শিশু আদালতে পুত্র হত্যার বর্ণনা পিতার মুখে

  বরগুনা ও দক্ষিণ প্রতিনিধি ১৪ জানুয়ারি ২০২০, ০০:০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

আদালত প্রাঙ্গণে রিফাতের মা ও বোন। ছবি: যুগান্তর

বরগুনার আলোচিত রিফাত শরীফ হত্যা মামলায় অপ্রাপ্তবয়স্কদের বিচার শিশু আদালতে শুরু হয়েছে। বিচারক জেলা জজ হাফিজুর রহমানের আদালতে বিচার শুরু হয়। মামলার বাদী দুলাল শরীফ শিশু আদালতে সাক্ষ্য দেয়ার সময় পুত্র হত্যার বর্ণনা দিতে গিয়ে কান্নায় ভেঙে পড়েন।

এর আগে ৯ জানুয়ারি জেলা ও দায়রা জজ আদালতে প্রাপ্তবয়স্কদের বিচার শুরু হয়। তখনও পুত্র হত্যার বর্ণনা করতে গিয়ে অঝোরে কাঁদেন। সোমবার বাদীর সাক্ষ্যগ্রহণ শেষ হলে তাকে আসামি পক্ষের ১০ জন আইনজীবী জেরা করেন। এদিন রাষ্ট্রপক্ষ ৫ জন শিশু আসামির বয়স পরীক্ষার আবেদন করেন।

এ নিয়ে আগামী ১৬ জানুয়ারি শুনানির দিন ঠিক করেছেন আদালত। মঙ্গলবার শিশু আদালতে রাষ্ট্রপক্ষের দু’জন সাক্ষ্য দেবেন। এদিন প্রাপ্তবয়স্কদের জন্য নির্ধারিত জেলা ও দায়রা জজ আদালতে তিনজনের সাক্ষ্যগ্রহণ হবে।

সোমবার সকাল সাড়ে ৯টায় বরগুনা জেলা কারাগার থেকে ১১ জন শিশু আসামিকে আদালতে আনা হয়। এরা হচ্ছে- রিশান ফরাজি, রিফাত হাওলাদার, আবু আবদুল্লাহ, অলি উল্লাহ, জয় চন্দ্র সরকার, নাঈম, তানভীর হোসেন, নাজমুল হাসান, রাকিবুল হাসান, সাইয়েদ মারুফ ও রাতুল সিকদার।

এছাড়া জামিনে থাকা প্রিন্স মোল্লা, মারুফ মল্লিক ও আরিয়ান শ্রবণ আদালতে উপস্থিত ছিল। বেলা ১১টায় বাদীর সাক্ষ্য শুরু হয়। দুপুর ১টা পর্যন্ত ১০ জন আইনজীবী বাদীকে জেরা করেন। বাদী দুলাল পুত্র হত্যার বিশদ বর্ণনা দিতে গিয়ে কান্নায় ভেঙে পরেন।

দুলাল শরীফ যুগান্তরকে বলেন, আসামিরা আমার একমাত্র ছেলেকে প্রকাশ্যে নির্মমভাবে কুপিয়ে হত্যা করে। আসামিদের দেখলেই সেই ভয়ানক কোপের দৃশ্য আমার চোখের সামনে ভেসে ওঠে। আমি কিছুতেই মানতে পারছি না। আসামি পক্ষের আইনজীবী মো. নিজাম উদ্দিন যুগান্তরকে বলেন, আমি যেভাবে বাদীকে জেরা করেছি তাতে আমার বিশ্বাস আসামিরা

ন্যায়বিচার পেয়ে খালাস পাবে। রাষ্ট্রপক্ষে বিশেষ পাবলিক প্রসিকিউটর মোস্তাফিজুর রহমান বাবুল যুগান্তরকে বলেন, বাদী দুলাল যেভাবে সাক্ষ্য দিয়েছেন তাতে সব আসামির সাজা হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। আমি আশা করি রাষ্ট্রপক্ষ সাক্ষ্য দিয়ে মামলা প্রমাণ করতে সক্ষম হবে।

তিনি বলেন, ১৪ জনের মধ্যে পাঁচজন আসামির বয়স ১৮ বছরের বেশি। সে কারণে আসামি রিশাদ ফরাজি, চন্দ্র সরকার, মো. নাঈম, সাইয়েদ মারুফ ও মারুফ মল্লিকের বয়স পুনর্নির্ধারণের জন্য আদালতে আবেদন করেছি। আমার বিশ্বাস তাদের বয়স ১৮ বছরের বেশি আসবে। স্পর্শকাতর মামলায় সব প্রসেস শেষ করে এগিয়ে যাওয়াই ভালো।

২০১৯ সালের ২৬ জুন রিফাত শরীফকে প্রকাশ্যে কুপিয়ে হত্যা করা হয়। ২৭ জুন রিফাত শরীফের বাবা দুলাল শরীফ নয়ন বন্ডসহ ১২ জনকে আসামি করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।

আরও খবর
 

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত