নাসিমের হ্যাটট্রিকে ইনিংস হারের চোখরাঙানি
jugantor
নাসিমের হ্যাটট্রিকে ইনিংস হারের চোখরাঙানি
তৃতীয়দিন শেষে: বাংলাদেশ ২৩৩ ও ১২৬/৬ * পাকিস্তান ৪৪৫

  স্পোর্টস ডেস্ক  

১০ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

নাসিমের হ্যাটট্রিকে ইনিংস হারের চোখরাঙানি

ব্যাটে-বলে রাওয়ালপিন্ডি টেস্টের প্রথম দু’দিনে কোনো দাগই কাটতে পারেনি বাংলাদেশ। রোববার ম্যাচের তৃতীয় সকালটা এসেছিল হতাশার জাল ছিঁড়ে আলোর বারতা নিয়ে। রুবেল হোসেন, আবু জায়েদদের উজ্জীবিত বোলিংয়ে মাত্র ১০৩ রানে শেষ সাত উইকেট তুলে নিয়ে সাড়ে চারশ’র আগেই পাকিস্তানকে থামিয়ে দেয় বাংলাদেশ। ২১২ রানে পিছিয়ে থেকে দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাটিংয়ে নেমে দলকে ইতিবাচক শুরু এনে দেন দুই ওপেনার তামিম ইকবাল (৩৪) ও সাইফ হাসান (১৬)। অবশ্য ইনিংস লম্বা করতে পারেননি কেউই। তৃতীয় উইকেটে প্রতিরোধ গড়ে বাংলাদেশকে একটি স্বস্তিমাখা দিন এনে দেয়ার পথেই ছিলেন অধিনায়ক মুমিনুল হক ও নাজমুল হোসেন শান্ত। কিন্তু শেষ বিকেলে এক ওভারেই বাংলাদেশের দিনটা বিবর্ণ করে দিলেন পাকিস্তানের তরুণ পেসার নাসিম শাহ। ১৬ বছর বয়সী নাসিমের দারুণ এক হ্যাটট্রিকে তৃতীয়দিন শেষেই বাংলাদেশকে চোখরাঙাচ্ছে ইনিংস হার। ছয় উইকেটে ১২৬ রানে তৃতীয়দিন শেষ করেছে বাংলাদেশ। ইনিংস হার এড়াতে দরকার আরও ৮৬ রান। ৩৭ রানে ক্রিজে আছেন মুমিনুল। তার সঙ্গী লিটন দাস এখনও রানের খাতা খুলতে পারেননি।

বোলারদের সাফল্য কাল ম্লান হয়ে গেছে ব্যাটসম্যানদের ব্যর্থতায়। শেষ বিকেলে মাত্র দুই রানে চার উইকেট হারায় বাংলাদেশ। ইনিংসের ৪১তম ওভারে বাংলাদেশকে এলোমেলো করে দেন নাসিম। ওভারের চতুর্থ বলটি নাজমুলের প্যাডে আঘাত হানে। আম্পায়ার এলবিডব্লুর আবেদনে সাড়া না দিলে রিভিউ নিয়ে সফল হয় পাকিস্তান। পরের বলে দারুণ এক ইয়র্কারে এলবিডব্লু নাইটওয়াচম্যান তাইজুল ইসলাম। ওভারের শেষ বলে খোঁচা মেরে স্লিপে ধরা পড়েন মাহমুদউল্লাহ। ইতিহাসের পাতায় উঠে যায় নাসিমের নাম। বাংলাদেশের অলক কাপালির রেকর্ড ভেঙে সর্বকনিষ্ঠ বোলার হিসেবে টেস্টে হ্যাটট্রিক করলেন নাসিম। সেই ধাক্কা সামাল দেয়ার আগেই ইয়াসির শাহর স্পিনে শূন্যরানে বোল্ড মোহাম্মদ মিঠুন।

অথচ দিনের শুরুটা কী আশাজাগানিয়াই না ছিল! তিন উইকেটে ৩৪২ রানে দিন শুরু করা পাকিস্তান অলআউট ৪৪৫ রানে। সেঞ্চুরিয়ান বাবর আজমকে ১৪৩ রানেই থামিয়ে দেন আবু জায়েদ। আগেরদিন ফিফটি তুলে নেয়া আসাদ শফিককে ৬৫ রানে থামান ইবাদত হোসেন। এরপর রুবেলের তিন উইকেটে বেশিদূর যেতে পারেনি পাকিস্তান। স্বাগতিকদের লিড দুইশ’ ছাড়ায় মূলত হারিস সোহেলের (৭৫) ফিফটির সুবাদে। রুবেল ও আবু জায়েদ নেন তিনটি করে উইকেট। তবে এক হ্যাটট্রিকেই দিনশেষে সবাইকে ছাপিয়ে গেছেন নাসিম শাহ।

