মুজিববর্ষ উদ্যাপনে বছরব্যাপী কর্মসূচি, সচিবালয়ে হবে বঙ্গবন্ধুর ম্যুরাল

কর্মকর্তা কর্মচারী ঐক্য পরিষদের সভায় শেখ হাসিনা তোরণ ও কর্নার নির্মাণেও সিদ্ধান্ত গ্রহণ

  যুগান্তর রিপোর্ট ১০ ডিসেম্বর ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

সচিবালয়
সচিবালয়। ফাইল ছবি

প্রশাসনের কেন্দ্রবিন্দু সচিবালয়ে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ম্যুরাল স্থাপনসহ প্রধানমন্ত্রী ‘শেখ হাসিনা কর্নার’ নির্মাণ করা হবে। সোমবার সচিবালয়ে অনুষ্ঠিত কর্মকর্তা-কর্মচারী ঐক্য পরিষদের এক বিশেষ সভা থেকে এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

এ ছাড়া শেখ হাসিনার নামে দৃষ্টিনন্দন তোরণ নির্মাণসহ বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী পালন উপলক্ষে বছরব্যাপী বিভিন্ন কর্মসূচি পালনের ঘোষণা দেয়া হয়। এ জন্য ১০১ সদস্যবিশিষ্ট উদ্যাপন কমিটি গঠন করা হয়।

বেলা সাড়ে ১১টায় সচিবালয় বহুমুখী সমবায় সমিতির অডিটোরিয়ামে অনুষ্ঠিত সভায় সভাপতিত্ব করেন সমিতির সভাপতি মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের উপসচিব মোহাম্মদ সানোয়ার হোসেন। প্রধান অতিথি ছিলেন প্রধানমন্ত্রীর সাবেক এপিএস-১ ও স্থানীয় সরকার বিভাগের যুগ্ম সচিব মো. খাইরুল ইসলাম।

এ ছাড়া অন্যদের মধ্যে সমিতির সম্পাদক সিনিয়র সহকারী সচিব এফএম তৌহিদুল আলম, সিনিয়র সহকারী সচিব মিজানুর রহমান, প্রশাসনিক কর্মকর্তা রুহুল আমীন, বদরুল আলম, হেলাল উদ্দিন, মোহাম্মদ আলী, মইনুল হোসেন, মুশফিকুর রহমান, আবদুল কুদ্দুস, জমশেদ আলম, রাবেয়া আক্তার, মোশফেক শাহ, কেএম গোলাম আহাদ, আবদুল হালিম, মুজিবর রহমানসহ কর্মকর্তা-কর্মচারী ঐক্য পরিষদের সিনিয়র নেতারা বক্তৃতা করেন।

প্রধান অতিথির বক্তৃতায় যুগ্ম সচিব খাইরুল ইসলাম বলেন, সচিবালয় শীর্ষ প্রশাসনিক দফতর হওয়া সত্ত্বেও এখানে জতির জনকের উল্লেখযোগ্য কোনো স্মৃতিচিহ্ন নেই। এ ছাড়া দেশের উন্নয়নে নজিরবিহীন রেকর্ড গড়লেও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে স্মরণে রাখার মতো আমরা তেমন কিছুই করতে পারেনি।

এ জন্য মুজিববর্ষ পালন উপলক্ষে কর্মকর্তা-কর্মচারীদের দীর্ঘদিনের দাবি অনুযায়ী সচিবালয়ে বঙ্গবন্ধুর স্মৃতিচারণায় বিশেষ ম্যুরাল নির্মাণ করতে চাই। যার উচ্চতা হবে কমপক্ষে ৪০ ফুট। এটি জনপ্রশাসন ও স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের মধ্যবর্তী কর্নারে সবুজ চত্বর অথবা বাদামতলায় নির্মাণের প্রস্তাব করছি। অপরদিকে শেখ হাসিনা তোরণ ও শেখ হাসিনা কর্নার নির্মাণে সবাই একমত হয়েছেন। সভায় গৃহীত গুরুত্বপূর্ণ এই সিদ্ধান্তসমূহ বাস্তবায়নে অর্থ বরাদ্দ চেয়ে প্রস্তাব পাঠানো হবে।

তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন বাস্তবায়নে প্রধানমন্ত্রী ক্ষুধা ও দারিদ্র্যমুক্ত আত্মনির্ভরশীল দেশ গড়ে তুলতে রাতদিন কাজ করে যাচ্ছেন। আমরা যারা সরকারি কর্মচারী আছি তাদেরও প্রধানমন্ত্রীর এই অগ্রযাত্রায় সক্রিয় সারথি হতে হবে।

তিনি বলেন, দেশকে এক অনন্য উচ্চতায় নিয়ে যেতে প্রধানমন্ত্রী দৃঢ়তার সঙ্গে শক্ত হাতে দুর্নীতি, মাদক ও চোরাকারবারিদের বিরুদ্ধে অলআউট অভিযান শুরু করেছেন। প্রধানমন্ত্রীর এ অভিযানকে সফল করতে আমাদের সবাইকে একযোগে কাজ করতে হবে।

সভা শেষে মুজিববর্ষ উদ্যাপনে যুগ্ম সচিব খাইরুল ইসলামকে আহ্বায়ক করে ১০১ সদস্যবিশিষ্ট উদ্যাপন কমিটির নাম ঘোষণা করা হয়। সভা থেকে বলা হয়, আগামী পহেলা জানুয়ারি থেকে বছরব্যাপী বিভিন্ন কর্মসূচি থাকবে। বিস্তারিত কর্মসূচি পরবর্তী সময়ে জানিয়ে দেয়া হবে। তবে প্রধানমন্ত্রীর সময় প্রাপ্তিসাপেক্ষে মার্চ অথবা অক্টোবরে সবচেয়ে বৃহৎ অনুষ্ঠান করা হবে।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

 
×