পিরোজপুরে সরকারি জমি দখল

স্ত্রীসহ সাবেক এমপি আউয়ালের বিরুদ্ধে ৩ মামলা অনুমোদন

শিগগির সম্পদ বিবরণী দাখিলের নোটিশ পাঠাচ্ছে দুদক

  যুগান্তর রিপোর্ট ২৪ ডিসেম্বর ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

একেএমএ আউয়াল
একেএমএ আউয়াল। ছবি: সংগৃহীত

ভুয়া মালিক সাজিয়ে সরকারি জমি দখল করে ভবন তৈরিসহ এরকম একাধিক অভিযোগে পিরোজপুর-১ আসনের সাবেক এমপি একেএমএ আউয়ালের বিরুদ্ধে ৩টি মামলার অনুমোদন দিয়েছে দুদক। একটি মামলায় আউয়ালের সঙ্গে তার স্ত্রী লায়লা পরভীনকে আসামি করা হয়েছে।

সোমবার কমিশন সভায় মামলা তিনটির অনুমোদন দেয়া হয়েছে বলে যুগান্তরকে নিশ্চিত করেছেন দুদকের গণসংযোগ কর্মকর্তা প্রণব কুমার ভট্টাচার্য। তিনি বলেছেন, দু-একদিনের মধ্যে অনুসন্ধান কর্মকর্তা উপপরিচালক আলী আকবর মামলা তিনটি করবেন।

এছাড়া আউয়াল ও তার স্ত্রীর সম্পদের হিসাব চেয়ে নোটিশ জারির বিষয়টিও কমিশন অনুমোদন দিয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে দুর্নীতি দমন কমিশন আইন-২০০৪ এর ২৬(১) ধারায় পৃথক সম্পদ বিবরণী দাখিলের নোটিশ জারির অনুমোদন দেয়া হয়।

সোমবার যে তিনটি মামলার অনুমোদন দেয়া হয়েছে, এর মধ্যে একটি মামলায় আউয়ালের সঙ্গে তার স্ত্রী লায়লা পরভীন আসামি। মামলার অনুসন্ধান প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, অসৎ উদ্দেশ্যে ক্ষমতার অপব্যহারের মাধ্যমে সাবেক এমপি আউয়াল কাল্পনিক ও ভুয়া ৬ ব্যক্তিকে ভূমিহীন দেখিয়ে একটি বড় রকমের দুর্নীতি করেন। ওই ভুয়া ৬ ব্যক্তিকে ভূমিহীন দেখিয়ে তাদের নামে পিরোজপুরের নাজিরপুর উপজেলায় ১৩ শতাংশ সরকারি খাস জমি নিজের দখলে নেন।

পরে সেখানে তিনি তিনতলা বাড়ি বানিয়ে পল্লী বিদ্যুৎকে ভাড়া দেন। জালিয়াতির এ ঘটনার অনুসন্ধানের পর স্থানীয় এসি ল্যান্ড দুদক কর্মকর্তাকে বলেছেন, তিনি ওই ৬ ব্যক্তির অস্তিত্ব খুঁজে পাননি। অনুসন্ধানে বেরিয়ে আসে, ৬ ব্যক্তির অস্তিত্ব না থাকলেও সাবেক এমপি আউয়ালের স্ত্রী লায়লা পরভীনের নামে বাড়ির বিদ্যুৎ বিল পরিশোধ করা হয়েছে। এ সংক্রান্ত সব ধরনের প্রমাণ পাওয়ার পর দুদক অনুসন্ধান শেষ করে মামলার সুপারিশ করেছেন।

দুদকের নথি অনুযায়ী দেখা যায়, সরকারি খাস জায়গা লিজ নিয়ে ওই জায়গায় স্ত্রী লায়লা পারভীনের নামে ৩ তলা ভবন নির্মাণপূর্বক তা পিরোজপুর পল্লী বিদ্যুৎ সমিতিকে ভাড়া দিয়ে অবৈধভাবে দখলে রাখার অপরাধেই মামলার সুপারিশ করেছেন অনুসন্ধানকারী কর্মকর্তা আলী আকবর। দণ্ডবিধির ৪২০/৪০৯/১০৯ ধারাসহ ১৯৪৭ সালের দুর্নীতি প্রতিরোধ আইনের ৫(২) ধারায় একেএমএ আউয়াল ও তার স্ত্রী লায়লা পারভীনের বিরুদ্ধে মামলার অনুমোদন দেয় দুদক।

মামলা-২: প্রায় একই প্রক্রিয়ায় সরকারি খাস জমি অবৈধভাবে দখল করে স্বরূপকাঠি উপজেলায় ডাকবাংলোর কাছে তিন তলার একটি আধুনিক ডাক বাংলো নির্মাণ করেন আউয়াল। এমপির ক্ষমতা প্রয়োগ করে তিনি এ জালিয়াতির আশ্রয় নেন। এই অপরাধে একেএমএ আউয়ালের বিরুদ্ধে দণ্ডবিধির ৪২০/৪০৯ ধারাসহ ১৯৪৭ সালের দুর্নীতি প্রতিরোধ আইনের ৫(২) ধারায় অপর মামলার অনুমোদন দিয়েছে দুদক।

মামলা-৩: পিরোজপুর শহরের খুমুরিয়া মৌজার জেএল-৪৬, খতিয়ান নং-২৯৩, রাজার পুকুর নামে পরিচিত ৪৪ শতক সরকারি খাস জমি চতুর্দিকে দেয়াল নির্মাণ করে দখলে নিয়ে নেন আউয়াল। পরে সেখানে বসান পাহারাদারও। এই অপরাধে আউয়ালের বিরুদ্ধে দণ্ডবিধির ৪২০/৪০৯ ধারাসহ ১৯৪৭ সালের দুর্নীতি প্রতিরোধ আইনের ৫(২) ধারায় তৃতীয় মামলার অনুমোদন দিয়েছে দুদক।

দুদকের অনুসন্ধান কর্মকর্তা জানান, আমরা স্বরূপকাঠি ও পিরোজপুর শহরের পাশে খুমুরিয়া মৌজায় সরকারি খাস জমি দখলের বিষয়ে বেশকিছু কাগজপত্র পেয়েছি। তাতে দেখা যায়, পুরোটাই জালিয়াতি হয়েছে। একজন এমপি এটি করতে পারেন তা অবিশ্বাস্য মনে হলেও কাগজপত্রে তা প্রমাণিত। তদন্তকালে আরও তথ্যপ্রমাণ সংগ্রহ করা হবে বলে জানান তিনি।

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

 
×