব্যাহত আছে। আমরা বিশ্বাস করি, সফলতা আসবে। আসতেই হবে। কারণ আমাদের দেশের নেতৃত্ব দিচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। শেখ হাসিনা জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কন্যা। তিনি ব্যর্থ হওয়ার মানুষ নন। তার নেতৃত্বে আমরা সফল হবই।

শুক্রবার সন্ধ্যায় জাতীয় শোকদিবস উপলক্ষে বাংলাদেশ কৃষিবিদ অর্থনীতি সমিতি আয়োজিত আলোচনা সভায় এসব কথা বলেন ওবায়দুল কাদের। বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা কাউন্সিল মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত এ সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন তিনি।

বিএনপিকে স্বাধীনতার পরবর্তী সময়ের সবচেয়ে ব্যর্থ বিরোধী দল হিসেবে আখ্যায়িত করে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক আরও বলেন, মুক্তিযুদ্ধের দেশে একটি সাম্প্রদায়িক দল হিসেবে স্বাধীনতাবিরোধী চিন্তার রাজনীতি করতে গিয়ে নিজেরাই (বিএনপি নেতারা) সঙ্কুচিত হয়ে গেছে। আন্দোলনের নামে মিথ্যাচার আর ‘লিপ সার্ভিস’ দিয়ে দলকে টিকিয়ে রাখার চেষ্টার নামে তারা ক্রমশ আরও সঙ্কুচিত করে চলেছেন। এত বড় ব্যর্থতা আর কোনো দলের নেই।

বাংলাদেশ কৃষিবিদ অর্থনীতি সমিতির সভাপতি সাজ্জাদুল হাসানের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি ছিলেন আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য কৃষিমন্ত্রী আবদুর রাজ্জাক ও সাংগঠনিক সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম। আলোচনা সভায় স্বাগত বক্তব্য দেন কৃষি অর্থনীতিবিদ সমিতির মহাসচিব প্রফেসর ড. এম কামরুজ্জামান। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন কৃষিবিদ মোহাম্মদ বারী। এছাড়া অনুষ্ঠানে কবি নির্মলেন্দু গুণের ‘স্বাধীনতা এই শব্দটি কী করে আমাদের হলো’ এই কবিতাটি আবৃত্তি করেন ভাস্বর বন্দ্যোপাধ্যায়।

ভারতের সঙ্গে সম্পর্ক এখন নতুন উচ্চতায় : কৃষিবিদ অর্থনীতি সমিতির আলোচনা সভার আগে বিকালে রাজধানীর পলাশীর মোড়ে জন্মাষ্টমীর মিছিলের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন ওবায়দুল কাদের। এ সময় তিনি বলেন, আগামী অক্টোবর মাসে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ভারত সফরে আমাদের অমীমাংসিত সমস্যার সমাধানে আরেক ধাপ এগিয়ে যাবে।

তিনি বলেন, বাংলাদেশের সঙ্গে ভারতের সম্পর্ক এখন নতুন উচ্চতায় উন্নীত। আমাদের প্রতিবেশী দেশটির সঙ্গে সম্পর্কের কোনো টানাপোড়েন নেই। ভারতের প্রধানমন্ত্রীর নরেন্দ্র মোদির আমন্ত্রণে আগামী অক্টোবরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দিল্লি সফরের মধ্য দিয়ে আমাদের ‘কনস্ট্রাকটিভ পার্টনারশিপ’ আরও নতুন উচ্চতায় উন্নীত হবে এবং আমাদের দেশের বিরাজমান অমীমাংসিত সমস্যাগুলো সমাধানে আমরা আরেক ধাপ এগিয়ে যাব।

আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, শেখ হাসিনার সরকার ‘মাইনরিটি’বান্ধব সরকার। এ সরকার যতদিন আছে আপনাদের নিরাপত্তা নিয়ে উদ্বিগ্ন হওয়ার কারণ নেই। আপনাদের দুর্গা উৎসব শান্তিপূর্ণভাবে পালিত হয়েছে। অন্য উৎসবগুলোও শান্তিপূর্ণভাবে পালিত হচ্ছে। শেখ হাসিনার সরকারের আমলে এইদিক দিয়ে আপনারা নিরাপদ। আপনাদের শত্রু যারা, তারা বাংলাদেশের শত্রু। তারা হচ্ছে সাম্প্রদায়িক অপশক্তি। এই সাম্প্রদায়িক অপশক্তি শুধু আপনাদের শত্রু না, বাংলাদেশের শত্রু। এই সাম্প্রদায়িক শক্তির বিষবৃক্ষকে উৎপাটনের জন্য আপনাদের কাছে শ্রীকৃষ্ণের জন্মদিনে আমার আহ্বান- আসুন আমরা সবাই ঐক্যবদ্ধভাবে সাম্প্রদায়িক অপশক্তিকে প্রতিরোধ করি। তিনি বলেন, শ্রীকৃষ্ণের জন্ম ও তার আবির্ভাব হয়েছিল অসত্য ও অকল্যাণের বিরুদ্ধে সত্য ও সুন্দর কল্যাণের লড়াইয়ের জন্য। এই লড়াইয়ের মাধ্যমে সুদিনের প্রত্যাশায় আমাদের সবাইকে উজ্জীবিত হতে হবে।

অনুষ্ঠানে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের কমিশনার আসাদুজ্জামান মিয়া সবার প্রতি আহ্বান জানিয়ে বলেন, ধর্ম যার যার উৎসব সবার। আমাদের কোনো আচরণে যেন কারও ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত না লাগে এ বিষয়ে সবাইকে সজাগ থাকতে হবে। সার্বজনীন পূজা উদযাপন কমিটির সভাপতি শৈলেন্দ্র নাথ মজুমদারের সভাপতিত্বে র‌্যালি উদ্বোধন করেন ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের মেয়র সাঈদ খোকন।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×