মুনাফা নিতে বিদেশি কোম্পানির আগাম অনুমতি লাগবে না

  যুগান্তর রিপোর্ট ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

মুনাফা নিতে বিদেশি কোম্পানির আগাম অনুমতি লাগবে না

বাংলাদেশে কার্যরত বিদেশি কোম্পানিগুলো তাদের মুনাফার অংশ কেন্দ্রীয় ব্যাংকের আগাম অনুমতি ছাড়াই বিদেশে নিয়ে যেতে পারবে। তবে মুনাফা বিদেশে নেয়ার ৩০ দিনের মধ্যে তা বাংলাদেশ ব্যাংককে জানাতে হবে।

বৃহস্পতিবার বাংলাদেশ ব্যাংক এ সংক্রান্ত একটি সার্কুলার জারি করে। এটি বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলোর প্রধান নির্বাহীদের কাছে পাঠানো হয়েছে।

এর আগে বাংলাদেশ থেকে বিদেশি কোম্পানিগুলোকে মুনাফার অর্থ বিদেশে নিতে কেন্দ্রীয় ব্যাংক থেকে আগাম অনুমতি নিতো হতো।

ওই অনুমতির পর তা সংশ্লিষ্ট ব্যাংকের মাধ্যমে বৈদেশিক মুদ্রায় মুনাফা বিদেশে নিতে পারত। তবে আগের মতো এখনও বিদেশি কোম্পানিগুলোকে তাদের বার্ষিক অডিট রিপোর্টের ভিত্তিতে অর্জিত মুনাফার মধ্যে তাদের প্রাপ্য অংশ বিদেশে নিতে পারবে। তবে অডিট রিপোর্ট চূড়ান্ত হওয়ার আগে কোনো মুনাফা বিদেশে নেয়া যাবে না।

এ প্রসঙ্গে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের একজন কর্মকর্তা জানান, বিদেশি বিনিয়োগ আকর্ষণের জন্য সরকার প্রচলিত নীতিমালা সংস্কার করে সহজ করছে। এর অংশ হিসেবেই এ সার্কুলার জারি করা হয়েছে।

এর ফলে বিদেশি কোম্পানিগুলো তাদের অর্জিত মুনাফা সহজে বিদেশে নিয়ে যেতে পারবে। এর ফলে বাংলাদেশের প্রতি বিদেশি বিনিয়োগকারীদের আস্থা বাড়বে।

তারা বিনিয়োগে এগিয়ে আসবে বলে মনে করেন ওই কর্মকর্তা। সূত্র জানায়, আগের নীতিমালা অনুযায়ী বিদেশি কোম্পানিগুলোকে তাদের মুনাফা নিয়ে যেতে বেশ সময় লাগত কেন্দ্রীয় ব্যাংকের অনুমতি পেতে।

যেসব কোম্পানির শেয়ার দেশের পুঁজিবাজারে রয়েছে ওইসব কোম্পানির মুনাফা ঘোষণার পর আনুপাতিক হারে মালিক পক্ষ তাদের অংশ বিদেশে নিয়ে যেতে পারবে।

দেশে কার্যরত বিদেশি কোম্পানির শাখা অফিস, লিয়াজোঁ অফিস, প্রতিনিধিত্বকারী অফিস বা প্রধান অফিস তথা যে কোনো অফিস থেকে মুনাফা নেয়া যাবে।

সার্কুলারে বলা হয়, বাংলাদেশে কার্যরত বিদেশি কোনো কোম্পানির শাখা অফিস, লিয়াজোঁ অফিস বা প্রতিনিধিত্বকারী অফিস বা যে কোনো অফিসের কার্যক্রম বন্ধ বা কোনো কারণে তহবিল স্থানান্তর করতে হলে সংশ্লিষ্ট ব্যাংকে আবেদন করতে হবে।

ব্যাংক তা বাংলাদেশ ব্যাংকে পাঠাবে। বাংলাদেশ ব্যাংক এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় তথ্য-উপাত্ত পর্যালোচনা করে পরে সিদ্ধান্ত নেবে। এর ভিত্তিতে তহবিল স্থানান্তর করা যাবে। এক্ষেত্রে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের অনুমোদন ছাড়া কোনো তহবিল স্থানান্তর করা যাবে।

সার্কুলারে উল্লেখ করা হয়, সংশ্লিষ্ট অফিস বন্ধ করতে সংশ্লিষ্ট ১৬টি প্রতিষ্ঠানের ছাড়পত্রসহ ব্যাংকে আবেদন করতে হবে। যেসব প্রতিষ্ঠানের ছাড়পত্র নিতে হবে সেগুলোর মধ্যে উল্লেখযোগ্য হচ্ছে- যথাযথ কর্তৃপক্ষের অনুমতি, যে পরিমাণ বৈদেশিক মুদ্রা নিতে চায় তার সপক্ষে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের অনুমতি, কোম্পানির পরিচালনা পর্ষদের অনুমোদন, গত ৩ বছরের কোম্পানির বার্ষিক অডিট রিপোর্ট, অডিটরের সার্টিফিকেট, আয়কর দেয়ার সার্টিফিকেট এবং বিদেশে কর্মীদের বাংলাদেশে কাজ করার অনুমতি।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×