রংপুর-৩ উপনির্বাচন: ৯ প্রার্থীর মনোনয়নপত্র দাখিল

  রংপুর ব্যুরো ১০ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

মনোনয়ন

রংপুর-৩ আসনের উপনির্বাচনে আওয়ামী লীগ, বিএনপি ও জাতীয় পার্টির প্রার্থীসহ ৯ জন মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। সোমবার রংপুরের আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তা ও রিটার্নিং কর্মকর্তা জিএম সাহাতাব উদ্দিনের কাছে মনোনয়নপত্র জমা দেন তারা।

বেলা ২টায় মনোনয়নপত্র জমা দেন স্বতন্ত্র প্রার্থী হোসেন মকবুল শাহরিয়ার আসিফ। এরপর মনোনয়নপত্র জমা দিতে আসেন বিএনপির প্রার্থী রিটা রহমান। বেলা সোয়া ৩টায় আসেন জাতীয় পার্টির প্রার্থী রাহগীর আল মাহি সাদ এরশাদ, এরপর আওয়ামী লীগের প্রার্থী অ্যাডভোকেট রেজাউল করিম রাজু মনোনয়নপত্র দাখিল করেন।

রিটার্নিং কর্মকর্তা জিএম সাহাতাব উদ্দিন জানান, ১২ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেছিলেন। এর মধ্যে ৯ জন জমা দিয়েছেন। মনোনয়নপত্র দাখিল করা অন্য প্রার্থীরা হলেন- বিএনপির বিদ্রোহী প্রার্থী কাওছার জামান বাবলা, এনপিপির শফিউল আলম, খেলাফত মজলিসের তৌহিদুর রহমান মণ্ডল রাজু, গণফ্রন্টের কাজী মো. শহীদুল্লাহ ও বাংলাদেশ কংগ্রেসের একরামুল হক।

বিকাল পৌনে ৪টায় বিশাল শোডাউন নিয়ে নির্বাচন অফিসের নিচতলায় অবস্থান নেন আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী রংপুর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট রেজাউল করিম রাজু। এ সময় নৌকা-নৌকা স্লোগানে পুরো নির্বাচন অফিস মুখরিত হয়ে উঠে।

পরে তিনি জেলা সভাপতি মমতাজ আহমেদ, মহানগর সভাপতি সাফিউর রহমান সফি, সেক্রেটারি তুষারকান্তি মণ্ডলসহ নেতাকর্মীদের নিয়ে রিটার্নিং কর্মকর্তার কাছে মনোনয়নপত্র জমা দেন।

পরে রেজাউল করিম রাজু সাংবাদিকদের বলেন, শেষপর্যন্ত নির্বাচনে থাকব আমরা। একটি পক্ষ বিভ্রান্তি ছড়াচ্ছে। এখানে মহাজোটের প্রার্থী হবে- কথাটি ঠিক নয়। নৌকা থাকবে এবং বিজয়ী হবে।

বেলা সোয়া ৩টায় বিশাল শোডাউন নিয়ে নির্বাচন অফিসে আসেন সাদ এরশাদ। এ সময় তার সঙ্গে ছিলেন জাতীয় পার্টির মহাসচিব মসিউর রহমান রাঙ্গা, প্রেসিডিয়াম সদস্য ফয়সাল চিশতি, জেলা জাতীয় পার্টির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হাজী আবদুর রাজ্জাক, শাফিউল ইসলাম শাফী, সাংগঠনিক সম্পাদক মুনশি আবদুল বারী, জেলা ছাত্রসমাজের আহ্বায়ক আশরাফুল হক জবা, যুগ্ম আহ্বায়ক সোবহান মজিদ বিদ্যুৎ, যুবসংহতির সাধারণ সম্পাদক হাসানুজ্জামান নাজিম, স্বেচ্ছাসেবক পার্টির সভাপতি শামীম সিদ্দিকী। তবে মসিউর রহমান রাঙ্গা অফিসে প্রবেশ করলেও নির্বাচন কর্মকর্তার রুমে যাননি।

মনোনয়নপত্র জমা দেয়ার পর সাদ এরশাদ সাংবাদিকদের বলেন, বাবার অসমাপ্ত কাজ সমাপ্ত করাই আমার ব্রত।

অন্যদিকে বিএনপি মনোনীত প্রার্থী রিটা রহমান দলীয় কোন্দলের কবলে পড়ে যান রংপুর এসেই। জেলা ও মহানগর বিএনপি এবং অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের কোনো স্তরের নেতাকর্মীই তার মনোনয়ন জমার সময় উপস্থিত ছিলেন না।

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু রংপুরে এলেও তিনি তার সঙ্গে যাননি। তবে মনোনয়নপত্র দাখিলের পর রিটা রহমান সাংবাদিকদের বলেন, দলীয় কোন্দল ঠিক হয়ে যাবে। আচরণবিধি মেনে আমি মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছি। বিজয় আমাদের হবেই।

রিটার্নিং কর্মকর্তা জিএম সাহাতাব উদ্দিন বলেন, আচরণবিধি লঙ্ঘনের ব্যাপারে আমরা প্রার্থীদের কড়া সতর্ক বার্তা দিয়েছি। মাইকিং চলছে। ৪ জন ম্যাজিস্ট্রেট নিয়োগ দেয়া হয়েছে। মঙ্গলবার (আজ) থেকে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করা হবে। তফসিল অনুযায়ী আগামী ৫ অক্টোবর এ আসনে উপনির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

ঘটনাপ্রবাহ : রংপুর-৩: জাতীয় সংসদ নির্বাচন

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×