অবশেষে দেশে ফিরেছে শ্রীদেবীর মরদেহ

আজ শেষকৃত্য

  কৃষ্ণকুমার দাস, কলকাতা থেকে ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

তীব্র টানাপোড়েন ও ঘটনা প্রবাহের পর বলিউড সুপারস্টার শ্রীদেবীর মরদেহ মুম্বাই পৌঁছেছে। দুবাই থেকে মরদেহ বহনকারী ফ্লাইট সন্ধ্যা সাড়ে ১০টার দিকে মুম্বাই বিমানবন্দরে পৌঁছে। এরপর মরদেহ নেয়া হয় বনি কাপুরের বাড়িতে। আজ মুম্বাই জুহুবিচের পলের ভিলেপার্ল সম্মানে তার শেষকৃত্য হবে। এতে বলিউডের অধিকাংশ অভিনেতা-অভিনেত্রী অংশ নেবেন বলে ধারণা করা হচ্ছে।

মঙ্গলবার ভারতীয় সময় ২টা ৩৫ মিনিটে দুবাই পুলিশ মরদেহ দেশে ফিরিয়ে নেয়ার অনুমতি দেয়। মর্গ থেকে দেহ নিয়ে সংরক্ষণের ব্যবস্থা সেরে দেশের ফ্লাইটে কফিন উঠতে ৭টা বেজে যায়। ওই একই চার্টার্ড ফ্লাইটে দেশে ফেরেন শ্রীদেবীর স্বামী বনি কাপুর। সঙ্গে প্রথম পক্ষের পুত্র অর্জুন কাপুর, শ্রীর ছোট মেয়ে খুশি।

এদিকে শ্রীদেবীর স্বামী বনি কাপুরকে এদিন তৃতীয়বারের জন্য জিজ্ঞাসাবাদ করেছে দুবাই পুলিশ। প্রথমে অসংলগ্ন কথাবার্তার জন্য বনির পাসপোর্ট আটক করা হলেও পরে তা ফেরত দেয়া হয়। শ্রীদেবীর মরদেহ ফেরানো নিয়ে কেন এত সমস্যা হল? বনি কাপুরের অসংলগ্ন কথাবার্তা দেরি হওয়ার কারণ বলে জানা গেছে। মঙ্গলবার সকালে দুবাই পুলিশ সাফ জানিয়ে দেয়, বনির বক্তব্য সন্তোষজনক মনে করলে তবেই তাকে দুবাই ছেড়ে ভারত ফেরার অনুমতি দেয়া হবে। দুবাই প্রশাসন জানায়, শ্রীদেবীর ময়নাতদন্ত, টক্সিকোলজিসহ বেশ কিছু রিপোর্ট খতিয়ে দেখে সন্দেহজনক কিছু প্রমাণিত না হলে দেহ ফেরানো হবে। তবে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেবেন দুবাইয়ের পাবলিক প্রসিকিউটর। দুবাইয়ের হাসপাতালের মর্গে ছিল শ্রীর দেহ। ডিপিপির অনুমতি পাওয়ার দু’ঘণ্টা পর দুবাইয়ের মুহাইসনায় এনে মরদেহ সংরক্ষণ করা হয়। সংরক্ষণের কাজ করতে সময় লাগে প্রায় ৯০ মিনিট।

শ্রীর দেহ এদিন দুপুরে মুম্বাই ফেরানো হতে পারে এই আশায় সকাল থেকে ফের মুম্বাইয়ে বনির ভাই অভিনেতা অনিল কাপুরের বাড়িতে শেষশ্রদ্ধার জন্য ভিড় করেছিলেন বলিউড তারকারা। শোক জানাতে আসেন শাহরুখ ও তার স্ত্রী গৌরী। উল্লেখ্য, শাহরুখের আগামী ছবি ‘জিরো’তে বিশেষ চরিত্রে অভিনয় করেছেন শ্রীদেবী। শুটিং শেষ হয়ে গেছে শাহরুখের ছবির। হিসাব মতো মুক্তি পেলে এটাই তার শেষ ছবি।

অপর দিকে সোমবার ডেথ সার্টিফিকেটে প্যাথোলজিস্টের বদলে রেডিওলজিস্টের সই থাকা নিয়েও বিতর্ক তৈরি হয়। দুবাইয়ের একটি নামি বেসরকারি হাসপাতালের সঙ্গে যুক্ত থাকা ওই রেডিওলজিস্ট ফরেনসিক তদন্ত টিমে ছিলেন। কিন্তু তিনি কখনই স্বাক্ষর করার মতো দায়িত্বে থাকতে পারেন না। মৃত্যুর আধা ঘণ্টা আগে রহস্যজনকভাবে বনির মুম্বাই থেকে দুবাইয়ের জুমেইরা এমিরেটস টাওয়ার হোটেলে ফেরা নিয়েও প্রশ্ন ওঠে। পুলিশি জেরায় বনি জানান, ২১ ফেব্রুয়ারি ছোট মেয়ে খুশিকে নিয়ে মুম্বাই ফিরে শ্রীর মৃত্যুর দিন অর্থাৎ ২৪ ফেব্রুয়ারি ফের দুবাই ফিরে যান তিনি। স্ত্রীকে সারপ্রাইজ ডিনারে নিয়ে যাওয়ার জন্য দুবাই ফেরেন। এই দু’দিন শ্রীদেবী হোটেলের ঘর থেকে বের হননি। কিন্তু ডিনারের ডেটে নিয়ে যাওয়ার জন্য বনি কোনো রেস্তোরাঁ বা হোটেল বুক করেননি বলে জানিয়েছেন। এখানেই খটকা লাগে পুলিশের। আবার শ্রীদেবীর পরিচিতদের মধ্যে অনেকের দাবি, শ্রী মদ্যপান করতেন না। কিন্তু শনিবার বিকালে বনি হোটেলের ঘরে ঢাকার পর ও শৌচাগারে ডিনারে যাওয়ার জন্য প্রস্তুত হতে যাওয়ার সময় কেন শ্রীদেবী মদ্যপান করেছিলেন? এসব প্রশ্নের নিষ্পত্তি না হওয়ায় ও শ্রীদেবীর মাথায় গভীর আঘাতের চিহ্ন দেখেই তদন্তে দেরি হচ্ছিল। মঙ্গলবার সকালেও সবাই ধরেই নিয়েছিলেন হয়তো শ্রীর দেহ ওইদিন ভারতে ফেরানো সম্ভব হবে না। বনির পাসপোর্ট আটক হওয়ায় পরিস্থিতি আরও জোরালো হয়। এরপর আচমকাই দেহ ফেরানোর ব্যাপারে দুবাই পুলিশের সবুজ সংকেত আসে।

প্রশ্ন উঠেছে, তাহলে কি বনিই জোর করে মদ পান করিয়েছিলেন নিজের প্রিয়তমা স্ত্রীকে? শনিবার রাতে প্রাথমিকভাবে বলা হচ্ছিল হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয়েছে ৫৪ বছরের শ্রীদেবীর। সোমবার বিকেল সাড়ে ৫টায় ময়নাতদন্তের রিপোর্টে জানা যায়, সংজ্ঞাহীন অবস্থায় বাথটবে ডুবে মৃত্যু হয় নায়িকার। তার রক্তে অ্যালকোহলের উপস্থিতি মেলে। আরও তদন্তের জন্য পাবলিক প্রসিকিউটরের কাছে পাঠানো হয় বিষয়টি। শ্রীদেবীর মতো দীর্ঘাঙ্গীর বাথটবের জলে ডুবে মৃত্যু সম্ভব কিনা তা নিয়েও প্রশ্ন জেগেছে গোয়েন্দাদের মনে। ইতিমধ্যেই হোটেলে শ্রীর ২২০১ ঘরটি সিল করা হয়েছে। তদন্তের সুবিধার জন্য হোটেলের ঘরে বনি ও হোটেল কর্মীদের নিয়ে গিয়ে ঘটনার পুনর্গঠন করা হতে পারে বলে ইঙ্গিত দিয়েছে দুবাই পুলিশ। ময়নাতদন্তের রিপোর্ট অনুযায়ী, শনিবার রাত ১০টা ১ মিনিটে মৃত্যু হয় অভিনেত্রীর। দুবাইয়ের স্থানীয় সময় অনুসারে বিকেল সাড়ে ৫টা নাগাদ বনি কাপুর শ্রীকে বাথটবে সংজ্ঞাহীন অবস্থায় দেখতে পান। এক বন্ধু ও হোটেল কর্মীদের ডাকেন বনি। কিন্তু পুলিশে খবর দেয়া হয় রাত ৯টায়। অথচ আগে বলা হয়েছিল, হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পথেই ম্যাসিভ হার্টঅ্যাটাকের কারণে মৃত্যু হয়েছে শ্রীদেবীর। প্রশ্ন এখানেই, তাহলে সত্যি কখন মারা গেছেন বলিউড ডিভা? শৌচাগারে অসুস্থ হওয়া, তাকে উদ্ধার করার সময়, হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার সময় এবং পুলিশে খবর দেয়ার সময় নিয়ে বিভ্রান্তি তৈরি হওয়াতেই শ্রীর মৃত্যুরহস্য নিয়ে অনেক প্রশ্নের এখনও উত্তর মেলেনি। দুবাই পুলিশ সূত্রের খবর, তদন্তের প্রয়োজনে ফের ডাকা হতে পারে বনি কাপুরকে।

 

 

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter