মহাকাশে দানবীয় ব্ল্যাকহোলের খোঁজ
jugantor
মহাকাশে দানবীয় ব্ল্যাকহোলের খোঁজ

  যুগান্তর ডেস্ক  

০৩ ডিসেম্বর ২০১৯, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

দানবীয় ব্ল্যাকহোল

এতদিন ধারণা ছিল, মহাকাশে থাকা সবচেয়ে বড় ব্ল্যাকহোল বা কৃষ্ণগহ্বরের ভর সূর্যের ভরের চেয়ে ১০ থেকে ২৪ গুণের বেশি নয়। পাশাপাশি জীবনের শেষ ধাপে ছায়াপথে থাকা নক্ষত্রগুলো ভর হারিয়ে ফেলে।

কিন্তু সম্প্রতি খোঁজ পাওয়া এক দানবীয় ব্ল্যাকহোল এসব ধারণাকে চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিচ্ছে। পৃথিবী থেকে ১৫ হাজার আলোকবর্ষ দূরে অবস্থিত ‘এলবি-১’ নামের ব্ল্যাকহোলের ভর যে সূর্যের প্রায় ৭০ গুণ!

সম্প্রতি চীনের নেতৃত্বাধীন আন্তর্জাতিক গবেষক দল ব্ল্যাকহোলটি খুঁজে পেয়েছে। ন্যাশনাল অ্যাস্ট্রোনোমিকাল অবজারভেটরি অব চায়নার অধ্যাপক ও আবিষ্কারক দলের প্রধান লিউ জিফেং বলেন, বর্তমান তত্ত্ব বলছে, এ ধরনের ভরসম্পন্ন কোনো ব্ল্যাকহোল আমাদের ছায়াপথে নেই।

এতদিন ধারণা ছিল, ব্ল্যাকহোলে পরিণত হওয়ার আগে জীবনের শেষ ধাপে আমাদের ছায়াপথের নক্ষত্রগুলোর অধিকাংশ ভরই শেষ হয়ে যায়। সেই তত্ত্ব মানলে এলবি-১ ব্ল্যাকহোলের তৈরি হওয়ার কথা নয়। মার্কিন মহাকাশ গবেষণা সংস্থা নাসা বলছে, এ ধরনের নাক্ষত্রিক ভরের ব্ল্যাকহোল মৃত নক্ষত্রের অবশিষ্টাংশ থেকে তৈরি হয়। নাক্ষত্রিক ভরের দিক থেকে এলবি-১ ‘অভিনব’।

তবে ব্ল্যাকহোল এর চেয়েও অনেক বড় হয়, সেগুলোর গঠন অবশ্য ভিন্ন। সেগুলো ছায়াপথের কেন্দ্রে থাকে। ইউনিভার্সিটি অব ফ্লোরিডার পদার্থবিদ ডেভিড রেইটজে বলেন, এই আবিষ্কার নাক্ষত্রিক ভরসম্পন্ন ব্ল্যাকহোলের গঠন মডেলগুলোকে আবারও পর্যালোচনা করতে বাধ্য করছে। ইউএসএ টুডে।

মহাকাশে দানবীয় ব্ল্যাকহোলের খোঁজ

 যুগান্তর ডেস্ক 
০৩ ডিসেম্বর ২০১৯, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ
দানবীয় ব্ল্যাকহোল
দানবীয় ব্ল্যাকহোল। ছবি: সংগৃহীত

এতদিন ধারণা ছিল, মহাকাশে থাকা সবচেয়ে বড় ব্ল্যাকহোল বা কৃষ্ণগহ্বরের ভর সূর্যের ভরের চেয়ে ১০ থেকে ২৪ গুণের বেশি নয়। পাশাপাশি জীবনের শেষ ধাপে ছায়াপথে থাকা নক্ষত্রগুলো ভর হারিয়ে ফেলে।

কিন্তু সম্প্রতি খোঁজ পাওয়া এক দানবীয় ব্ল্যাকহোল এসব ধারণাকে চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিচ্ছে। পৃথিবী থেকে ১৫ হাজার আলোকবর্ষ দূরে অবস্থিত ‘এলবি-১’ নামের ব্ল্যাকহোলের ভর যে সূর্যের প্রায় ৭০ গুণ!

সম্প্রতি চীনের নেতৃত্বাধীন আন্তর্জাতিক গবেষক দল ব্ল্যাকহোলটি খুঁজে পেয়েছে। ন্যাশনাল অ্যাস্ট্রোনোমিকাল অবজারভেটরি অব চায়নার অধ্যাপক ও আবিষ্কারক দলের প্রধান লিউ জিফেং বলেন, বর্তমান তত্ত্ব বলছে, এ ধরনের ভরসম্পন্ন কোনো ব্ল্যাকহোল আমাদের ছায়াপথে নেই।

এতদিন ধারণা ছিল, ব্ল্যাকহোলে পরিণত হওয়ার আগে জীবনের শেষ ধাপে আমাদের ছায়াপথের নক্ষত্রগুলোর অধিকাংশ ভরই শেষ হয়ে যায়। সেই তত্ত্ব মানলে এলবি-১ ব্ল্যাকহোলের তৈরি হওয়ার কথা নয়। মার্কিন মহাকাশ গবেষণা সংস্থা নাসা বলছে, এ ধরনের নাক্ষত্রিক ভরের ব্ল্যাকহোল মৃত নক্ষত্রের অবশিষ্টাংশ থেকে তৈরি হয়। নাক্ষত্রিক ভরের দিক থেকে এলবি-১ ‘অভিনব’।

তবে ব্ল্যাকহোল এর চেয়েও অনেক বড় হয়, সেগুলোর গঠন অবশ্য ভিন্ন। সেগুলো ছায়াপথের কেন্দ্রে থাকে। ইউনিভার্সিটি অব ফ্লোরিডার পদার্থবিদ ডেভিড রেইটজে বলেন, এই আবিষ্কার নাক্ষত্রিক ভরসম্পন্ন ব্ল্যাকহোলের গঠন মডেলগুলোকে আবারও পর্যালোচনা করতে বাধ্য করছে। ইউএসএ টুডে।