সোনাদিয়ায় শিল্প স্থাপন না করার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর

  বাসস ২১ অক্টোবর ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

সোনাদিয়ায় শিল্প স্থাপন না করার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সোনাদিয়ায় কোনো ধরনের শিল্প-কারখানা স্থাপন না করার জন্য সংশ্লিষ্ট সবাইকে নির্দেশনা প্রদান করে বলেছেন, কক্সবাজারের এই দ্বীপটিতে শুধু ইকো ট্যুরিজম উন্নত করা হবে। প্রধানমন্ত্রী রোববার বিকালে তার কার্যালয়ে ‘বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব শিল্প নগরে’র ওপর একটি পাওয়ার পয়েন্ট উপস্থাপনা উপভোগকালে সংশ্লিষ্টদের এই নির্দেশনা দেন।

বৈঠকের পরে প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম সাংবাদিকদের ব্রিফ করেন। তিনি বলেন, বাংলাদেশ অর্থনৈতিক জোন কর্তৃপক্ষ (বেজা) এই শিল্প নগরের বিভিন্ন আঙ্গিকগত দিক তুলে ধরে এই পাওয়ার পয়েন্ট প্রেজেন্টেশনটি উপস্থাপন করেন।

প্রেস সচিব বলেন, প্রধানমন্ত্রী গভীর মনোযোগের সঙ্গে পাওয়ার পয়েন্ট প্রেজেন্টেশন প্রত্যক্ষ করেন এবং এই বিষয়ে বেশকিছু নির্দেশ প্রদান করেন। শেখ হাসিনা বেজা কর্তৃপক্ষকে শ্রমিকদের আবাসন এবং একইসঙ্গে শিল্প ও আইটি ক্ষেত্রের বর্জ্য ব্যবস্থাপনা এবং পরিবেশের বিষয়ে লক্ষ্য রাখার জন্য নির্দেশনা প্রদান করেন। তিনি একইসঙ্গে এই শিল্প নগরকে জলোচ্ছ্বাস, সাইক্লোনসহ বিভিন্ন প্রাকৃতিক দুর্যোগ থেকে রক্ষায় প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণেরও নির্দেশ দেন।

প্রধানমন্ত্রীর বেসরকারি শিল্প ও বিনিয়োগ বিষয়ক উপদেষ্টা সালমান এফ রহমান এবং সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

চট্টগ্রাম ও ফেনী জেলার তিনটি উপজেলা- মীরসরাই, সীতাকুণ্ড এবং সোনাগাজীর প্রায় ৩০ হাজার একর জমির ওপর বঙ্গোপসাগরের সন্দ্বীপ চ্যানেলের তীরবর্তী ২৫ কিমি. এলাকা নিয়ে ‘বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব শিল্প নগর (বিএসএমএসএন)’ প্রতিষ্ঠা হচ্ছে।

ভিয়েতনামের সঙ্গে বাণিজ্য জোরদারের আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পারস্পরিক মুনাফার স্বার্থে বাংলাদেশ এবং ভিয়েতনামের মধ্যে ব্যবসা-বাণিজ্য জোরদার করার ওপর গুরুত্বারোপ করেছেন। তিনি বলেন, দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ায় বিশাল জনসংখ্যা রয়েছে এবং এই অবস্থাকে কাজে লাগিয়ে আমরা আমদের ব্যবসা-বাণিজ্যকে বৃদ্ধি করতে পারি। ভিয়েতনামের বিদায়ী রাষ্ট্রদূত ত্রাণ ভ্যান খোয়া রোববার সকালে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে তার সঙ্গে বিদায়ী সাক্ষাৎকালে প্রধানমন্ত্রী এ কথা বলেন। বৈঠকের পর প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম সাংবাদিকদের ব্রিফ করেন।

শেখ হাসিনা বলেন, ভিয়েতনাম বাংলাদেশিদের হৃদয়ে একটি বিশেষ স্থান দখল করে রয়েছে এবং দুটি রাষ্ট্রই স্বাধীনতা অর্জনের জন্য সংগ্রাম করেছে। প্রধানমন্ত্রী ভিয়েতনামের রাষ্ট্রদূতের মাধ্যমে দেশটির প্রধানমন্ত্রীর কাছে তার শুভেচ্ছা প্রেরণ করেন এবং ২০১২ সালে তার ভিয়েতনাম সফরের কথাও স্মরণ করেন।

ভিয়েতনামের রাষ্ট্রদূত বাংলাদেশের সঙ্গে ভিয়েতনামের ব্যবসা, পর্যটন এবং জনগণের সঙ্গে জনগণের সংযোগ স্থাপনের ক্ষেত্রে সহযোগিতা বৃদ্ধিতেও গুরুত্বারোপ করেন। তিনি বলেন, এ বিষয়ে আমরা দু’জন দু’জনার কাছ থেকে শিখতে পারি। ত্রাণ ভ্যান খোয়া দুই দেশের মধ্যে বাৎসরিক ব্যবসার পরিমাণ ৮শ’ থেকে ৯শ’ মিলিয়ন ডলার উল্লেখ করে বলেন, ‘আমরা একে এক বিলিয়ন ডলারে উন্নীত করতে চাই।’

প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সচিব সাজ্জাদুল হাসান বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন।

বঙ্গবন্ধু-শেখ হাসিনার ওপর রুশ ভাষায় প্রকাশিত বই হস্তান্তর : জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ওপর রুশ ভাষায় অনূদিত ও প্রকাশিত তিনটি বই রোববার প্রধানমন্ত্রীর কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। বইগুলো হল- শেখ মুজিবুর রহমান ও বাংলাদেশের জন্ম, বঙ্গবন্ধুর অসমাপ্ত স্মৃতিকথা এবং শেখ হাসিনার সঙ্গে অধ্যাপক ড. ভি নাওমকিনের আলাপচারিতা।

অনুবাদক ও প্রকাশক রাশিয়ান একাডেমি অফ সায়েন্সেস ও অরিয়েন্টাল স্টাডিজের অধ্যাপক ড. ভি নাওমকিন প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে সকালে বইগুলো হস্তান্তর করেন।

প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম সাংবাদিকদের ব্রিফিংয়ে এ তথ্য জানিয়ে বলেন, শেখ হাসিনার সঙ্গে অধ্যাপক ড. ভি নাওমকিনের আলাপচারিতা বইটি রুশ ভাষার পাশাপাশি বাংলা, ইংরেজি ও আরবি ভাষায়ও প্রকাশিত হয়েছে। প্রেস সচিব বলেন, অধ্যাপক নাওমকিন প্রধানমন্ত্রীকে আগামী বছর জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকীতে ‘বঙ্গবন্ধুর অসমাপ্ত স্মৃতিকথা’ বইটি ব্যাপকভাবে বিতরণের পদক্ষেপ সম্পর্কে অবহিত করেন। প্রধানমন্ত্রীর আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিষয়ক উপদেষ্টা ড. গওহর রিজভি, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সচিব সাজ্জাদুল হাসান এবং রুশ রাষ্ট্রদূত আলেক্সান্ডার আই. ইগনাতভ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×