তেঁতুলিয়ায় পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে শ্রমিক নিহত
jugantor
তেঁতুলিয়ায় পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে শ্রমিক নিহত
আহত ৩০

  পঞ্চগড় প্রতিনিধি  

২৭ জানুয়ারি ২০২০, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

তেঁতুলিয়ায় পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে শ্রমিক নিহত
প্রতীকী ছবি

পঞ্চগড়ের তেঁতুলিয়ায় পুলিশ ও র‌্যাবের সঙ্গে পাথর উত্তোলনকারী শ্রমিকদের সংঘর্ষে এক শ্রমিক নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন কমপক্ষে ৩০ জন। রোববার তেঁতুলিয়া-ঢাকা জাতীয় মহাসড়কের ভজনপুর এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। নিহত শ্রমিকের নাম জুমার উদ্দিন (৬০)।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, তেঁতুলিয়া উপজেলার ভজনপুর এলাকার পাথর শ্রমিকরা অবৈধভাবে ভূগর্ভস্থ পাথর উত্তোলনের দাবিতে রোববার সকালে মহাসড়ক অবরোধ করেন। পুলিশ যান চলাচল স্বাভাবিক করতে গেলে পাথর শ্রমিকদের সঙ্গে সংঘর্ষ বাধে। একপর্যায়ে পুলিশের ওপর পাথর নিক্ষেপসহ পুলিশের চারটি গাড়ি ভাংচুর করেন শ্রমিকরা। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে পুলিশ কয়েক রাউন্ড টিয়ারগ্যাস নিক্ষেপ করে। র‌্যাব সদস্যরাও পুলিশের সঙ্গে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা চালান। সংঘর্ষে পুলিশ ও র‌্যাবের ১১ সদস্যসহ কমপক্ষে ৩০ জন আহত হন। এদের মধ্যে গুরুতর আহত অবস্থায় হাসপাতালে নেয়ার পথে পাথর শ্রমিক জুমার উদ্দিন মারা যান। অন্য আহতদের পঞ্চগড় আধুনিক সদর হাসপাতালসহ বিভিন্ন স্বাস্থ্যকেন্দ্রে ভর্তি করা হয়েছে। আশঙ্কাজনক অবস্থায় তিন পাথর শ্রমিককে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। চার ঘণ্টা অবরোধের পর বিকাল ৩টার দিকে ওই মহাসড়কে যান চলাচল স্বাভাবিক হয়। পঞ্চগড় আধুনিক সদর হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসক ডা. সিরাজ উদ্দৌলা পলিন বলেন, আহত অবস্থায় পুলিশসহ কয়েকজনকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এদের মধ্যে একজন হাসপাতালে আনার আগেই মারা যান। তিনি কীভাবে মারা গেছেন সেটা তাৎক্ষণিকভাবে বলা মুশকিল। অন্যদের চিকিৎসাসেবা দেয়া হচ্ছে। পুলিশ সুপার মোহাম্মদ ইউসুফ আলী বলেন, শ্রমিকরা অবৈধভাবে পাথর উত্তোলনের অন্যায় দাবিতে সড়ক অবরোধ করলে পুলিশ তাদের বাধা দেয়। একপর্যায়ে শ্রমিকরা পুলিশের ওপর ইটপাটকেল ও পাথর ছোড়ে। তারা আমাদের গাড়িও ভাংচুর করে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে পুলিশ কয়েক রাউন্ড টিয়ারগ্যাস ছোড়ে। বর্তমানে পরিস্থিতি স্বাভাবিক রয়েছে।

তেঁতুলিয়ায় পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে শ্রমিক নিহত

আহত ৩০
 পঞ্চগড় প্রতিনিধি 
২৭ জানুয়ারি ২০২০, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ
তেঁতুলিয়ায় পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে শ্রমিক নিহত
প্রতীকী ছবি

পঞ্চগড়ের তেঁতুলিয়ায় পুলিশ ও র‌্যাবের সঙ্গে পাথর উত্তোলনকারী শ্রমিকদের সংঘর্ষে এক শ্রমিক নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন কমপক্ষে ৩০ জন। রোববার তেঁতুলিয়া-ঢাকা জাতীয় মহাসড়কের ভজনপুর এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। নিহত শ্রমিকের নাম জুমার উদ্দিন (৬০)।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, তেঁতুলিয়া উপজেলার ভজনপুর এলাকার পাথর শ্রমিকরা অবৈধভাবে ভূগর্ভস্থ পাথর উত্তোলনের দাবিতে রোববার সকালে মহাসড়ক অবরোধ করেন। পুলিশ যান চলাচল স্বাভাবিক করতে গেলে পাথর শ্রমিকদের সঙ্গে সংঘর্ষ বাধে। একপর্যায়ে পুলিশের ওপর পাথর নিক্ষেপসহ পুলিশের চারটি গাড়ি ভাংচুর করেন শ্রমিকরা। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে পুলিশ কয়েক রাউন্ড টিয়ারগ্যাস নিক্ষেপ করে। র‌্যাব সদস্যরাও পুলিশের সঙ্গে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা চালান। সংঘর্ষে পুলিশ ও র‌্যাবের ১১ সদস্যসহ কমপক্ষে ৩০ জন আহত হন। এদের মধ্যে গুরুতর আহত অবস্থায় হাসপাতালে নেয়ার পথে পাথর শ্রমিক জুমার উদ্দিন মারা যান। অন্য আহতদের পঞ্চগড় আধুনিক সদর হাসপাতালসহ বিভিন্ন স্বাস্থ্যকেন্দ্রে ভর্তি করা হয়েছে। আশঙ্কাজনক অবস্থায় তিন পাথর শ্রমিককে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। চার ঘণ্টা অবরোধের পর বিকাল ৩টার দিকে ওই মহাসড়কে যান চলাচল স্বাভাবিক হয়। পঞ্চগড় আধুনিক সদর হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসক ডা. সিরাজ উদ্দৌলা পলিন বলেন, আহত অবস্থায় পুলিশসহ কয়েকজনকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এদের মধ্যে একজন হাসপাতালে আনার আগেই মারা যান। তিনি কীভাবে মারা গেছেন সেটা তাৎক্ষণিকভাবে বলা মুশকিল। অন্যদের চিকিৎসাসেবা দেয়া হচ্ছে। পুলিশ সুপার মোহাম্মদ ইউসুফ আলী বলেন, শ্রমিকরা অবৈধভাবে পাথর উত্তোলনের অন্যায় দাবিতে সড়ক অবরোধ করলে পুলিশ তাদের বাধা দেয়। একপর্যায়ে শ্রমিকরা পুলিশের ওপর ইটপাটকেল ও পাথর ছোড়ে। তারা আমাদের গাড়িও ভাংচুর করে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে পুলিশ কয়েক রাউন্ড টিয়ারগ্যাস ছোড়ে। বর্তমানে পরিস্থিতি স্বাভাবিক রয়েছে।