হংকংয়ে বিতর্কিত প্রত্যর্পণ বিল প্রত্যাহার

  যুগান্তর ডেস্ক ২৪ অক্টোবর ২০১৯, ০০:০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

আন্দোলনের মুখে অবশেষে চীনে বন্দি প্রত্যর্পণের সুযোগ রেখে করা প্রস্তাবিত বিলটি আনুষ্ঠানিকভাবে প্রত্যাহার করে নিয়েছে হংকংয়ের আইনসভা। প্রায় দুই মাস আগে বিলটি প্রত্যাহারের ঘোষণা দিয়েছিলেন চীনের বিশেষ প্রশাসনিক অঞ্চলটির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ক্যারি লাম। এদিকে বিক্ষোভ ও সার্বিক পরিস্থিতি ‘ভালোভাবে’ সামাল দিতে না পারায় লামকে সরিয়ে দেয়ার পরিকল্পনা করছে বেইজিং।

রয়টার্স বলছে, হংকংয়ের পার্লামেন্টের বুধবারের এই পদক্ষেপে গণতন্ত্রপন্থী আন্দোলনকারীদের পাঁচ দফা দাবির একটি পূরণ হল। এরপরও শহরটিতে প্রায় পাঁচ মাস ধরে চলা অস্থিরতার অবসান হবে না বলে ধারণা করা হচ্ছে। আন্দোলনকারীদের আরও চার দাবি হল- এতদিন ধরে চলে আসা প্রতিবাদ কর্মসূচিকে ‘দাঙ্গা’ হিসেবে অভিহিত না করা, গ্রেফতারদের নিঃশর্ত মুক্তি ও ক্ষমা, বিক্ষোভে পুলিশি বর্বরতার নিরপেক্ষ তদন্ত এবং সার্বজনীন ভোটাধিকার নিশ্চিত করা।

বিবিসি বলছে, এপ্রিলে বিতর্কিত যে বিলটিকে ঘিরে এ আন্দোলন শুরু হয়েছিল তাতে চীনের মূল ভূখণ্ড ম্যাকাউ কিংবা তাইওয়ানে কোনো মামলায় অভিযুক্ত হংকংয়ের বাসিন্দাদের বেইজিংয়ে প্রত্যর্পণের সুযোগ রাখার প্রস্তাব করা হয়েছিল।

বিলটি আইনে পরিণত হলে হংকংয়ের বাসিন্দারা চীনের ‘নির্বিচার আটক ও অন্যায় বিচার ব্যবস্থার’ জালে আটকা পড়ত বলে শঙ্কা ছিল। টানা আন্দোলনের মুখে শহরটির প্রধান নির্বাহী ক্যারি লাম বিলটি স্থগিত করার ঘোষণা দিয়েও বিক্ষোভকারীদের শান্ত করতে পারেননি।

১৯৯৭ সালে চীন ব্রিটিশদের কাছ থেকে হংকংয়ের নিয়ন্ত্রণ নেয়ার পর থেকে সেখানে এ ধরনের সহিংসতা ও বিক্ষোভ দেখা যায়নি। টানা কয়েক মাসের বিক্ষোভ মোকাবেলা করা চীনের কমিউনিস্ট পার্টি নেতৃত্বের জন্যও বিরাট চ্যালেঞ্জ হয়ে দাঁড়িয়েছে। বেইজিং হংকংয়ের এ বিক্ষোভকে ‘বিপজ্জনক বিচ্ছিন্নতাবাদী’ আন্দোলন হিসেবে দেখছে।

এদিকে যুক্তরাষ্ট্রের ফিন্যান্সিয়াল টাইমস পত্রিকা বলছে, হংকংয়ের প্রধান নির্বাহী ক্যারি লামকে সরিয়ে দেয়ার পরিকল্পনা করেছে বেইজিং। এই সিদ্ধান্ত শিগগিরই বাস্তবায়ন করা হতে পারে। বিক্ষোভ ঠেকাতে না পারায় লামের বিরুদ্ধে এ পদক্ষেপ নেয়া হতে পারে।

বিভিন্ন সূত্রের বরাত দিয়ে পত্রিকাটি বলছে, প্রাথমিকভাবে হংকংয়ে অন্তর্বর্তীকালীন প্রধান নির্বাহী নিয়োগ দেয়া হতে পারে। সহিংসতার মধ্যে স্থায়ী নির্বাহী নিয়োগ দিতে চাইছে না বেইজিং। তবে মার্কিন এই দৈনিকের প্রতিবেদনকে ‘অসৎ উচ্চাশার রাজনৈতিক গুজব’ বলে প্রত্যাখ্যান করেছে চীন।

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত