খালেদা জিয়ার দণ্ড স্থগিতের দাবি: অ্যাটর্নি জেনারেল যা বললেন

  যুগান্তর রিপোর্ট ১৫ জানুয়ারি ২০২০, ০০:০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম বলেছেন, কারও অনেক দিন সাজা খাটা হলে তার জন্য সরকার বিশেষ বিবেচনা করতে পারে। বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার সাজা স্থগিত করে তাকে দেশ বা বিদেশে চিকিৎসার সুযোগ দিতে সরকারের প্রতি বিএনপি নেতার দাবির বিষয়ে অ্যাটর্নি জেনারেল এ কথা বলেন।

মঙ্গলবার নিজ কার্যালয়ে তিনি বলেন, তারা (বিএনপি) যদি প্রমাণ করতে পারেন (মেইক আউট), তবে সে ব্যাপারে সরকার দেখবে।

৯ জানুয়ারি সুপ্রিমকোর্ট বারে এক সংবাদ সম্মেলনে জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরাম খালেদা জিয়ার সাজা স্থগিত করে তাকে দেশ বা বিদেশে চিকিৎসার সুযোগ দিতে সরকারের প্রতি আহ্বান জানায়।

এ বিষয়ে মঙ্গলবার সাংবাদিকদের প্রশ্নে অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম বলেন, সাধারণত সাজা সাসপেন্ড করা হয় অনেক দিন সাজা খাটার পর। সরকার বিশেষ বিবেচনায় এটা করে, করতে পারে।

সে রকম কেস যদি তারা মেইক আউট করতে পারে, সেটা সরকারের ব্যাপার। তিনি আরও বলেন, জেলখানায় যারা থাকেন এবং বহুদিন কারাভোগ করেন ৪০১ অনুযায়ী তাদের নানাবিধ বিবেচনায় রিমিশন দেয়া হয় এবং অনেক সময় স্থগিতও করা হয়। কিন্তু তারা যদি প্রমাণ করতে পারেন কেস মেইক আউট করতে পারেন সে ব্যাপারে সরকার দেখবে।

সংবাদ সম্মেলনে জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরামের আহ্বায়ক জ্যেষ্ঠ আইনজীবী খন্দকার মাহবুব হোসেন বলেছিলেন, জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্টের মামলায় সর্বোচ্চ সাজা পাঁচ বছর দেয়া হয়েছে।

এরই মধ্যে তিনি দুই বছর কারাগারে আছেন। তাই আইনের স্বাভাবিক প্রক্রিয়া ছাড়াও একজন বয়স্ক ও অসুস্থ ব্যক্তি হিসেবে খালেদা জিয়া দেশের প্রচলিত আইন অনুযায়ী জামিন পাওয়ার যোগ্য।

‘কিন্তু আমাদের দুর্ভাগ্য দেশের সর্বোচ্চ আদালত এ মামলায় তার জামিনের আবেদন খারিজ করে দিয়েছেন। ফলে দেশের বিচার বিভাগের প্রতি সাধারণ মানুষের আস্থা ক্ষুণ্ন হয়েছে বলে আমরা মনে করি।’

খালেদা জিয়ার উন্নত চিকিৎসার বিষয়ে খন্দকার মাহবুব হোসেন বলেন, ‘হাসপাতাল থেকে মেডিকেল বোর্ড তার স্বাস্থ্য সম্বন্ধে যে প্রতিবেদন দিয়েছে তাতে তার বর্তমান অবস্থায় অ্যাডভান্স ট্রিটমেন্টের প্রয়োজন।

কিন্তু এখন পর্যন্ত এ ব্যাপারে কোনো পদক্ষেপ নেয়া হয়নি। ক্ষমতাসীন দলের নেত্রীরা নিজেদের চিকিৎসার জন্য রাষ্ট্রীয় অর্থ ব্যয় করে বিদেশে যান অথচ তিনবারের সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়াকে নিজ ব্যয়ে তার পছন্দ মতো সুচিকিৎসার জন্য সুযোগ দেয়া হচ্ছে না।’

দলীয় নেত্রীর মুক্তির বিষয়ে বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান মাহবুব হোসেন বলেন, ফৌজদারি কার্যবিধির ৪০১ (১) ধারা মোতাবেক কোনো সাজার কার্যকারিতা শর্তহীনভাবে স্থগিত করার একমাত্র ক্ষমতা সরকারের হাতে। আমরা আশা করি সরকার প্রতিহিংসার পথ পরিহার করে আইনগতভাবে চিকিৎসার জন্য খালেদা জিয়াকে মুক্তি দিতে পারে।

এজন্য প্রয়োজন সরকারের সদিচ্ছা। ‘তাই আমরা সরকারের কাছে অবিলম্বে খালেদা জিয়ার দণ্ডাদেশ ৪০১ (১) ধারা অনুযায়ী স্থগিত করে তার ইচ্ছামতো চিকিৎসা নিতে দেশ-বিদেশে সুযোগ দেয়ার দাবি জানাচ্ছি।’

ঘটনাপ্রবাহ : কারাগারে খালেদা জিয়া

আরও

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত