বাংলাদেশি ‘ভাইজানকে’ দেখল ভারতবাসী

  কৃষ্ণকুমার দাস, কলকাতা থেকে ২৫ জানুয়ারি ২০২০, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

নিজের পালিত পুত্রকে স্বজনের হাতে ফিরিয়ে দিতে পশ্চিমবঙ্গের পথে পথে  ঘুরছেন বাংলাদেশের আরিফুল ইসলাম
নিজের পালিত পুত্রকে স্বজনের হাতে ফিরিয়ে দিতে পশ্চিমবঙ্গের পথে পথে ঘুরছেন বাংলাদেশের আরিফুল ইসলাম। ছবি: যুগান্তর

বলিউড অভিনেতা সালমান খান অভিনীত ‘বজরাঙ্গি ভাইজান’ সিনেমার কথা অনেকেরই মনে আছে। ছবিটি এক বোবা শিশুকন্যাকে নিয়ে নির্মিত, যার বাড়ি পাকিস্তানে। মায়ের সঙ্গে ভারতে চিকিৎসা নিতে এসে হারিয়ে যায় শিশুটি।

কিন্তু কথা বলতে না পারা শিশুটির প্রতি গভীর ভালোবাসা ও মানবতার খাতিরে তাকে নিয়ে পাকিস্তান যান সালমান খান। বহু কষ্টে শিশুটির পরিবারকে খুঁজে বের করেন তিনি।

সিনেমার পর্দায় এমন দৃশ্য দেখানো হলেও এবার বাস্তবে বাংলাদেশি ‘ভাইজানের’ সাক্ষাৎ পেয়েছে ভারতের পশ্চিমবঙ্গের মানুষ। পথ হারিয়ে বাংলাদেশ চলে যাওয়া এক বোবা ছেলেকে ভারতে তার পরিবারের কাছে ফেরত দিতে বাংলাদেশি আরিফুল ইসলাম এখন নদীয়ার পথে পথে ঘুরছেন।

আসলে মানবিকতার টান দেশকাল মানে না। মানে না ধর্মের কাঁটাতারও। বাংলাদেশের এক মুসলিম ধর্মাবলম্বী আরিফুলের ভূমিকার জন্য এই সর্বজনীন মানবধর্মেরই সাক্ষী হয়ে রইল নদীয়া। আখ্যানের কেন্দ্রে মূকবধির এক অজ্ঞাতপরিচয় ভারতীয় যুবক এবং তার বর্তমান অভিভাবক এক বাংলাদেশি, সর্বস্ব বাজি রেখে যিনি সেই ছেলেটিকে স্বজনদের হাতে ফিরিয়ে দিতে সীমান্ত পেরিয়ে এসেছেন।

ঘটনার সূত্রপাত প্রায় ১৪ বছর আগে। বাংলাদেশের চুয়াডাঙ্গা জেলার দর্শনা দামুড়হুদার ছয়ঘড়িয়া গ্রামের বাসিন্দা আরিফুল ইসলাম নিজের জমিতে চাষ করছিলেন। হঠাৎ নজরে পড়ে ভারতীয় সীমান্ত লাগোয়া মাঠে বসে এক বালক কাঁদছে। এমন দৃশ্য দেখে থাকতে পারেননি। দৌড়ে ওর কাছে যান। সীমান্তে তখনও কাঁটাতারের বেড়া মাথা তোলেনি।

এপারে এসে আরিফুল বুঝতে পারেন, ছেলেটি কথা বলতে পারে না। হাজার চেষ্টা করেও জানা যায়নি, ওর বাড়ি কোথায়। তবে মনে হয়, হিন্দুবাড়ির ছেলে। অসহায় বালককে একা ফেলে যেতে পারেননি আরিফুল।

আন্তর্জাতিক নিয়মকানুনের তোয়াক্কা না করে কোলে তুলে সোজা বাড়ি নিয়ে যান। সেই থেকে পরিবারের সদস্য হয়ে যায় ভিনধর্মের নামগোত্রহীন ভিনদেশি ছেলে। সেই ছেলেটি এখন তরতাজা তরুণ।

এবার আরিফুল চাইছেন, ছেলেটিকে নিজের ঘরে ফেরাতে। নিজের মা-বাবার হেফাজতে পৌঁছে দিতে। তাই অনেক কষ্টে টাকা জোগাড় করে নদীয়া এসেছেন তিনি। কুড়িয়ে পাওয়া ছেলেটির একটি ছবি হাতে নিয়ে ঘুরে বেড়াচ্ছেন মানুষের দ্বারে দ্বারে। দেখুন তো, চৌদ্দ বছর আগে এমন কেউ হারিয়ে গিয়েছিল কিনা?

বলিউডের চিত্রনাট্যে ‘বজরঙ্গি ভাইজান’ পাসপোর্ট ছাড়াই ছোট্ট বোন মুন্নিকে পৌঁছাতে পাকিস্তানে পৌঁছে গিয়েছিলেন। কিন্তু বাংলাদেশের আরিফুল রীতিমতো পাসপোর্ট করে ভিসা নিয়ে নদীয়ায় এসেছেন একজনকে পৌঁছে দিতে।

শুক্রবার দুপুরে আরিফুলের দেখা মিলল নদীয়ার হাঁসখালি থানার গাজনা বাজারে। খালি গা, এক যুবকের ছবি হাতে বিভিন্ন দোকানে ঢুঁ মারছেন। করজোড়ে সবাইকে মিনতি করছেন ছবিটা খুঁটিয়ে দেখতে। যদি নিরুদ্দেশ কারও সঙ্গে মিল পাওয়া যায়।

জানালেন, সময় খুব কম, মাত্র দু’দিনের ভিসা মিলেছে। এর মধ্যে সীমান্তবর্তী নদীয়ার হাঁসখালি, গাজনা, গেদের বাজারে বাজারে ঘুরেছেন। এখনও সন্ধান মেলেনি। তবে মিলতেও তো পারে!

আরিফুল বলেন, ‘আমরা ছ’ভাই। চৌদ্দ বছর আগে সাত-পাঁচ না ভেবে ওকে বাড়ি নিয়ে গিয়েছিলাম। ও সকলের আপন হয়ে গিয়েছে। কেউ ওকে বাইরের লোক ভাবতে পারি না।’

কৃষক আরিফুল বলেন, সে সময় আমাদের আর্থিক অবস্থা আরও খারাপ ছিল। তাই খোঁজখবর করতে পারেননি। কিন্তু এবার ঘরের ছেলেকে ঘরে ফেরানো কর্তব্য। ‘ও’ চলে গেলে আমাদের খুব খারাপ লাগবে। আবার ভালো লাগবে এই ভেবে যে, ‘ও’ নিজের মানুষদের কাছে ফিরেছে।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

 
×