অমর একুশে গ্রন্থমেলা ২০২০

শত আলোয় উদ্ভাসিত বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব

  হক ফারুক আহমেদ ১৩ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

শত আলোয় উদ্ভাসিত বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব

শত আলোয় উদ্ভাসিত বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। এবারের অমর একুশে গ্রন্থমেলার সাজসজ্জায় তো বটেই বইয়ের পাতায় পাতায় আছেন তিনি। আর পাঠকরা এসব বইয়ের মধ্য দিয়ে তাকে আবিষ্কার করছেন নানাভাবে।

এবারের একুশে গ্রন্থমেলা ইতিমধ্যেই তাকে উৎসর্গ করা হয়েছে। বাংলা একাডেমির প্রতিদিনের আলোচনায়ও তিনি আসছেন নানাভাবে। তার জন্মশতবর্ষকে সামনে রেখে বেশিরভাগ প্রকাশনী তাকে নিয়ে বই প্রকাশ করেছে। এরমধ্যে সবচেয়ে বেশি গবেষণা গ্রন্থ। পাশাপাশি স্মৃতিকথা, কবিতা, ইতিহাস আশ্রয়ী গল্প-উপন্যাস। ইতিমধ্যে বঙ্গবন্ধুর ওপরে শতাধিক গ্রন্থ প্রকাশিত হয়েছে।

বঙ্গবন্ধুর লেখা ‘আমার দেখা নয়াচীন’সহ বাংলা একাডেমি বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে ২৬টি গ্রন্থ প্রকাশ করেছে। আগামী দুই বছর বাংলা একাডেমি বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে ১০০ বই প্রকাশ করবে। প্রকাশিত বইগুলোর মধ্যে উল্লেখযোগ্য হল- সৈয়দ শামসুল হকের শিশুতোষ ‘বঙ্গবন্ধুর বীরগাথা’, হারুন-অর-রশিদের ‘বঙ্গবন্ধুর দ্বিতীয় বিপ্লব : কী ও কেন’, অজয় দাশগুপ্তের ‘বঙ্গবন্ধুর আন্দোলন কৌশল ও হরতাল’, নূহ-উল-আলম লেনিনের ‘রাজনীতিতে হাতেখড়ি ও কলকাতায় শেখ মুজিব’।

প্রকাশের অপেক্ষায় আছে অনুপম হায়াতের ‘বঙ্গবন্ধু ও চলচ্চিত্র’, মোহাম্মদ আলী খানের ‘ডাকটিকিট ও মুদ্রায় বঙ্গবন্ধু’, জালাল ফিরোজের ‘বঙ্গবন্ধু গণপরিষদ সংবিধান’, সাইমন জাকারিয়ার ‘সাধক কবিদের রচনায় বঙ্গবন্ধুর জীবন ও রাজনীতি’, সমীর কুমার বিশ্বাসের ‘বঙ্গবন্ধুর সমবায় বাংলা’, পিয়াস মজিদের ‘মুক্তিযুদ্ধ, বঙ্গবন্ধু ও বাংলা একাডেমি’।

অর্থমন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব ড. শেখ মহ. রেজাউল ইসলামের বিভিন্ন স্মৃতি বিজড়িত গল্পে গল্পে স্মৃতি কথা নামক বইয়ের মোড়ক উন্মোচন হয়েছে। এর মাধ্যমে সমাজ সংস্কারের বিভিন্ন বিষয়ে গল্পের মাধ্যমে তুলে ধরেছেন তিনি। এছাড়া অন্যান্য প্রকাশনী বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে প্রকাশ করেছে আরও অনেক বই। অন্যপ্রকাশ থেকে এসেছে সৈয়দ শামসুল হক রচিত ‘বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে’।

পাঞ্জেরী পাবলিকেশন্স প্রকাশ করেছে সেলিনা হোসেনের লেখা ইংরেজি গ্রন্থ ‘আওয়ার বিলাভড শেখ মুজিব’, একই প্রকাশনা থেকে এসেছে মোনায়েম সরকারের ‘লাইফ এন্ড টাইমস অব দি ফাদার অব দি ন্যাশন ‘শেখ মুজিবুর রহমান’।

সময় এনেছে ফরিদুর রেজা সাগর সম্পাদিত ‘তোমার নেতা আমার নেতা’। একই প্রকাশনা থেকে এসেছে সুভাষ সিংহ রায়ের ‘পাঠক বঙ্গবন্ধু লেখক বঙ্গবন্ধু’। ইত্যাদি গ্রন্থ প্রকাশ এনেছে সুজাত মনসুরের ‘বঙ্গবন্ধুর দ্বিতীয় বিপ্লব’ ও তপন দেবনাথের ‘রাজনীতির মহাকবি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব’। শোভা প্রকাশ এনেছে আবুল আহসান চৌধুরীর ‘বঙ্গবন্ধু : অন্নদাশঙ্কর রায়ের স্মৃতি-অনুধ্যানে’।

মূলমঞ্চের আয়োজন : বিকেলে গ্রন্থমেলার মূলমঞ্চে অনুষ্ঠিত হয় অনুপম হায়াৎ রচিত বঙ্গবন্ধু ও চলচ্চিত্র শীর্ষক আলোচনা অনুষ্ঠান। প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন সাজেদুল আউয়াল। আলোচনায় অংশ নেন মোরশেদুল ইসলাম ও মুহাম্মদ মোজাম্মেল হক। লেখকের বক্তব্য প্রদান করেন অনুপম হায়াৎ। সভাপতিত্ব করেন নাসির উদ্দীন ইউসুফ।

আলোচকরা বলেন, বাংলাদেশের চলচ্চিত্রের বিকাশ ও উন্নয়নে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছেন। স্বাধীনতার পর বঙ্গবন্ধুর সরকার কর্তৃক গৃহীত নানামুখী গঠনমূলক পদক্ষেপ বাংলাদেশের চলচ্চিত্রাঙ্গনে উন্নয়নের ইতিবাচক প্রভাব রেখেছে।

তারা আরও বলেন, বঙ্গবন্ধুর সাংস্কৃতিক চেতনা ও আদর্শকে অনুসরণ করে বাংলাদেশের চলচ্চিত্র শিল্পকে সামনে এগিয়ে নিয়ে যেতে হবে এবং জাতির পিতাকে নিয়ে চলচ্চিত্র ও প্রামাণ্যচিত্র নির্মাণের মাধ্যমে তার জীবন ও কর্ম বিশ্বের সামনে তুলে ধরতে হবে।

গ্রন্থের লেখক বলেন, বঙ্গবন্ধু ও বাংলাদেশের চলচ্চিত্র নিয়ে গবেষণা ও গ্রন্থ প্রণয়ন আমার জন্য অত্যন্ত আনন্দের অভিজ্ঞতা। বঙ্গবন্ধু বিশ্বাস করতেন রাজনৈতিক বিপ্লবের পাশাপাশি সাংস্কৃতিক বিপ্লবের পথরেখাও নির্মাণ করতে হবে। আমি আশা করি বাংলাদেশের চলচ্চিত্রের পর্দা বঙ্গবন্ধুর আদর্শের আলোতে আবার ঝলমল করে উঠবে।

সভাপতির বক্তব্যে নাসির উদ্দীন ইউসুফ বলেন, বঙ্গবন্ধু ও চলচ্চিত্র বিষয়ক আলোচনা বর্তমান সময়ের প্রেক্ষিতে অত্যন্ত প্রাসঙ্গিক। বঙ্গবন্ধু শুধু মহান রাজনীতিবিদই ছিলেন না, তিনি ছিলেন অত্যন্ত সংস্কৃতিমনা। বাংলার মানুষের সাংস্কৃতিক আকাক্সক্ষা ও রাজনৈতিক স্বপ্ন প্রতিফলিত হয়েছে বঙ্গবন্ধুর জীবন ও কর্মে। অনুপম হায়াৎ রচিত বঙ্গবন্ধু ও চলচ্চিত্র গ্রন্থে বাংলাদেশের চলচ্চিত্র উন্নয়নে বঙ্গবন্ধুর ভূমিকাসহ নানা গুরুত্বপূর্ণ তথ্য উঠে এসেছে।

এদিন কবিতা পাঠ করেন কবি জরিনা আখতার, সাজ্জাদ শরিফ, জাহিদ মুস্তাফা এবং নওশাদ জামিল। আবৃত্তি করেন আবৃত্তিশিল্পী ফয়জুল্লাহ সাঈদ, মাহমুদুল হাকিম তানভীর এবং আদিবা ইসমাত। সঙ্গীত পরিবেশন করেন কণ্ঠশিল্পী ফেরদৌস আরা, বশিরুজ্জামান সাব্বির, নবীন কিশোর, প্রিয়াংকা বিশ্বাস এবং অনন্যা আচার্য। বুধবার লেখক বলছি অনুষ্ঠানে নিজেদের নতুন বই নিয়ে আলোচনা করেন মারুফ রায়হান, জয়দীপ দে, অরুণ কুমার বিশ্বাস এবং শিমুল সালাহ্উদ্দিন।

নতুন বই : বাংলা একাডেমির জনসংযোগ উপবিভাগ থেকে পাওয়া তথ্য অনুযায়ী, বুধবার মেলায় নতুন বই এসেছে ১৫৪টি। উল্লেখযোগ্য বইয়ের মধ্যে বাংলা একাডেমি থেকে অনুপম হায়াৎ এর লেখা বঙ্গবন্ধুবিষয়ক বই ‘বঙ্গবন্ধু ও চলচ্চিত্র’, বাংলানামা থেকে ড. মুহাম্মদ মোজাম্মেল হকের মুক্তিযুদ্ধ ও আলোকচিত্রবিষয়ক ‘মুক্তিযুদ্ধের আলোকচিত্র অবিনাশী দলিল’, শিশু গ্রন্থকুটির থেকে ঝর্না দাশ পুরকায়স্থ’র শিশুতোষ বই ‘দীন দয়ালের হঠাৎ ম্যাজিক’, ইতি প্রকাশ থেকে ফরিদুর রেজা সাগরের গল্প ‘বল্টু ভূতের গল্প’, অনন্যা থেকে রকিব হাসানের গোয়েন্দা কাহিনী ‘হান্টিং লজের রহস্য’, পাঞ্জেরী থেকে পলাশ মাহবুবের ছড়ার বই ‘কুক্কুরু কু’, অন্যধারা থেকে হাবীবুল্লাহ সিরাজীর কবিতার বই ‘নোনা জলে বুনো সংসার’।

আজকের মেলা : আজ মেলার ১২তম দিন। চলবে বেলা ৩টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত। বিকেলে গ্রন্থমেলার মূলমঞ্চে অনুষ্ঠিত হবে সুব্রত বড়ুয়া রচিত বঙ্গবন্ধুর জীবনকথা শীর্ষক আলোচনা অনুষ্ঠান। প্রবন্ধ উপস্থাপন করবেন সুজন বড়ুয়া। আলোচনায় অংশগ্রহণ করবেন খালেদ হোসাইন, লুৎফর রহমান রিটন এবং মনি হায়দার। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করবেন সংস্কৃতিবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব ড. মো. আবু হেনা মোস্তফা কামাল।

'কোভিড-১৯' সর্বশেষ আপডেট

# আক্রান্ত সুস্থ মৃত
বাংলাদেশ ৪৮ ১৫
বিশ্ব ৬,৫০,৫৬৭১,৩৯,৫৫২৩০,২৯৯
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

 
×