ভারত-পাকিস্তানের সেনাসহ নিহত ২১ : কাশ্মীর সীমান্তে গোলাগুলি

উপরাষ্ট্রদূতকে তলব পাকিস্তানের * পাকিস্তানে চারটি জঙ্গিশিবির ধ্বংস ও কয়েক সন্ত্রাসীকে হত্যার দাবি ভারতের * ভারতীয় দুটি বাঙ্কার উড়িয়ে দেয়ার দাবি পাকিস্তানের

  যুগান্তর ডেস্ক ২১ অক্টোবর ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

ভারত-পাকিস্তানের সেনাসহ নিহত ২১: কাশ্মীর সীমান্তে গোলাগুলি
ফাইল ছবি

জম্মু-কাশ্মীরে নিষেধাজ্ঞা উঠিয়ে নেয়ার পর ভারত ও পাকিস্তান সীমান্তে নতুন করে দেখা দেয়া উত্তেজনা চরমে পৌঁছেছে। উভয়পক্ষের মধ্যে গোলাগুলিতে চলতি বছরের মধ্যে সেনাসহ সবচেয়ে বেশি হতাহতের ঘটনা ঘটেছে রোববার।

উভয়পক্ষের দাবি অনুযায়ী, এদিন ১৪ সেনাসহ কমপক্ষে ২১ জন নিহত হয়েছেন। এছাড়া হামলায় পাকিস্তান ভূখণ্ডে ১০-১৫ সন্ত্রাসবাদী নিহতের দাবি করেছে ভারত।

ভারতীয় সেনাবাহিনীর বরাতে আনন্দবাজার জানায়, রোববার ভোরে জম্মুর কুপওয়ারার তাংধার সেক্টরে অস্ত্রবিরতি চুক্তি লঙ্ঘন করে ব্যাপক গোলাবর্ষণ শুরু করে পাকিস্তানি সেনারা।

এতে দুই ভারতীয় জওয়ান এবং এক গ্রামবাসী নিহত হন। এরপর তাংধারের উল্টো দিকে পাকিস্তান অধিকৃত কাশ্মীরের নীলম উপত্যকার জঙ্গি ঘাঁটি লক্ষ্য করে ভারি গোলাবর্ষণ শুরু করে ভারতীয় সেনারা।

মর্টার, কামানের মতো অস্ত্র ব্যবহার করে চারটি জঙ্গিশিবির গুঁড়িয়ে দেয়া হয়েছে। হামলায় পাকিস্তানের ৫ সেনা নিহত হন।

টাইমস অব ইন্ডিয়া ও এনডিটিভির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ভারতীয় সেনার গুলিতে এখন পর্যন্ত পাকিস্তানের অভ্যন্তরে কমপক্ষে ১০-১৫ সন্ত্রাসবাদী নিহত হয়েছে। এ সময় এক বেসামরিক নাগরিকও মারা যান।

গুলি বিনিময়ের পর ইসলামাবাদে নিযুক্ত ভারতীয় উপরাষ্ট্রদূত গৌরব অহলুয়ালিকে তলব করে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। ইসলামাবাদের পক্ষ থেকে সীমান্তে উত্তেজনার কথা জানানো হয়েছে উপরাষ্ট্রদূতকে।

এদিকে অস্ত্রবিরতি চুক্তি লঙ্ঘন করে ভারতই প্রথম হামলা চালিয়েছে বলে দাবি করেছে পাকিস্তান।

আনন্দবাজার ও ডন নিউজ জানিয়েছে, পাকিস্তানের আইএসপিআর (আন্তঃবাহিনী জনসংযোগ পরিদফতর) পক্ষ থেকে রোববার দেয়া বিবৃতিতে বলা হয়েছে, কাশ্মীর সীমান্তে সাধারণ বাসিন্দাদের লক্ষ্য করে গুলি ছুড়েছে ভারতীয় সেনা।

এতে এক সেনাসদস্য ও ছয় বেসামরিক নাগরিক নিহত হয়েছেন। আইএসপিআরের ডিজি মেজর জেনারেল আসিফ গফুর টুইটারে লিখেছেন, ভারতীয় সেনা বিনা প্ররোচনায় অস্ত্রবিরতি লঙ্ঘন করে জুরা, শাহকোট ও নওসেরা সেক্টরে সাধারণ নাগরিকদের ওপর হামলা করেছে।

পাকিস্তানের সেনারা এর জবাব দিলে ৯ ভারতীয় সেনা নিহত হন। গুঁড়িয়ে দেয়া হয়েছে ভারতীয় দুটি বাঙ্কার।

পাশাপাশি পাকিস্তানের মাটিতে জঙ্গিশিবির গুঁড়িয়ে দেয়ার দাবিকে মিথ্যা বলে অভিহিত করেছেন তিনি। এদিন পাকিস্তানের দাবি করা তাদের সাতজন নিহতের পরিচয়ও দিয়েছে ডন নিউজ।

ফেব্রুয়ারিতে পুলওয়ামায় এক সন্ত্রাসী হামলায় ভারতীয় ৪০ সেনা নিহত হন। এরপর পাকিস্তানের বালাকোটে বিমান হামলা চালায় ভারত। তখন দুই দেশের কাশ্মীর সীমান্তে উত্তেজনা বৃদ্ধি পায়।

এরপর ৫ আগস্ট ভারতের বিজেপি সরকার জম্মু-কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা সংবলিত সংবিধানের ৩৭০ এবং ৩৫-এ অনুচ্ছেদ বাতিল করে রাজ্যকে দুই ভাগে বিভক্ত ও কেন্দ্রীয় শাসনের অধীন করে।

রাজ্যজুড়ে অতিরিক্ত সেনা মোতায়েন করে ২ মাস ধরে জরুরি অবস্থা বজায় রাখা হয়। মোবাইল, ইন্টারনেট, টেলিভিশন বন্ধের পাশাপাশি হাজার হাজার রাজনীতিক ও কিশোর-যুবককে বন্দি করা হয়।

আটক হন উপত্যকার প্রভাবশালী রাজনৈতিক দল পিডিপির প্রধান মেহবুবা মুফতি, ন্যাশনাল কনফারেন্সের ওমর আবদুল্লাহ ও ফারুক আবদুল্লাহ এবং জম্মু-কাশ্মীর পিপলস কনফারেন্সের সাজ্জাদ লোন।

সম্প্রতি জরুরি অবস্থা প্রত্যাহার ও রাজনৈতিক কয়েক নেতাকে মুক্তি দেয়ার পর জম্মু-কাশ্মীরে নতুন করে বিক্ষোভ ও সংঘর্ষ ঘটে। এরই মাঝে ভারত-পাকিস্তান সীমান্তে নতুন করে উত্তেজনা বাড়ায় পরিস্থিতির জটিলতা আরেকটু বাড়ল।

ঘটনাপ্রবাহ : কাশ্মীর সংকট

আরও
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×