বিএসএমএমইউ হাসপাতাল পরিচালকের বিবৃতি: খালেদা জিয়ার অবস্থা কোনো কোনো ক্ষেত্রে স্থিতিশীল

  যুগান্তর রিপোর্ট ২৭ জানুয়ারি ২০২০, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

বিএসএমএমইউ হাসপাতাল পরিচালকের বিবৃতি: খালেদা জিয়ার অবস্থা কোনো কোনো ক্ষেত্রে স্থিতিশীল
বিএসএমএমইউতে খালেদা জিয়া। ফাইল ছবি

বিএসএমএমইউ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থা কোনো কোনো ক্ষেত্রে আশানুরূপ উন্নতি হলেও কোনো কোনো ক্ষেত্রে স্থিতিশীল রয়েছে বলে জানিয়েছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল একে মাহবুবুল হক রোববার এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানান।

পরিচালক বলেন, প্রায় ১০ মাস ধরে খালেদা জিয়া বিএসএমএমইউ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। তার শারীরিক সমস্যার কোনো কোনো ক্ষেত্রে আশানুরূপ উন্নতি হয়েছে, কোনো কোনো রোগ স্থিতিশীল রয়েছে। দাঁতের ব্যথা ভালো হয়েছে, ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। শারীরিক দুর্বলতার উন্নতি হয়েছে।

তিনি বলেন, ২০০৯ ও ২০১২ সালে তার দুই হাঁটুতে অস্ত্রোপচারের মাধ্যমে নি-রিপ্লেসমেন্ট করা হয়। কয়েক মাস ধরে মেডিকেল বোর্ডের বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকরা আর্থ্রাইটিসের উন্নত চিকিৎসা নেয়ার জন্য খালেদা জিয়াকে অনুরোধ করে যাচ্ছেন। কিন্তু তিনি এখন পর্যন্ত আর্থ্রাইটিসের ওইসব আধুনিক চিকিৎসা গ্রহণে সম্মতি জ্ঞাপন করেননি। ফলে আর্থ্রাইটিসের আশানুরূপ উন্নতি হচ্ছে না। ডায়াবেটিস, আর্থ্রাইটিস, উচ্চ রক্তচাপ এবং বয়সজনিত কিছু সমস্যা সম্পূর্ণ নির্মূলযোগ্য নয়। যথাযথ ও উন্নত চিকিৎসার মাধ্যমে নিয়ন্ত্রণে রাখা ও রোগীকে ভালো রাখার চেষ্টা করা হয়। বেগম খালেদা জিয়ার সুচিকিৎসায় গঠিত মেডিকেল বোর্ড সর্বোচ্চ আন্তরিকতায় সেই কাজটিই করে যাচ্ছে।

বিএসএমএমইউ হাসপাতালের পরিচালক বলেন, খালেদা জিয়া ২০১৯ সালের ১ এপ্রিল উন্নত চিকিৎসার জন্য এই হাসপাতালে ভর্তির সময় অনিয়ন্ত্রিত ডায়াবেটিস, উচ্চ রক্তচাপ, আর্থ্রাইটিস, দাঁতের ব্যথা, অ্যাজমা ইত্যাদি সমস্যায় ভুগছিলেন। ভর্তির পর তার সুচিকিৎসার জন্য পাঁচ সদস্যের মেডিকেল বোর্ড করা হয়। বিশ্ববিদ্যালয়ের মেডিসিন অনুষদের ডিন ও ইন্টারনাল মেডিসিন বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. জিলন মিঞা সরকারের নেতৃত্বে এই মেডিকেল বোর্ডে রিউমাটোলজিস্ট অধ্যাপক ডা. সৈয়দ আতিকুল হকসহ আরও তিনজন বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক রয়েছেন। বোর্ডের সুপারিশে ২০১৯ সালের ১৭ ডিসেম্বর এন্ডোক্রাইনোলজিস্ট অধ্যাপক ডা. ফরিদ উদ্দিনসহ দু’জনকে অন্তর্ভুক্ত করা হয়। তাছাড়া বোর্ডের সুপারিশক্রমে আরও দু’জন বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক (মনোরোগ ও গ্যাস্ট্রোএন্টারোলজি) তার চিকিৎসায় সম্পৃক্ত হন। এছাড়া তার পছন্দ অনুযায়ী সহযোগী অধ্যাপক ডা. শামীম আহমেদ (রিউমাটোলজিস্ট) ও ব্যক্তিগত চিকিৎসক ডা. মামুনুর রহমান (কনসালটেন্ট-কার্ডিওলজি বিভাগ) নিয়মিত মেডিকেল বোর্ডের সঙ্গে চিকিৎসা সেবায় সহায়তা করে যাচ্ছেন। সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে মাহবুবুল হক আরও বলেন, রাজনীতি বা ব্যক্তিগত পরিচয় বিবেচনায় না নিয়ে, একজন রোগী হিসেবেই সম্পূর্ণ আন্তরিকতার সঙ্গে খালেদা জিয়াকে উন্নত চিকিৎসাসেবা দেয়া হচ্ছে। বিভিন্ন গণমাধ্যমে খালেদা জিয়ার চিকিৎসাসংক্রান্ত যেসব তথ্য প্রচার করা হয় তাদের নিজস্ব সংগৃহীত তথ্য ও বক্তব্য। এর সঙ্গে সংশ্লিষ্ট মেডিকেল বোর্ডের চিকিৎসকদের কোনো সম্পৃক্ততা নেই।

ঘটনাপ্রবাহ : কারাগারে খালেদা জিয়া

আরও
আরও পড়ুন

'কোভিড-১৯' সর্বশেষ আপডেট

# আক্রান্ত সুস্থ মৃত
বাংলাদেশ ৫১ ২৫
বিশ্ব ৮,৫৬,৯১৭১,৭৭,১৪১৪২,১০৭
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

 
×