ভায়াগ্রার চালান আটকের জের

বেনাপোল কাস্টমস কমিশনারকে হেনস্তা করতেই জাল নোটিশ

  বেনাপোল প্রতিনিধি ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

বেনাপোল কাস্টমস কমিশনারকে হেনস্তা করতেই জাল নোটিশ
বেনাপোলে আটক সেই ১২ কোটি টাকার ভায়াগ্রার চালান, ফাইল ফটো

বেনাপোল কাস্টমস কমিশনার বেলাল চৌধুরীকে হেনস্তা করতে দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) নামে জাল নোটিশ গণমাধ্যমে ছড়িয়ে দিয়েছিল দুদক কর্মকর্তা পরিচয়দানকারী ও মাদক ব্যবসায়ী আহসান আলী।

দুদকের সহকারী পরিচালক নেয়ামুল আহসান গাজীর টেবিল থেকে নোটিশটি চুরি করে প্রতারক আহসান এ অপকর্ম করে। এর সত্যতা নেয়ামুল গাজীও স্বীকার করেছেন। সংশোধন ও স্বাক্ষর করার আগেই খসড়া নোটিশের ছবি তুলে নেয় প্রতারক আহসান। এরপর ২ সেপ্টেম্বর তা গণমাধ্যমে সরবরাহ করা হয়। এ জাল নোটিশ ৮ সেপ্টেম্বর সংবাদপত্রে প্রকাশিত হয়।

জানা গেছে, বেনাপোলে মিথ্যা ঘোষণা দিয়ে আমদানি করা ৬৭ মণ ভায়াগ্রার চালান আটকের পর আহসান আলী প্রতিহিংসাবশত কাস্টমস কমিশনার বেলাল চৌধুরীকে জাল নোটিশ দেয়। জাল নোটিশ ও বেনাপোল কাস্টম হাউসে গৃহীত মূল নোটিশে হাজিরার তারিখে গরমিল দেখা যায়। মূল নোটিশে হাজিরার তারিখ ৯ সেপ্টেম্বর হলেও ভুয়া নোটিশে ৮ সেপ্টেম্বর লেখা ছিল।

ভুয়া নোটিশে বেলাল চৌধুরী ও তার পরিবারের সদস্যদের ভোটার আইডি, পাসপোর্ট, সম্পদের দলিল, ব্যাংক ও সম্পত্তির কাগজপত্র চাওয়া হয়। মূল নোটিশে এসব কিছু নেই। দুদক কার্যালয়ের নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন জানান, নোটিশ জারির দিন আহসান আলীকে তদন্তকারী কর্মকর্তার কক্ষের সামনে ঘোরাফেরা করতে দেখা গেছে।

সূত্র জানায়, দুদক কার্যালয়ে আহসান আলীর প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা সত্ত্বেও সে অবাধে যাতায়াত করছে। বিভিন্ন ব্যক্তির নামে এক ডজন বেনামি চিঠি জমা দিয়ে সেগুলো তদন্তের তারিখ ফেলার তদবির করে সে।

দুদকের কাগজপত্র চুরি করে, নাম ভাঙিয়ে ব্ল্যাকমেইলিং, জালিয়াতি, প্রতারণা করে অর্থ আদায়ই তার ব্যবসা। জাল নোটিশ তৈরি করে লোকজনকে ফাঁসানোর অসংখ্য রেকর্ডও প্রতারক আহসানের বিরুদ্ধে রয়েছে।

জানা গেছে, বেলাল চৌধুরীকে ৯ সেপ্টেম্বর দুদকে হাজির হতে নোটিশ দেয়ার সিদ্ধান্ত হয়। সহকারী পরিচালক নেয়ামুল আহসান গাজীর স্বাক্ষরে ২ সেপ্টেম্বর নোটিশ জারি করা হয়। কিন্তু এ নোটিশ জারির আগে স্বাক্ষরবিহীন নোটিশ হাতিয়ে নেয় আহসান। কাস্টমসের সহকারী কমিশনার উত্তম চাকমা জানান, শুল্ক ফাঁকির ৩১টি চালান ও ভায়াগ্রা খালাসে ব্যর্থ হয়ে আহসান আলী প্রতিহিংসাবশত কমিশনারকে অপদস্থ করতে এ কাজ করেছে।

বেনাপোল কাস্টমস কমিশনার বেলাল চৌধুরী জানান, দুদকের তদন্তভুক্ত হলেই সবাই দোষী নন। দুদকের সুনাম নষ্ট করতে এর ভেতরে ও বাইরে চক্র কাজ করছে।

দুদকের সহকারী পরিচালক নেয়ামুল আহসান গাজী জানান, ২ সেপ্টেম্বর দুদক থেকে কাস্টমস কমিশনারকে একটি নোটিশ পাঠানো হয়। কিন্তু এর আগে সেটি জাল করে প্রতারক আহসান আলী।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×