নাসিমের হ্যাটট্রিকে ইনিংস হারের চোখরাঙানি

তৃতীয়দিন শেষে: বাংলাদেশ ২৩৩ ও ১২৬/৬ * পাকিস্তান ৪৪৫
 স্পোর্টস ডেস্ক 
১০ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ
নাসিমের হ্যাটট্রিকে ইনিংস হারের চোখরাঙানি
ছবি: পিসিবি

ব্যাটে-বলে রাওয়ালপিন্ডি টেস্টের প্রথম দু’দিনে কোনো দাগই কাটতে পারেনি বাংলাদেশ। রোববার ম্যাচের তৃতীয় সকালটা এসেছিল হতাশার জাল ছিঁড়ে আলোর বারতা নিয়ে। রুবেল হোসেন, আবু জায়েদদের উজ্জীবিত বোলিংয়ে মাত্র ১০৩ রানে শেষ সাত উইকেট তুলে নিয়ে সাড়ে চারশ’র আগেই পাকিস্তানকে থামিয়ে দেয় বাংলাদেশ। ২১২ রানে পিছিয়ে থেকে দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাটিংয়ে নেমে দলকে ইতিবাচক শুরু এনে দেন দুই ওপেনার তামিম ইকবাল (৩৪) ও সাইফ হাসান (১৬)। অবশ্য ইনিংস লম্বা করতে পারেননি কেউই। তৃতীয় উইকেটে প্রতিরোধ গড়ে বাংলাদেশকে একটি স্বস্তিমাখা দিন এনে দেয়ার পথেই ছিলেন অধিনায়ক মুমিনুল হক ও নাজমুল হোসেন শান্ত। কিন্তু শেষ বিকেলে এক ওভারেই বাংলাদেশের দিনটা বিবর্ণ করে দিলেন পাকিস্তানের তরুণ পেসার নাসিম শাহ। ১৬ বছর বয়সী নাসিমের দারুণ এক হ্যাটট্রিকে তৃতীয়দিন শেষেই বাংলাদেশকে চোখরাঙাচ্ছে ইনিংস হার। ছয় উইকেটে ১২৬ রানে তৃতীয়দিন শেষ করেছে বাংলাদেশ। ইনিংস হার এড়াতে দরকার আরও ৮৬ রান। ৩৭ রানে ক্রিজে আছেন মুমিনুল। তার সঙ্গী লিটন দাস এখনও রানের খাতা খুলতে পারেননি।

বোলারদের সাফল্য কাল ম্লান হয়ে গেছে ব্যাটসম্যানদের ব্যর্থতায়। শেষ বিকেলে মাত্র দুই রানে চার উইকেট হারায় বাংলাদেশ। ইনিংসের ৪১তম ওভারে বাংলাদেশকে এলোমেলো করে দেন নাসিম। ওভারের চতুর্থ বলটি নাজমুলের প্যাডে আঘাত হানে। আম্পায়ার এলবিডব্লুর আবেদনে সাড়া না দিলে রিভিউ নিয়ে সফল হয় পাকিস্তান। পরের বলে দারুণ এক ইয়র্কারে এলবিডব্লু নাইটওয়াচম্যান তাইজুল ইসলাম। ওভারের শেষ বলে খোঁচা মেরে স্লিপে ধরা পড়েন মাহমুদউল্লাহ। ইতিহাসের পাতায় উঠে যায় নাসিমের নাম। বাংলাদেশের অলক কাপালির রেকর্ড ভেঙে সর্বকনিষ্ঠ বোলার হিসেবে টেস্টে হ্যাটট্রিক করলেন নাসিম। সেই ধাক্কা সামাল দেয়ার আগেই ইয়াসির শাহর স্পিনে শূন্যরানে বোল্ড মোহাম্মদ মিঠুন।

অথচ দিনের শুরুটা কী আশাজাগানিয়াই না ছিল! তিন উইকেটে ৩৪২ রানে দিন শুরু করা পাকিস্তান অলআউট ৪৪৫ রানে। সেঞ্চুরিয়ান বাবর আজমকে ১৪৩ রানেই থামিয়ে দেন আবু জায়েদ। আগেরদিন ফিফটি তুলে নেয়া আসাদ শফিককে ৬৫ রানে থামান ইবাদত হোসেন। এরপর রুবেলের তিন উইকেটে বেশিদূর যেতে পারেনি পাকিস্তান। স্বাগতিকদের লিড দুইশ’ ছাড়ায় মূলত হারিস সোহেলের (৭৫) ফিফটির সুবাদে। রুবেল ও আবু জায়েদ নেন তিনটি করে উইকেট। তবে এক হ্যাটট্রিকেই দিনশেষে সবাইকে ছাপিয়ে গেছেন নাসিম শাহ।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : বাংলাদেশের পাকিস্তান সফর-২০২০